সাম্প্রতিক পোস্ট

ট্যাং ফল

ট্যাং ফল

কলমাকান্দা, নেত্রকোনা থেকে গুঞ্জন রেমা
কলমাকান্দা উপজেলার রংছাতি ইউনিয়নের চন্দ্রডিঙ্গা গ্রামের বেনুকা ম্রং এর বাড়িতে শোভা পাচ্ছে একটি ফল। ফলটির নাম ট্যাং/প্যাশন ফল। ঘরের দক্ষিণ পাশে বড়ই গাছে জড়িয়ে আছে লতানো এই গাছটি। গাছে ফল ধরেছে অনেক। তাই দেখতেও অনেক সুন্দর লাগছে। এ বছরই প্রথমবারের মত এ গাছে ফল ধরেছে বলেন জানান। ফলটি দেখতে খুবই সুন্দর ও সবুজ বর্ণের। পেকে গেলে হালকা হলদে রং ধারণ করে। তাঁর বাড়িতে আগে অনেক বড় একটি গাছ ছিল কিন্ত ঘর তৈরি করতে গিয়ে গাছটি কেটে ফেলেন। সেই গাছেরই একটি চারা রোপণ করেছিলেন গত বছর। যা এ বছর ফল ধরেছে। ফলটি দেখলে যে কারো নজর কাড়বে।


ফলের ভেতরে অনেক গুলো কালো কালো বীজ ও হালকা হলদে রংঙের কিছু আঁশ থাকে। ভেতরের এই আঁশটিই খাওয়া হয়। তবে এটি শরবত বানিয়ে খেলে সব চেয়ে ভালো। এমনিতেই খাওয়া যায় তবে টক লাগে। বেনুকা ¤্রং কয়েকটা ফল গাছ থেকে পেরে শরবত বানিয়ে খাওয়ালেন আমাদের। গরমের মধ্যে ট্যাং ফলের শরবত তৃপ্তি ভরে খেলাম। আসার সময় একটি পাকা ফল নিয়ে আসলাম। চারার করার জন্য একটা নার্সারি দিয়ে দিলাম। গাছে এতগুলো ফল ধরেছে কিন্তু একটাও নাকি বিক্রি করেন না। সব ফল নিজেরা, পাড়াপ্রতিবেশী ও ছেলে মেয়েরা নিয়ে খায়।
ট্যাং ফলটির চাষ পদ্ধতি জানতে চাইলে বেনুকা ¤্রং বলেন, ‘এই গাছটি গত বছর ছোট একটা চারা রোপণ করেছিলাম। সেখান থেকে এ বছর ফল ধরেছে। এখানে কোন ধরণের সার বা কীটনাশক ব্যবহার করি নাই শুধু রোপণ করেছি কোন ধরণের যতœও করতে হয়না। তারপরও ফল অনেক ধরেছে।’ ফলটি যেহেতু উৎপাদন করতে তেমন কোন খরচ বা যতেœর প্রয়োজন হয় না তাহলে এ ফলটি বাণিজ্যিকভাবে চাষ করলে লাভবান হওয়া সম্ভব বলে মনে হয়।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: