সাম্প্রতিক পোস্ট

নারী পুরুষের সমতাই পারে উন্নয়ন ঘটাতে

সিংগাইর, মানিকগঞ্জ থেকে বিউটি সরকার
সমাজে নারী পুরুষের বৈষম্য হ্রাস করে সমতা তৈরির লক্ষ্যকে সামনে রেখে সম্প্রতি সিংগাইর উপজেলার বায়রা ইউনিয়নের গাড়াদিয়া কৃষক-কৃষাণী সংগঠনের উদ্যোগে ও বারসিক’র সহযোগিতায় জেন্ডার ও উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়।


সংগঠনের সদস্যদের অংশগ্রহনের মাধ্যমে উক্ত সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রাশেদা বেগমের সভাপতিত্বে এবং বারসিক কর্মসূচি কর্মকর্তা বিউটি সরকারের সঞ্চালনায় এ প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। জেন্ডার ও উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ পরিচালনা করেন বারসিক কর্মসূচি সমন্বয়কারী শিমুল বিশ্বাস। প্রশিক্ষণের শুরুতে শিমুল বিশ্বাস জেন্ডার কি তা উপস্থাপন করেন। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘জেন্ডার হল নারী ও পুরুষের সামাজিক পরিচিতি।’ এছাড়া জেন্ডার এবং এর বৈষম্য সর্ম্পকে তিনি আরো বিস্তারিত আলোচনা করেন। তিনি বলেন, নারী এবং পুরুষের কাজের মধ্য দিয়ে যে সর্ম্পকের সৃষ্টি হয় তাই জেন্ডার, যা পরিবর্তন যোগ্য। নারীদের পিছিয়ে থাকার কারণ হিসাবে তিনি নারীদের হাতে টাকা না থাকা ব্যাখ্যা করেন এছাড়া ক্ষমতা এবং নিযন্ত্রনের ক্ষেত্রে ও নারীরা পিছিয়ে রয়েছে, জন্ম এবং পরিবার থেকেই এ বৈষম্য সৃষ্টি হয়। শুধু তাই নয় খাদ্য গ্রহণের ক্ষেত্রে ও নারীরা পিছিয়ে আছে ফলে পুষ্টির ঘাটতি দেখা দিচ্ছে আর একজন সুস্থ মা পারেন সুস্থ সন্তান জন্ম দিতে।


প্রশিক্ষনের এক পর্যায়ে প্রশিক্ষক বলেন, ‘পরিবারে নারী এবং পুরুষ দুটি শক্তি কাজ করে। নারীদের তাৎক্ষণিক কাজে অর্থ আসেনা, পুরুষদের কাজে তাৎক্ষণিক অর্থ আসে তবে নারীদের ব্যয় সাশ্রয়ী কাজ পরিবারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই নারীদের মর্যাদা এবং সন্মান দিতে হবে।’ প্রশিক্ষণে সদস্য মনোয়ারা বেগম বলেন, ‘কৃষক পরিবারে নারীদের অনেক কাজ, ধান শুকানো, ধান মাড়াই এবং বীজ সংরক্ষণসহ বেশির ভাগ কাজ নারীরা করে থাকে, অনেক সময় নারীরা ও পুরুষের ভূমিকা পালন করে।’


প্রশিক্ষণকালে সংগঠনের সভাপতি মোজাম্মেল হক বলেন, ‘পরিবার এবং সমাজে নারী পুরুষের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। তাই আমাদের উভয়কেই গুরুত্ব দিতে হবে। পরিশেষে সভাপতি রাশেদা বেগম জেন্ডার উন্নয়নের জন্য নারী পুরুষ উভয়কে কাজের সহযোগিতার পাশাপাশি সমান দৃষ্টিতে দেখার আহবান জানান ।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: