সাম্প্রতিক পোস্ট

সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ইতিবাচক পরিবর্তন আনা সম্ভব

নেত্রকোনা থেকে হেপী রায়

নেত্রকোনার লক্ষ্মীঅগঞ্জের ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস.এম শফিকুল সুজা বলেন, “মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য প্রতিটি উন্নয়ন সংগঠনের কর্মীরা কাজ করে যাচ্ছেন। যেমনভাবে আমরা যারা জনপ্রতিনিধি আছি আমরাও মানুষের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। উভয়ের মিলিত প্রচেষ্টায় সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার পরিবর্তন করতে সহজ হবে।” গত বৃহস্পতিবার (২৭ এপ্রিল) লক্ষ্মীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যদের সাথে অনুষ্ঠিত মত বিনিময় সভায় এ কথা বলেন তিনি। বারসিক কর্তৃক আয়োজিত ‘নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে গ্রামীণ দরিদ্র জনগণের প্রবেশাধিকার’ শীর্ষক এ মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছাড়াও ইউপি সদস্য, উন্নয়নকর্মী এবং বারসিক’র কর্মকর্তারা।

Exif_JPEG_420

নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে গ্রামীণ দরিদ্র মানুষের প্রবেশাধিকার নিয়ে কথা বলতে গিয়ে লক্ষ্মীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বলেন, “বারসিক এর কার্যক্রম নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। এই প্রতিষ্ঠানের কর্তা ব্যক্তিরা সাধারণ মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা জনপ্রতিনিধিরা তাদের কাজের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করছি। উভয়ের মিলিত প্রচেষ্টায় সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার পরিবর্তন করতে সহজ হবে।” তিনি তাঁর পরিষদের সদস্যদের বলেন, “প্রত্যেকের এলাকাতে সচেতন ও উদ্যোগী ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে হবে। যাতে করে উদ্যোগী ব্যক্তিরা সমাজে পরিচিতি পান এবং তাঁদের সাহায্যে আরো মানুষ উপকৃত হতে পারেন।”

অনুষ্ঠানে বারসিক কর্মকর্তা হেপী রায় নবায়নযোগ্য জ্বালানি বিষয়ে সকলকে ধারণা প্রদান করে বলেন, “বিগত দুই বছর যাবৎ বারসিক লক্ষ্মীগঞ্জ ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নবায়নযোগ্য জ্বালানি বিষয়ে সচেতনতামূলক  পথনাটক, র‌্যালি, মানববন্ধন, রচনা  ও কুইজ প্রতিযোগিতা, জ্বালানি সাশ্রয়ী চুলার মেলা ও প্রতিযোগিতা ইত্যাদি কার্যক্রম করে আসছে।” তিনি আরও বলেন, “এই ইউনিয়নের কান্দাপাড়া ও সুলতানগাতী গ্রামে বেজলাইন জরিপ করা হয়েছে। যেখানে গ্রামের কৃষি, জ্বালানি, সেচ ব্যস্থা,সহ যাবতীয় বিষয় উঠে এসেছে।”

Exif_JPEG_420

হেপী রায় জানান, গবেষণায় দেখা গেছে এ দু’টি গ্রামের শিক্ষা, বয়ষ্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতাসহ ইউনিয়ন পরিষদের সাথে উক্ত গ্রামের মানুষের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ও যোগাযোগ রয়েছে। সাধারণ মানুষের একমাত্র ভরসার স্থান হলো ইউনিয়ন পরিষদ ও এর সদস্যগণ।
এর আগে বারসিক’র এলাকা সমন্বয়কারী মো. অহিদুর রহমান বারসিক’র কাজ সম্পর্কে উপস্থিত সবাইকে অবহিত করেন। এরপর সুলতানগাতী গ্রামের নকশী কাঁথা যুব সংগঠনের সদস্য মো. পিয়াস আকন্দ উক্ত গ্রামের বেজলাইন জরিপের ফলাফল উপস্থাপন করেন। তিনি তার গ্রামের ৫টি দরিদ্র পরিবারে চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদত্ত  সোলার বিতরণ ও গ্রামের রাস্তা  মেরামত করার জন্য সংগঠন ও গ্রমবাসীর পক্ষ থেকে পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। ভবিষ্যতে পরিষদ প্রদত্ত সেবাসমূহ প্রাপ্তিতে এ গ্রামের সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে অগ্রাধিকার দেওয়ার জন্য আবেদন করেন। এছাড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন কমিটিতে গ্রামের উদ্যোগী যুবক ও কৃষকদের অন্তর্ভূক্ত করার সুপারিশ করেন। উপস্থাপন শেষে তিনি বেজলাইন জরিপের একটি অনুলিপি চেয়ারম্যানের নিকট হস্তান্তর করেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: