সাম্প্রতিক পোস্ট

বাজেটে কৃষক ও শ্রমজীবী তরুণদের জন্য বিশেষ বরাদ্দের দাবি

রাজশাহী থেকে শহিদুল ইসলাম:
আসন্ন বাজেটে কৃষক ও শ্রমজীবী তরুণদের জন্য বিশেষ বরাদ্দের দাবি জানিয়েছে রাজশাহী বরেন্দ্র অঞ্চল যুব সংগঠন ফোরাম ও উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক। গত ১ জুন এক যৌথ অনলাইন ভিত্তিক সংবাদ সম্মেলন ও মতিবিনিময় অনুষ্ঠানে বক্তারা এসকল দাবি তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে বরেন্দ্র অঞ্চলের তরুণদের পাশপাশি অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলের তরুণ সংগঠনের প্রতিনিধি, স্থানীয় ও জাতীয় আলোচকবৃন্দ। মতবিনিময়ে প্যানেল আলোচক হিসেবে অংশ্রগহণ করেন ডেইলি স্টারের রাজশাহী প্রতিনিধি আনোয়ার আলী, দৈনিক ইত্তেফাকের জেলা প্রতিনিধি মো. আনিসুজ্জামান আনিস, ঢাকা থেকে লেখক ও গবেষক পাভেল পার্থ, রাজশাহী ব্যবসায়ী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার আলী, রাজশাহী বোয়ালীয়া থানা কৃষক লীগের সভাপতি জিয়াউর রহমান লিটনসহ প্রমূখ ব্যক্তিবর্গ।

অনলাইন সংবাদ সম্মেলন এবং মতবিনিময়ের শুরুতে ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন বারসিক বরেন্দ্র অঞ্চলের সমন্বয়কারী ও অনুষ্ঠানের সঞ্চালক শহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, করোনাকালে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কৃষি শ্রমজীবী তরুণ। এ সময়ে অনেক শ্রমজীবী তরুণ তাদের কর্মসংস্থান হারিয়ে বেকার হয়ে গ্রামে ফিরে এসেছে। কিন্তু গ্রামে তার জন্য খুব ভাল কিছু অপেক্ষা করছে না। সামনের দিনগুলোতে সে গ্রামে কিছু করতে চাইলেও আর্থিক সংকটের কারণে তা বাঁধাগ্রস্ত তবে। তিনি তার লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন, ইতোমধ্যে করোনার কারণে লাখ লাখ তরুণ শ্রমিক চাকরি হারিয়ে অসহায় জীবনযাপন করছেন। করোনাকালে সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করলে দেখা যায় এই কৃষক শ্রমজীবী তরুণরাই সবকিছুকে সচল রেখেছে। গ্রামের কৃষক ও তরুণরা শত কষ্টেও এ দু:সময়ে উৎপাদন করে যাচ্ছে কিন্তু ফসলের ন্যায্য দাম থেকে তারা বঞ্চিত।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, বাজেটে বরাবরই অন্যান্য খাতকে গুরুত্ব দেয়া হয় কিন্তু একই সাথে বিগত সময়ের বাজেটগুলোতে কখনোই কৃষক শ্রমজীবী তরুণদের জন্য আলাদা বা বিশেষ বরাদ্দ দেয়া হয়নি। তাই সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় আসন্ন বাজেটে কৃষক শ্রমজীবী তরুণদের জন্য আলাদা বিশেষ বরাদ্দ একটি সময়ের দাবি।

লেখক ও গবেষক পাভেল পার্থ বলেন- “ করোনা মহামারী সময়ে সবকিছু যখন কৃষক ও শ্রমজীবীরা টিকিয়ে রেখেছে, তাই আসছে বাজেটে তাদের অধিক গুরুত্ব দিতে হবে। তিনি আরো বলেন- প্রতিিিট অঞ্চলের ভৌগোলিক এবং আঞ্চলিক পেশাগুলো টিকিয়ে রাখার পরিকল্পনাও করতে হবে।

মতবিনিময়ে তরুণদের প্রতিনিধি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন সামুদ্রীক অঞ্চল সাতক্ষিরা শ্যামনগরের সিডিও ইয়ুথ টিমের সভাপতি সম. ওসমান গণি, বরেন্দ্র অঞ্চলের গ্রামের তরুণ সংগঠন রাজশাহী তানোর উপজেলার স্বপ্নচারী যুব সংগঠনের সভাপতি রুবেল হোসনে মিন্টু, আদিবাসী ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটি সহ সভাপতি সাবিত্রী হে¤্রম, রাজশাহী সামাজিক উন্নয়ন সংগঠনের সভাপতি রায়হান স¤্রাট, সূর্যকিরণ বাংলাদেশের সভাপতি শাইখ তাসনিম জামাল, বাংলাদেশে ইননোভেটিভ এডুকেশন সিস্টেম এর সভপাতি জয়নুল আবেদিন সহ বিভিন্ন সংগঠনের তরুণ সদস্যগণ। আলোচনা শেষে আসন্ন বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ, তরুণদের জন্য কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ, সহজ শর্তে ঋণ দেয়া সহ ৯ দফা দাবিও তুলে ধরা হয়।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: