সাম্প্রতিক পোস্ট

প্রবীণদের যত্ন ও সেবা করার দায়িত্ব আমাদের সবার

সাতক্ষীরা, শ্যামনগর থেকে বিশ্বজিৎ মন্ডল
বারসিক’র সহায়তায় ও জয়নগর কৃষি নারী সংগঠনের উদ্যোগে সম্প্রতি কাশিমাড়ি ইউনিয়নে জয়নগর গ্রামের কৃষাণী রোজিনা বেগমের বাড়িতে প্রবীণ ও বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের সুরক্ষা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মতবিনিময় সভায় জয়নগর ও গোবিন্দপুর গ্রামের বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিরা শিশু-নারী-প্রবীণ, কৃষক-কৃষাণী, প্রবীণ ব্যক্তি, নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থী ও বারসিক’র বিধান মধু ও বিশ্বজিৎ মন্ডল অংশগ্রহণ করেন।

মতবিনিময় সভায় প্রবীণ ব্যক্তি আব্দুল গফুর, মতলেব মোড়ল, রেহানা ও সোওরাব হোসেনরা বলেন, ‘আমাদের বয়স হয়েছে। মানে আমরা বুড়ো হয়ে গেছি। আর বর্তমান সমাজে যেন এই বুড়ো লোকগুলো বেশি অবহেলিত। আমাদের পরিবারে, সমাজ ও দেশের জন্য যে ভূমিকা বা অবদান রেখেছি তা যেন কারো মনে নেই।’ তাঁরা আরও বলেন, ‘জীবনের নানান প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়ে শক্ত হাতে সংসারের চাকাকে সচল রাখার চেষ্টা করেছি। কী করে পরিবারের মানুষেরা ভালো থাকে সেই চিন্তায়। বিনিময়ে আমরা তো পরিবারের কাছে ভালো কিছু চাইতে পারি। সেই আশা নিয়ে এখনো বেঁচে আছি পরিবার পরিজনদের সাথে। জানিনা আগামীর এই শেষ দিনগুলো কেমন যাবে আমাদের।’
প্রবীণরা জানান, সব সময় তাদের সন্তান ও পরিবারের ভালো চান। তারা যদি ভালো থাকে তাহলে তাঁরাও ভালো থাকবেন। তাদের ভালো থাকা ও ভালোভাবে বাঁচাতে দেওয়ার দায়িত্ব যেমন পরিবারের তেমনি সমাজ ও দেশের। তাঁদের সুরক্ষার দায়িত্ব সকলের।


বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তি মনিরুল বলেন, ‘প্রতিবন্ধী হওয়াতে গ্রামের লোকজন আমাদের নানান চোখে দেখে। নানাভাবে ডাকে যা আমাদের খুবই কষ্ট দেয়। আমার পরিবারে আমরা আব্বাও অসুস্থ। আমিও কিছু করতে চাই। কিন্তু আর্থিক সমস্যার কারণে তা পারিনা। আমিও আয় করতে চাই পরিবারের পাশে থাকতে চাই।’


সভায় অংশগ্রহণকারী স্থানীয় জনগোষ্ঠী প্রবীণ ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা তাদের উন্নয়নের জন্য কিছু দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলোর মধ্যে অন্যতম ছিলো সকল প্রবীণ ও প্রতিবন্ধীদের সহজ সর্তে কার্ড ও ভাতা নিশ্চিৎ করা, ভাতার পরিমাণ বাড়ানো, বিনামূলে চিকিৎসা ও ঔষধের ব্যবস্থা, বিনোদনের ব্যবস্থা, সচেতনমূলক বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন, অকার ও হুইল চেয়ার, ঘর সহায়তা, শিক্ষা উপকরণ এবং যে ব্যক্তি যে কাজে পারদর্শী তাকে উপকরণ দিয়ে সহায়তা করা ইত্যাদি।

happy wheels 2
%d bloggers like this: