সাম্প্রতিক পোস্ট

রোগাক্রান্ত আমন ক্ষেত: উদ্বিগ্ন চাষীরা

রাজশাহী থেকে মিজানুর রহমান

রাজশাহী জেলার তানোর উপজেলাসহ বরেন্দ্র অঞ্চলজুড়ে এবার আমন চাষের শুরু থেকেই পোকা দমনে নানা পদ্ধতি ব্যবহার করছেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর। ফলে এ অঞ্চলের আমনের লক্ষ্যমাত্রার এক তৃতীয়াংশই এবার পার্চিং, লগ লাইন পদ্ধতিতে চাষাবাদ হচ্ছে। এ পদ্ধতি ব্যবহার করে অনেক কৃষক সুফলও পাচ্ছে ।
তবে এবার আমন চাষের শুরুর দিকে বৃষ্টির অভাবে চাষাবাদে বিঘœ ঘটার পাশাপাশি গত বছরের আমন ধান পানির দরে বিক্রি করে লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়েই চলতি মৌসুমে আবারও জীবিকার তাগিতে আমন চাষ করেছেন এই অঞ্চলের কৃষকেরা। কিন্তু আমনের মাঝামাঝি সময় এসে হঠাৎ করে ক্ষেতে (ব্যাকটেরিয়াল লিপ ব্লাইথ) পাতা মরা রোগের প্রার্দুভাব দেখা দিয়েছে। ফলে ক্ষেতের এ দূরাবস্থা দেখে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ছেন অনেকেই। কিন্তু মাঠ পর্যায়ের কৃষি কর্মকর্তারা স্বর্ণা জাতের ধানকে এ রোগের অন্যতম হিসেবে দায়ী করছেন।

tanore-amon-dan-photo-18-09সম্প্রতি তানোর উপজেলার বিভিন্ন ফসলি মাঠ ঘুরে দেখা গেছে, উপজেলার প্রায় ৭৫ ভাগ কৃষক এবার স্বর্ণা জাতের ধান চাষাবাদ করেছেন। আমন ক্ষেতে পার্চিং, লগ লাইন পদ্ধতিতে চাষাবাদ হলেও অনেক জমিতে (ব্যাকটেরিয়াল লিপ ব্লাইথ) পাতা মরা রোগের প্রাদুর্ভাবে ক্ষেতের অনেক ধানের আগা পুড়ে লাল লাল হয়ে গেছে। এসময় একাধিক কৃষক জানান, ক্ষেতে রাসায়নিক কীটনাশক ব্যবহার করতে তাদের অনেক অর্থ ব্যয় করেও কোন ফল পাচ্ছেন না। রাজশাহী জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য মতে, চলতি মৌসুমে জেলায় আমনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৭৩ হাজার ৩৩৫ হেক্টর জমিতে। এছাড়াও এ অঞ্চলের, নওগাঁ, নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় আমন চাষাবাদ হবে আরো ৩ লাখ ৫০ হাজার হেক্টরের উপরে জমিতে।

উপজেলা কৃষ্ণপুর গ্রামের আদর্শ কৃষক আলহাজ্ব সামসুদ্দিন মন্ডল জানান, চলতি মৌসুমে ৪২ বিঘা জমিতে স্বর্ণা জাতের ধান চাষাবাদ করেছেন। শুরুর দিকে ভালো থাকলেও মাঝামাঝি সময় এসে তার ৭ থেকে ১২ বিঘা জমিতে ধানের আগা মরে গেছে।
একই কথা জানান উপজেলার চাপড়া গ্রামের কৃষক সাইদুর রহমান, তার গত বছর আমন চাষ করে দাম না পেয়ে অনেক লোকসান গুনতে হয়েছিল। তবুও চলতি মৌসুমে গত বছরের লোকসান মাথায় নিয়ে ৮ বিঘা জমিতে আমন চাষাবাদ করেছেন তিনি। কিন্তু ধানের মাঝামাঝি সময় এসে তার ২ থেকে ৪ বিঘা জমিতে পাতা মরা রোগ দেখা দিয়েছে।
এনিয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার শফিকুল ইসলাম এ প্রতিবেদকে জানান, এ পাতা মরা (ব্যাকটেরিয়াল লিপ ব্লাইথ) রোগের প্রভাবে ধানের খুব একটা ক্ষতি হবে না। সেই সঙ্গে ফলনে ও খুব একটা কম হবে না। তবে স্বর্না জাতের ধানে বেশি এ রোগ আক্রমন করে। তাই স্বর্না জাতের ধান বাদ দিয়ে অন্য কোন জাতের ধান চাষাবাদ করলে এ রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে বলে জানান এ কৃষি কর্মকর্তা।

happy wheels 2
%d bloggers like this: