সাম্প্রতিক পোস্ট

উপকূলীয় কৃষিতে অবদানের জন্য দীলিপ তরফদারের স্বাধীনতা সন্মাননা-২০১৬ অর্জন

শ্যামনগর, সাতক্ষীরা থেকে বাবলু জোয়ারদার

উপকূলীয় কৃষিতে অবদানের জন্য স্বাধীনতা সম্মাননা-২০১৬ পদক পেলেন সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার চন্ডীপুর গ্রামের কৃষক দীলিপ তরফদার (৫০)। গত ২৬ মার্চ ২০১৬ শ্যামনগর উপজেলা প্রশাসন মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে তাঁকে এই সম্মানে ভূষিত করে।

বাংলাদেশে দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় অঞ্চল ভৌগলিক অবস্থানগত কারণে লবণাক্ত। প্রাকৃতিক ও মনুষ্যসৃষ্ট নানাবিধ কারণে এ অঞ্চলের কৃষিজমির লবণাক্ততা ধীরে ধীরে  বাড়ছে। তাই লবণ সহনশীল ফসল জাত উদ্ভাবন ও কৃষকের কাছে পৌঁছে দেওয়া সময়ের দাবি। কৃষকের প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে  দীলিপ তরফদার ২০১০ সাল থেকে নিজের প্রচেষ্টায় ধান নিয়ে নানা ধরণের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু করেন। ২০১০ সালে তিনি আগাম জাতের খেজুরছড়ি ও ভালো ফলন  হয় কুটেপাটনাই এই দু’টি লবণসহনশীল স্থানীয় জাত লাগিয়ে নানা ধরণের বৈশিষ্ট্য পরীক্ষা করেন এবং পরবর্তীতে সংকরায়নের মাধ্যমে পঞ্চম প্রজন্মে “চারুলতা” ধান উদ্ভাবন করেন যা আমন মৌসুমে বর্তমানে এলাকার অনেক কৃষক চাষ করছেন।

Silউপকূলীয় অঞ্চলের একজন সফল কৃষক হিসেবে তিনি নিজ বাড়িতে আম, জাম, কাঁঠাল, লেবু, পেয়ারা, নারকেল, কদবেল, আদা, পেঁয়ারা, পেঁপে, সবেদা, তেতুল, তালসহ প্রায় ৬৫ প্রকারের ফল গাছ লাগিয়ে জৈব পদ্ধতিতে ব্যবস্থাপনার মাধ্যম উপকূলীয় কৃষিপ্রতিবেশ সংরক্ষণে বিশেষ ভূমিকা রেখে চলেছেন। এছাড়াও চন্ডিপুর গ্রামের মিঠাপুকুর ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ১০/১২ গ্রামের মানুষের সুপেয় পানির নিরাপত্তা নিশ্চিত করনেও তাঁর ভূমিকা রয়েছে। স্বাধীনতা সম্মাননা পাওয়ার পর দিলীপ তরফদার তাঁর অনুভূতি জানিয়ে বলেন, “এই অর্জন আমার একার নয়, উপকূলীয় অঞ্চলের সব কৃষকের চেষ্টার স্বীকৃতি যা সবাইকে অনুপ্রেরণা যোগাবে”।

happy wheels 2
%d bloggers like this: