সাম্প্রতিক পোস্ট

“সচেতন তরুণদের সম্মিলিত প্রতিরোধ,করবে সকল অতিমারীর গতিরোধ ” বরেন্দ্র অঞ্চলে যুব সম্মেলন ও সম্মাননা ২০২১

রাজশাহী থেকে তহুরা খাতুন লিলি
“সচেতন তরুণদের সম্মিলিত প্রতিরোধ, করবে সকল অতিমারীর গতিরোধ ” এই শ্লোগানে রাজশাহী তথা বরেন্দ্র অঞ্চলের বৃহৎ যুব-তরুণ ঐক্য বরেন্দ্র অঞ্চল যুব সংগঠন ফোরাম এবং উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক’র আয়োজনে র্ভাচুয়ালি ‘বরেন্দ্র যুব সম্মেলন ও সম্মাননা ২০২১’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। করোনা মহামারীর কারনে এবারের এই ষষ্ঠতম সম্মেলন র্ভাচুয়ালি অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০১৫ সাল থেকে প্রতিবছর বরেন্দ্র অঞ্চলে গড়ে উঠা স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠনগুলোর আয়োজনে এবং উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিকের যৌথভাবে আয়োজিত হয়ে আসছে।

এবারের সম্মেলন ও সম্মাননা অনুষ্ঠানে বরেন্দ্র অঞ্চলের প্রায় ৪৬টি তরুণ সংগঠনের শতাধিক তরুণ প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ তারিখে বিকাল ৩ ঘটিকায় অনলাইন জুম প্লাটফর্মের মাধ্যমে এই সম্মেলন শুরু হয়।
সম্মেলনে শুভেচ্ছা ও ধারনাপত্র পাঠ করেন আহবায়ক শাইখ তাসনীম জামাল। বরেন্দ্র অঞ্চলের তরুণদের কার্যক্রম এবং বারসিকে সহায়কভুমিকা বিষয়ে বক্তব্য তুলে ধরেন বারসিক বরেন্দ্র অঞ্চল সমন্বয়কারী শহিদুল ইসলাম।
এরপর বরেন্দ্র যুব সম্মেলনের প্রথম পর্বের আলোচনা এবং তরুণ সংগঠনসমূহের বিগত বছরের কার্যক্রম, বর্তমান সমস্যা এবং সম্ভাবনার দিকগুলো নিয়ে উপস্থাপন শুরু হয়।
এর পর অভিজ্ঞজনের অভিজ্ঞতা বিনিময় বিষয়ক বক্তব্য পর্ব শুরু হয়। এতে তরুণদের উদ্দেশ্যে পরামর্শমূলক বক্তব্য দেন বীরমুক্তি যোদ্ধা এবং মুক্তিযোদ্ধা ডা. মো. আব্দুল মান্নান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যায়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. বিধান চন্দ্র দাস, নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক অভিজিৎ রায়, শিল্প পুলিশ খুলনা অঞ্চলের প্রধান পুলিশ সুপার রাজশাহী আবু আহাম্মদ আল মামুন, রাজশাহী ব্যবসায়ী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও সফল উদ্যেক্তা সেকেন্দার আলী, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ড. আইনুল হক. লেখক ও গবেষক পাভেল পার্থ, কৃষিবিদ এবিএম তৌহিদুল আলম। আরো বক্তব্য তুলে ধরেন বিগত সম্মেলনের সাবেক আহবায়ক রুবেল হোসেন মিন্টু, উজ¦ল হোসেন।


বক্তারা বলেন- তরুণদের এই আশাজাগানিয়া কাজ বরেন্দ্র অঞ্চলকে উন্নয়নের দিকে ধাবিত করবে। তরুণ মনোসামাজিক উন্নয়নে সংগঠনগুলো কার্যকরভাবে কাজ করছে। প্রধান অতিথি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ডা. আবদুল মান্নান বলেন-“ তরুণরা সত্যিকারের ইতিহাস ধারণ করে দেশের উন্নয়নে এগিয়ে যাবে। ”
নবীন প্রবীণ আলোচনা ও অভিজ্ঞতা বিনিময় শেষে তরুণদের আগামী পরিকল্পনা ও প্রস্তাবনা তুলে ধরেন সম্মেলনের সদস্য সচিব সাবিত্রী হে¤্রম। তরুণরা বরেন্দ্র অঞ্চলের ভৌগোলিক এবং মানুষের পেশা এবং সংস্কৃতির উপর গুরুত্ব দিয়ে আগামীতে সকল ধরনের উন্নয়ন পরিকল্পনা ও বাস্তবায়নের দাবি জানান।
এরপর তরুণদের কার্যক্রমের ভিত্তিতে বর্ষ সেরা তরুণ ও তরুণ সংগঠন পুরুষ্কার ঘোষণা করেন বারসিক বরেন্দ্র অঞ্চল সমন্বয়কারী শহিদুল ইসলাম।
এবারের শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠন সম্মাননা ২০২১ অর্জন করে রাজশাহীর তরুণ সংগঠন ‘সূর্যকিরণ বাংলাদেশ’। সংগঠনটির তরনুণরা করোনাকালে তিনহাজের বেশি মূমূর্ষ রোগীকে বিনামূল্যে রক্ত দান করে সহায়তা করেন। শ্রেষ্ঠ সংগঠন কর্মসূচী ক্যাটাগড়িতে সম্মাননা পান ‘ হেল্প পিপল’ তরুণ সংগঠন। সংগঠনটি ২ টাকার হোটেল এর কর্মসূচীর কারনে প্রায় পনের হাজার বস্তির প্রান্তিক মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা করেন। বর্ষসেরা তরুণ সংগঠক সম্মাননা অর্জন করেন রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ের তরুণ সংগঠন নবজাগরণ ফাউন্ডেশনের সাবেক সভাপতি মো: খালিদ হাসান। খালিদ হাসান করেনাকালে তরুণদের সংগঠিত এবং তরুণদের মনোবিকাশে নানামূখী অনলাইন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করেন। যা তরুণদের মননশলিতা উন্নয়নে বিশেষ ভ‚মিকা রেখেছে।
এবারের শ্রেষ্ঠ যুব নারী সম্মানা পান আদিবাসী ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি সাবিত্রী হে¤্রম। তিনি করোনাকালে নিজে উদ্যোগী হয়ে গ্রামে গ্রামে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধী জনসচেতনতা চালিয়ে যান।
শ্রেষ্ঠ তরুণ নির্বাচিত হন যৌথভাবে তরুণ সংগঠন সামাজ কল্যান সংস্থার নির্বাহী পরিচালক স¤্রাট রায়হান এবং তানোর উপজেলার স্বপ্নচারী যুব সংগঠনের সভাপতি রুবেল হোসেন মিন্টু।
করোনাকালে জনমূখী ও পরিবেবন্ধব কার্যক্রম করে বছরের বিশেষ সম্মাননা পান বরেন্দ্র অঞ্চলের চারটি সংগঠন যথাক্রমে – রোটার‌্যাক্ট ক্লাব অব রাজশাহী, স্বপূরণ ফাউন্ডেশন স্কুল, ভয়েস অব ইয়থ এবং বিলনেপাল পাড়া স্বপ্নযাত্রী তরুণ সংগঠন।
অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে অংশ ছিলো র্ভাচুয়ালি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান,র্ভাচুয়ালি লাইভ অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন রাজশাহীর ‘অ’ ব্যান্ড।

happy wheels 2
%d bloggers like this: