সাম্প্রতিক পোস্ট

আর নয় মিথ্যা আশ্বাস

উপকূল থেকে বাবলু জোয়ারদার
তোমরা বড়রা মিথ্যা বলছো, আমাদের কান্না তোমরা কি শুনতে পাও না, বেঁচে থাকার অধিকার, চাই জলবায়ুর সুবিচার এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গতকাল শ্যামনগর বাসষ্টান্ডে সুন্দরবন স্টুডেন্ট সলিডারিটি টিম (এসএসএসটি) ও উপকূলীয় শিক্ষা বৈচিত্র্য উন্নয়ন সংস্থা (সিডিও) এর আয়োজনে ও গবেষণা উন্নয়ন প্রতিষ্ঠান বারসিক’র সহায়তায় জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য বিশ্বের অধিক কার্বন নিঃসরণকারী দেশগুলোকে লালকার্ড প্রদর্শন করেছে উপকূলীয় যুবরা।

লালকার্ড প্রদর্শন কর্মসুচিতে অংশগ্রহণ করে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন উপজেলা জনসংগঠন সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ সিরাজুল ইসলাম, শ্যামনগর সদর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য দেলোয়ারা বেগম, অনলাইন প্রেস ক্লাবের সভাপতি মারুফ হোসেন মিলন, এসএসটির রাইসুল ইসলাম ও সিডিওর হাফিজুর রহমান।


বক্তারা বলেন, ‘বিলাসী জীবনযাপন পরিত্যাগ করে কম কার্বন নির্ভর জীবনযাপনে বাধ্য করা, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আমাদের যে লস এবং ড্যামেজ হয়েছে তার জন্য জলবায়ু ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সংগঠিত দ্বন্দ্ব সংঘাতের রূপান্তর ঘটিয়ে সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা এবং জলবায়ু নায্যতা, জেন্ডার নায্যতা নিশ্চিত করা জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে বিশ^ নেতৃবৃন্দ সমঝোতার নামে বছরের পর বছর কাটিয়ে দিয়েছেন কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন সমাধান হয়নি। এর ফলে উপকূলীয় যুব সমাজ জলবায়ু ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার জন্য বিশে^র ধনীদেশগুলোর কাছে জোর দাবি করছে।’ ‘তোমরা বড়রা আমাদের কাছে মিথ্যা গল্প বলছ, এখনই তোমাদের বিলাসী জীবন বাদ দিয়ে কার্বন নির্গমন বন্ধ কর। কারণ একটাই পৃথিবী এটা না বাঁচালে মানুষ ও অন্যন্য প্রাণী এই পৃথিবী থেকে বিলিন হয়ে যাবে।’

বক্তারা আরো বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত দেশের জন্য ক্ষতিপূরণ আদায় ও কম কার্বন নিঃসরণের জন্য ধনী দেশগুলোর কাছে চাপ সুষ্টি করে ক্ষতিপূরণ আদায়ে সরকারকে আরো বেশি সচেতন হওয়ার আহবান জানান।

লালকার্ড প্রদর্শন কর্মসূচিতে সংহতি প্রকাশ করে জনসংগঠন সমন্বয় কমিটি, শ্যামনগর সদর ইউনিয়ন, শ্যামনগর রিপোটার্স কøাব, মটর শ্রমিক ইউনিয়ন ও এলাকার সব শ্রেণীর মানুষ।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: