সাম্প্রতিক পোস্ট

চরাঞ্চলে যুবকদের উদ্যোগে ১০০০ বৃক্ষরোপণ

হরিরামপুর, মানিকগঞ্জ থেকে মুকতার হোসেন:

এ বছর পরিবেশ দিবেসর দিন হরিরামপুর উপজেলার লেছড়াগঞ্জ ইউনিয়নের হরিহরদিয়া গ্রামে মনোয়ারউদ্দিনের বাড়ি থেকে ছোট-বড় নারী পুরুষ ও শিশুরা সবাই ৬-৭টি IMG_20170607_110203ফলজ, ঔষুধি, কাঠ গাছের চারা হাতে নিয়ে লাইন ধরে রাস্তা দিয়ে ছুটছিল বাড়ির দিকে। শিশুদের হাতে দেখা গেছে কদবেল পেঁয়ারা ও জলপাই চারা আর শিশুদের পিতামাতা তাদের হাতের ছিল অর্জুন, মেহগনি, জাম ও চালতা গাছের চারা। বিশ্ব পরিবেশ দিবস-২০১৭ উপলক্ষে লেছড়াগঞ্জ ইউনিয়নের তরুণ শিক্ষার্থী ফয়সাল, রাসেল, কায়েস, শহিদুল, মিতু, পলাশ, শহর আলী চরাঞ্চলে মানুষের পুষ্টি চাহিদা পূরণ, বসতবাড়িতে ব্যাপকভাবে ফলজ ও ঔষধি গাছ রোপণ, প্রাণ-প্রকৃতি রক্ষা, প্রাণবৈচিত্র্য বৃদ্ধি ও জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবেলায় যাতে ভুমিকা রাখতে পারে- সেজন্য নিজেদের অর্থায়নে বৃক্ষরোপণের উদ্যোগ নেয়।

চরাঞ্চলে বৈশাখি ঝড়, বন্যা ও নদী ভাঙ্গনের কারনে বসত বাড়ী রাস্তাঘাটে প্রতি বছর অনেক গাছ পালা ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে যায়। সে বিষয় বিবেচনা করে চরের তরুণ যুবকরা বৃক্ষ রোপণের গুরুত্ব নিয়ে গ্রাম পর্যায়ে আলোচনা সভার আয়োজন করে। সভায় বারসিক কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করে স্থানীয় জনগোষ্টিকে ফলজ, ঔষধি জাতীয় পরিবেশবান্ধব গাছ রোপণে উদ্বুদ্ধ করেন। উদ্যোক্তাগণ গাছের চারা ক্রয় করার জন্য হরিহরদিয়া IMG_20170607KKKও সেলিমপুর গ্রাম থেকে বাড়ি বাড়ি ঘুরে ১০০ পরিবার থেকে ৫০ টাকা করে সংগ্রহ করে ৫০০০ টাকা একত্রিত করেন। উক্ত টাকা দিয়ে হরিরামপুর উপজেলা বনবিভাগের নার্সারী থেকে স্বল্প মুল্যে চারা ক্রয়ের জন্য যোগাযোগ করা হয়।
হরিরামপুর উপজেলা বনবিভাগের নার্সারী থেকে প্রথমে ভ্যানগাড়ি দিয়ে আন্ধারমানিক নৌকা ঘাটে পৌছায় তার পর নৌকায় করে এক ঘন্টা পদ্মা নদী পাড়ি দিয়ে আবার ঘোড়া গাড়ি দিয়ে ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে লেছড়াগঞ্জের হরিহরদিয়া গ্রামে চারা পৌছান। গ্রামের কৃষক-যুবক-শিক্ষার্থী সকলকে বাড়ি বাড়ি খবর পৌছালে উৎসাহের সাথে মনোয়ারউদ্দিনের বাড়িতে পৌছায়। প্রতিজন ৭টি করে (পেঁয়ারা, জলপাই, কদবেল, মেহগনি, অর্জুন, জাম ও চালতা) গাছের চারা হাতে তুলে দিয়ে গাছ লাগানোর উপকারিতা এবং প্রাথমিক পরিচর্যা নিয়ে আলোচনা করা হয়।
IMG_20170607_ZZZZচরাঞ্চলের তরুণদের উদ্যোগ দেখে এগিয়ে আসেন এলাকার কৃষক, রাজনৈতিক ব্যক্তি, হরিরামপুর উপজেলা প্রশাসন ও কৃষি অধিদপ্তর। হরিরামপুর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী অফিসার কাজী আরিফেন রেজওয়ান চরাঞ্চলের যুবকদের বৃক্ষরোপণের উদ্যোগ দেখে তাদের প্রশংসা করেন। যুবকগণ দেশকে সমৃদ্ধশালী করতে অবশ্যই ভূমিকা রাখতে পারে। তিনি উপজেলা প্রশাসনে পক্ষ থেকে চরাঞ্চলে সার্বিক সহযোগিতা করবেন এবং ১০০ আম গাছের চারা দেওয়ার আশ্বাস দেন। উপজেলা কৃষি অফিসার জহুরুল হক বলেন, “আমাদের বেঁচে থাকার প্রেক্ষাপটে বৃক্ষকে আমরা জীবন বলে মনে করি। আমরা জানি আমাদের জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে বৃক্ষের অবদান অভাবনীয় ও অনস্বীকার্য।” তিনি আরও বলেন, “চরাঞ্চলে কৃষক, ছাত্র, যুবক ও স্থানীয় জনগোষ্ঠির সন্বনিত উদ্যোগে যে চারাগুলো রোপণ করা হয়েছে বা হবে প্রতিটি বাড়িতে গিয়ে চারা রোপণ ও পরিচর্যা বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিস নিয়মিত সহযোগিতা করবেন।
গাছ আমাদের খাদ্য দেয়, কাঠ দেয় এবং মাটির ক্ষয় রোধ করে। সর্বোপরি বৃক্ষ আমাদের পরিবেশকে সজীব ও সতেজ রাখে। এলাকাবাসী আগামী জুলাই মাস থেকে চরাঞ্চলে রাস্তার দুইপাশে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ঈদ গা মাঠ, খেলার মাঠসহ বিভিন্ন পতিত জমির আইলে ৫০০০ হাজার তাল ও খেঁজুর বীজ রোপণ করার পরিকল্পনা রয়েছে। হরিরামপুর উপজেলার বয়রা, হারুকান্দি, চালা, হাটিপাড়া, আন্দারমানিক, লেছড়াগঞ্জ, আজিমনগড় ও সুতালড়ী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে জুন মাস ব্যাপি বৃক্ষরোপণ কর্মসুচী চলমান থাকবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: