সাম্প্রতিক পোস্ট

শ্যামনগর উপজেলা প্রশাসনের কাছ থেকে বারসিক’র ‘স্বাধীনতা দিবস-২০১৫ সম্মাননা’ লাভ

শাহীন ইসলাম, আঞ্চলিক সমন্বয়কারী, বারসিক, সাতক্ষীরা

সম্প্রতি বারসিককে শ্যামনগর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বাধীনতা দিবস-২০১৫ সম্মাননা প্রদান করা হয়। কেন বারসিককে স্বাধীনতা দিবস-২০১৫ সম্মাননা প্রদান করা হলো এবং কোন যুক্তিতে করা হলো সেই ব্যাখ্যাটি নির্বাচন কমিটির সদস্যরা নানানভাবে তাদের যুক্তি ও ব্যাখ্যা তুলে ধরেছেন। বারসিক সম্পর্কে তাদের ধারণা, বারসিক’র কাজের সম্পর্কে তাদের বিশ্বাস এবং বারসিক’র সামগ্রিক উন্নয়ন উদ্যোগগুলোর কৌশল সম্পর্কে তাদের আত্মবিশ্বাস ফুটে উঠেছে তাদের কথায়, যুক্তিতে এবং ব্যাখ্যায়। নিন্মে আমাদের পরিবেশ’ পাঠকদের জন্য তারা তুলে ধরা হলো-
“বারসিক একটি জাতীয় পর্যায়ের বেসরকারি উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান। ১৯৯৭ সালে কয়েকজন উন্নয়নকর্মী, শিক্ষক-গবেষক এবং সমাজকর্মীর সম্মিলিত উদ্যোগে বারসিকের যাত্রা শুরু। এই প্রতিষ্ঠান লোকায়ত জ্ঞান ও প্রাণবৈচিত্র্য সংরক্ষণ, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব ও অভিযোজন, প্রাকৃতিক সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা, স্থানীয় প্রাকৃতিক সম্পদে এবং সরকারি-বেসরকারি পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থায় সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকার, জেন্ডার সমতা; সামগ্রিকভাবে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর স্থায়িত্বশীল উন্নয়ন প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্য নিয়ে নিষ্ঠার সাথে কাজ করে আসছে। জনগোষ্ঠীর উদ্যোগ ও অংশগ্রহণে জনগোষ্ঠীর উন্নয়ন এই দর্শনকে ধারণ করে জননেতৃত্বে উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় বারসিক সহায়ক হিসেবে কাজ করছে। বাংলাদেশের অন্যান্য কৃষিপ্রতিবেশ অঞ্চলের পাশাপাশি উপকূলীয় শ্যামনগর জনপদে বারসিক ২০০১ সাল থেকে কাজ করছে। এরই ধারাবাহিকতায় শ্যামনগর থেকে উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে কৃষি জয়িতা, চ্যানেল আই কৃষি পদক’ ২০১২ এবং দুই জন কৃষাণী বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক ২০১৪ অর্জন করেছে। একই সাথে বারসিক শ্যামনগর উপজেলার কৃষক-জেলে-বনজীবী-আদিবাসী ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে  শক্তিশালী ও ক্ষমতায়নে জনসংগঠন (বর্তমানে ১৭টি)  তৈরিতে নিরলস প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। কৃষিতে বিশেষ অবদান রাখায় বেসরকারি উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিককে আমরা স্বাধীনতা সম্মানা প্রদান করছি”। উপজেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার (ভূমি) আহসান উল্লাহ শরিফী সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে বারসিকের অবদান সম্পর্কে উপরোক্ত কথাটি বলেছেন।

“বারসিক দীর্ঘদিন এ জনপদে কৃষি ও কৃষি প্রাণবৈচিত্র্য নিয়ে কাজ করছে। এই সংগঠনটির সাথে শ্যামনগরের মাটি ও মানুষের সম্পর্ক। এই সংগঠনের সহায়তায় শ্যামনগর জনপদের কৃষক-কৃষাণীরা চ্যানেল আই কৃষি পদক ও বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক অর্জন করেছে। এ কারণে কৃষিতে বারসিককে স্বাধীনতা সম্মাননা প্রদানের জন্য মনোনীত করা হয়েছে”। বারসিককে স্বাধীন দিবস-২০১৫ সম্মাননা প্রদান সম্পর্কে নির্বাচন কমিটির সদস্য শ্যামনগর উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি সাংবাদিক আকবর কবীর তার যুক্তি এভাবেই তুলে ধরেছেন। অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিটির সদস্য জাতীয় মহিলা সংস্থার শ্যামনগর উপজেলা সংগঠক মো. আনিসুর রহমান বলেন, “শ্যামনগর উপজেলায় অনেক সংগঠন কৃষি নিয়ে কাজ করে। কিন্তু বারসিক শ্রেষ্ঠ। কৃষকের বীজ নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠায় বারসিক সহায়ক শক্তি হিসেবে কাজ করছে। আলোচনায় বারসিকের নাম প্রস্তাব করলে সবাই তাতে সম্মতি ও সমর্থন জানায়। কৃষিতে বারসিকের অবদান স্বীকৃতি পাওয়ার যোগ্য বিধায় স্বাধীনতা দিবস-২০১৫ সম্মাননা দেওয়া হয়েছে”। নির্বাচন কমিটির নারী সদস্য উন্নয়ন সংগঠক চন্দ্রিকা ব্যনার্জী বলেন, “বারসিক দীর্ঘদিন ধরে আমাদের এলাকায় কৃষি ও কৃষক নিয়ে আন্তরিকতার সাথে কাজ করছে। এ অঞ্চলের কৃষিকে বিকশিত করার ক্ষেত্রে বারসিকের অবদান স্মরণীয়। বারসিক সহায়তায় আমাদের এলাকার কৃষকেরা ফসলের সহনশীল নতুন জাত উদ্ভাবন, কৃষিতে নারীর ক্ষমতায়ন হয়েছে। বিশেষ করে উপকূলীয় এ অঞ্চলে প্রাকৃতিক দূর্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষি পুনঃগঠনে বারসিক নিরলসভাবে কাজ করছে। সেজন্য আমরা কৃষিতে বারসিককে স্বাধীনতা সম্মাননা প্রদানে নির্বাচন করেছি”। “সভায় প্রথমে এক দুই জন চ্যানেল আই পদক বা বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক প্রাপ্ত কৃষক কৃষাণীকে দেওয়ার প্রস্তাব করেন। এ সময় সভায় অনেকে প্রস্তাব করেন উপজেলার কৃষক কৃষাণীরা যে সংগঠনের সহযোগিতায় চ্যানেল আই পদক বা বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পদক পেয়েছে সেই বারসিককে স্বাধীনতা সম্মাননা দেওয়া হোক। তখন সভায় অংশগ্রহণকারী সকলেই সমর্থন জানান”। উপরোক্ত বক্তব্যটি নির্বাচন কমিটির সদস্য শ্যামনগর উপজেলা সামাজিক বন কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমানের।

উল্লেখ্য, গত ২৭ মার্চ সন্ধ্যায় উপকূলীয় সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলা প্রশাসন মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে জমকালো ও আলোকসজ্জিত মঞ্চে শ্যামনগর উপজেলার ৭ গুণী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে স্বাধীনতা দিবস-২০১৫ সম্মাননা প্রদান করা হয়। সম্মাননা প্রাপ্ত ৭ গুণী ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান হল সংস্কৃতিতে-অনিমেষ ব্যানার্জী (মরণত্তোর), শিক্ষায়-খান আনছার উদ্দীন (মরণত্তোর), সমাজসেবায়-গাজী আব্দুল হামিদ চেয়ারম্যান (মরণত্তোর), ক্রীড়ায় মাস্টার রফিক উদ্দীন (মরণত্তোর), কৃষিতে বারসিক (এনজিও), মুক্তিযুদ্ধে শেখ আতিয়ার রহমান (বীর মুক্তিযোদ্ধা) ও রতœগর্ভা নারী জেবুন্নেছা জলিল। শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সায়েদ মো. মনজুর আলমের সভাপতিত্বে সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যসহ পদক প্রদান করেন সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য এস এম জগলূল হায়দার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কালিগঞ্জ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফারুক আহমেদ, শ্যামনগর আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক এস এম আতাউল হক দোলন, কালীগঞ্জ রোকেয়া মনসুর কলেজের অধ্যক্ষ জাফরুল আলম বাবু, স্বাধীনতা সম্মানা প্রাপ্ত গাজী আব্দুল হামিদের স্ত্রী শাহানা হামিদ, অনিমেষ ব্যানার্জীর কন্যা চন্দ্রিকা ব্যানার্জী, মাস্টার রফিকুল আলমের কন্যা আফরোজা খাতুন ও  বারসিকের আঞ্চলিক সমন্বয়কারী শাহীন ইসলাম। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন সমাজ সেবক আফজালুল হক, শ্যামনগর প্রেসক্লাব সভাপতি আকবর কবীর ও মুন্সিগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মো. মোশারফ হোসেন।

বলে রাখা ভালো যে, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ তারিখে সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সায়েদ মো. মনজুর আলমের সভাপতিত্বে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০১৫ উদযাপন উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা প্রশাসনের সকল দপ্তরের কর্মকর্তা, ইউপি চেয়ারম্যান, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, সাংবাদিক, শিক্ষক, মুক্তিযোদ্ধা, উন্নয়ন সংগঠকসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সভায় অংশগ্রহণ করেন। সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু সায়েদ মো. মনজুর আলম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস ২০১৫ যথাযোগ্য সম্মান, মর্যাদা এবং উৎসাহ ও উদ্দীপনার সাথে উদযাপনের নিমিত্তে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়, সরকারি পরিবহনপুল, ঢাকা এর ২ ফেব্রুয়ারি তারিখের ৪৮.০০.০০০০.০০১.২৫.০০১.২০১৫/০৩ নং স্মারকে প্রাপ্ত জাতীয় কর্মসূচি বিস্তারিত পাঠ করে জানান যে, শ্যামনগর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২০১৫ সালের মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস তিন দিনব্যাপী পালিত হবে। দিবসটি পালনে উপস্থিত সকল সদস্যের মতামত ও আলোচনান্তে বিভিন্ন কর্মসূচি ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। পৃথক পৃথক কমিটি করে ২৫ মার্চ ২০১৫ তারিখে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, রচনা প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃত্তি, টি-২০ ক্রিকেট প্রতিযোগিতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী আ. হামিদ সড়কের নামফলক উদ্বোধন, সকল সরকারি, আধা সরকারি, বেসরকারি, ব্যক্তি মলিকানাধীন ভবনসমূহে আলোকসজ্জা, মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী, সামাজিক যাত্রাপালা এবং ২৬ মার্চ ৩১ বার তোপধ্বণির মাধ্যমে দিবসের সূচনা, জাতীয় পতাকা উত্তোলন, মুক্তিযুদ্ধের শহীদ স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ, মাজার জিয়ারত ও দোয়া, আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, মার্চ পাষ্ট, শরীর চর্চা প্রদর্শন ও ডিসপ্লে, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার শীর্ষক আলোচনা, স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং ২৭ মার্চ স্বাধীনতা দিবস-২০১৫ সম্মাননা পদক প্রদান এবং চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ শিল্পী ও রাজবাড়ী জেলার পাংশা বন্ধন শিল্পগোষ্ঠীর পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পালনের সিদ্ধান্ত হয়।

বারসিক দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় কৃষিপ্রতিবেশ অঞ্চলের শ্যামনগর উপজেলায় কৃষি, পরিবেশ, প্রতিবেশ, প্রাণবৈচিত্র্য ও প্রাকৃতিক সম্পদের (কৃষি, ভূমি, নদী, জলাশয়, সুপেয় পানি, সুন্দরবন ও বনায়ন) স্থায়িত্বশীল ব্যবস্থাপনায় পেশাজীবী জনগোষ্ঠীর সাথে গবেষণা কাজ করে যাচ্ছে। দীর্ঘ এক যুগ কর্মএলাকার স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সাথে সরাসরি অংশগ্রহণ করে জনগণের উন্নয়ন কাজের ধারাবাহিক সহায়তায় কৃষক-বনজীবী-জেলে-আদিবাসী এবং অন্যান্য পেশার মানুষেরা ঐক্যবদ্ধ ও সংগঠিত হয়ে নিজেদের সংগঠন গড়ে তুলেছে। কৃষিতে বারসিককে স্বাধীনতা সম্মাননা প্রদান করায় আমরা সংসদ সদস্য এমএম জগলূল হায়দার, উপজেলা প্রশাসন, বীর মুক্তিযোদ্ধা, শ্যামনগর উপজেলা প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দসহ নির্বাচন কমিটির সকল সদস্যকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলীয় কৃষিপ্রতিবেশ অঞ্চলের কৃষি, পরিবেশ, প্রতিবেশ, প্রাণবৈচিত্র্য এবং প্রাকৃতিক সম্পদের উপর নির্ভরশীল জনগোষ্ঠীর অধিকার প্রতিষ্ঠা ও ক্ষমতায়নে আমাদের সম্মিলিত কর্মউদ্যোগ এবং প্রচেষ্টা আরও শক্তিশালী ও গতিশীল হোক।

happy wheels 2
%d bloggers like this: