সাম্প্রতিক পোস্ট

কলমাকান্দার ২০টি পরিবার এখন আয়রনমুক্ত পানি পাচ্ছেন

কলমাকান্দা, নেত্রকোনা থেকে গুঞ্জন রেমা

বারসিক’র এবং স্থানীয় তরুণদের উদ্যোগে কালাপানি ও আনচেংগ্রী গ্রামে স্থানীয় পদ্ধতিতে আয়রন পানি শোধনের জন্য ফিল্টার তৈরির সহযোগিতা করা হয়েছে। দু’টি গ্রামের ২টি পরিবারকে আয়রন পানি শোধনের জন্য ২টি ফিল্টার তৈরি করে দেওয়াতে সে দুটি গ্রামের প্রায় ২০টি পরিবার আয়রনমুক্ত বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার করতে পারছেন।
এই প্রসঙ্গে দায়ূদ রংদী বলেন, ‘আমরা অনেক ঝুঁকি নিয়ে ভারতের সীমান্ত থেকে খাবার পানি সংগ্রহ করতাম। এখন আশা করছি, বাড়ির টিউবওয়েল থেকেই আয়রনমুক্ত বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার করতে পারবো।’

IMG_20190721_133257
কলমাকান্দা উপজেলার রংছাতি, খারনৈ ও লেঙ্গুরা সীমান্তবর্তী ইউনিয়নগুলো শুকনো মৌসুমে দেখা দেয় খাবার পানির ব্যাপক সংকট। এসময় এলাকার প্রায় সব টিউবওয়েল পানিশূন্য হয়ে যায়। এ পানি শূন্যতা বছরে প্রায় ৩-৪ মাস স্থায়ী হয়। বছরে ৮-৯ মাস টিউবওয়েলে পানি পাওয়া গেলেও প্রায় সব টিউবওয়েলের পানিতেই আয়রন পাওয়া যায়। ফলে টিউবওয়েলে পানি ব্যবহার উপযোগী হয়ে ওঠেনা।

IMG_20190721_140506
বাড়িতে টিউবওয়েল থাকা সত্বেও সেখানকার বাসিন্দা সে পানি ব্যবহার করতে পারেন না আয়রন এর জন্য। টিউবওয়েল থেকে পানি তোলার ৩০ মিনিট পরই পানি লাল হয়ে যায়। যার ফলে কোন কাজেই সে পানি ব্যবহার করা সম্ভব হয় না; না খাওয়ার জন্য, না স্নানের জন্য, না রান্না বান্নার জন্য।

IMG_20190721_140617
টিউবওয়েলের পানি আয়রন হওয়ায় অনেকে ছড়ার পানি ব্যবহার করে থাকেন। নিত্যদিনের পানি চাহিদা পূরণের জন্য পানি সংগ্রহেও দেখা দেয় আরেকটি সমস্যা। কারণ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই পানি সংগ্রহ করতে হয় ভারত সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে। যার ফলে ওখান থেকে পানি নিয়ে আসাটাও খুবই সমস্যা মনে করেন স্থানীয় গ্রামবাসী। অনেকে ঝুঁকি নিয়েও সেখান থেকে পানি সংগ্রহ করেন।

happy wheels 2

Comments