সাম্প্রতিক পোস্ট

সঠিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য ব্যক্তিরও দায়িত্ব রয়েছে

ঢাকা থেকে ফেরদৌস আহমেদ উজ্জল
পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কথা সবাই বলে কিন্তু আমরা বরাবরই অন্যকে এ কাজ করতে বলতে যতটা পটু কিন্তু নিজেরা সেই দায়িত্ব ততটা পালন করিনা। যার কারণে আমাদের চারপাশ অপরিচ্ছন্ন থাকে। সঠিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য ব্যক্তিরও দায়িত্ব রয়েছে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন আজকে (২০ জুলাই) বারসিক আয়োজিত হাজারীবাগের ঝাউচরে অনুষ্ঠিত পরিচ্ছন্নতা অভিযানে বক্তারা।


আজ ২০ জুলাই ২০২২ সকাল ১১ টায় ঢাকার হাজারীবাগে হাজী আব্দুল আওয়াল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী ও আলোচনায় বক্তারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। স্কুলের প্রধান শিক্ষক সেলিম মিয়ার সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ও অনুষ্ঠানের উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাকের অভিবাসন ও ইয়ুথ প্রোগ্রামের প্রধান শরিফুল ইসলাম হাসান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক পাভেল পার্থ, বস্তিবাসী নেতা হারুন অর রশিদ, আলমগীর হোসেন প্রমূখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বারসিকের প্রজেক্ট ম্যানেজার ফেরদৌস আহমেদ।


পরিচ্ছন্নতা অভিযানের উদ্বোধনীতে শরিফুল ইসলাম হাসান বলেন, ‘পৃথিবীর সকল ধর্মেই পরিচ্ছন্নতাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। আমরা যেদেশেই যাই সকল জায়ঘায় দেখি মানুষ কতটা পরিচ্ছন্ন। আমরা আজকে যদি শিক্ষা নিই জাপানের মত বা পৃথিবীর যেকোন সভ্য দেশের মত যে আজ থেকে আমরা পরিচ্ছন্ন থাকবো, তবে দেশটা সত্যিকার অর্থেই পাল্টে যাবে। আমরাই দেশকে পাল্টাতে পারবো। সবকিছুই অন্যরকম হয়ে যাবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমরা সবসময় কাজের ক্ষেত্রে, দায়িত্বেও ক্ষেত্রে অন্যের দিকে আঙ্গুল দেখাই কিন্তু আজ যদি আমরা নিজেরা দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করি তবে আমাদের চারিপাশ ও দেশটি একদমই পাল্টে যাবে।’ তিনি, স্কুলের সকল শিক্ষার্থীদের নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য অনুরোধ জানান।
বিশেষ অতিথি পাভেল পার্থ বলেন, প্রাণ, প্রকৃতি ও পরিবেশ ভাল থাকলে আসলে আমাদের কি লাভ আমরা কি কখনো সেটা ভেবে দেখেছি? আমাদের শিক্ষা পদ্ধতির মধ্যে পরিবেশ ও প্রকৃতির প্রতি ভালবাসা ও শ্রদ্ধা করাটা সঠিক ভাবে শেখানো হয়না। তিনি বলেন, একটা স্কুলও একটি দারুণ উদাহরণ হয়ে উঠতে পারে পরিচ্ছন্নতার মডেল হিসেবে যদি আমরা সত্যিকার অর্থেই চাই। তিনি আরও বলেন, আমরা চাই দেশের প্রতিটি মানুষ বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়টি খুব ভালো করে জানুক বুঝুক এবং আমাদের দেশের মানুষ বর্জ্যকে সম্পদে পরিণত করতে পৃথিবীর সবচেয়ে দক্ষ মানুষে পরিণত হউক। এটা করতে পারলেই আমরা দেশকে সত্যিকার অর্থেই উন্নত করতে পারবো। প্রাণ-প্রকৃতি ও পরিবেশকে বাদ দিয়ে পৃথিবী আর এগুতে পারবেনা। সেটা করোনাও আমাদের আরেকবার শিখিয়ে গেছে।’


অনুষ্ঠানের উদ্বোধন শেষে ঝাউচর বাজারে একটি সচেতনতা র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় শতাধিক মানুষ সচেতনতামূলক বিভিন্ন ফেস্টুন নিয়ে শ্লোগানসহ র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করেন। র‌্যালি শেষে স্কুলটিতে পরিচ্ছন্নতা অভিযান করা হয়। পুরো স্কুলের ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা সকল ময়লা আবর্জনা মুক্ত করা হয়।
ইউএসএআইডি এর অর্থায়নে প্রোমোটিং এ্যাডভোকেসি এন্ড রাইটস (পার) কর্মসূচিটি কাউন্টারপার্ট ইন্টারন্যাশনাল এর কারিগরি সহযোগিতায় স্থানীয় সংস্থা দুঃস্থ স্বাস্থ্য কেন্দ্র (ডিএসকে) তার কনসোর্টিয়াম সদস্যদের (বারসিক, কাপ ও ইনসাইট্স) নিয়ে ঢাকা কলিং প্রকল্প কাজ করছে।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: