সাম্প্রতিক পোস্ট

বর্ষায় ফোটে অপরূপ চন্দ্রপ্রভা ফুল

আব্দুর রাজ্জাক, মানিকগঞ্জ ॥

হলুদ রঙের অসম্ভব সুন্দর এই ফুলটির নাম চন্দ্রপ্রভা ফুল। ঘণ্টা আকৃতির স্বর্ণাভ হলুদ রঙা গন্ধহীন এ ফুলকে কেউ কেউ একে সোনাপাতি নামেও ডাকে। গ্রীষ্ম বা বর্ষায় ডালের আগায় বড় বড় থোকায় দেখা যায় হলুদ রঙের এই ফুল।
এটি ইরমহড়হরধপবধব পরিবারে একটি উদ্ভিদ। এর বৈজ্ঞানিক নাম Tecoma stans। অন্যান্য স্থানীয় নামের মধ্যে Yellow bells, Yellow trumpet, Yellow-Elder উল্লেখযোগ্য। এটি Bignoniaceae পরিবারে একটি উদ্ভিদ।

01 (1)

মানিকগঞ্জের সিফাত নার্সারির স্বত্বাধিকারী আব্দুর রশিদ বলেন, “ফুলগুলো লম্বা মাইকের মতো দেখতে। কেউ কেউ তাই মাইক ফুলও বলে থাকেন। থোকা থোকা হলুদে গোটা গাছটি দৃশ্যমান হয়ে ওঠে। সৌন্দর্যপ্রেমীদের চোখ শুধু নয়, সাধারণ পথিকের নজর কাড়ে। তবে ফুল হাতে নিয়ে শুঁকলে মিষ্টি কোন ঘ্রাণ নাকে আসে না।

জানা গেছে, চন্দ্রপ্রভা ফুলের গাছ চিরসবুজ। মাথা কিছুটা ছড়ানো। দল ফানেলের আকার, ৩-৪ সে.মি চওড়া। ফল শুকনো, ১২-২০ সে.মি লম্বা, বীজ আকারে ছোট। বীজ ও কলমে চাষ হয়। ডালের আগায় বড় বড় থোকায় হলুদ রঙের ফুল ফোটে। দেখতে অনেকটা হলুদ ঘণ্টার মতো। ঞবপড়সধ Tecoma gaudichaudi নামে সোনাপাতি ফুলের আরেকটি প্রজাতি আছে যেটায় সারাবছর ফুল ফুটে।

02

সোনাপাতি বা চন্দ্রপ্রভা ফুলের আদি নিবাস আমেরিকায়। যুক্তরাষ্ট্রের ভারজিন আইল্যান্ডের অফিসিয়াল ফ্লাওয়ার আর বাহামার পুষ্পপ্রতীকে এই ফুলের ব্যবহার হয়। এই ফুল গাছ এখন আমাদের দেশেও ব্যাপকভাবে রোপণ করা হচ্ছে। স্কুল, কলেজ, শখের বাগান আর রোড আইল্যান্ডে এ ফুলের উপস্থিতি বাড়িয়ে দেয় সৌন্দর্যের মাত্রা। এর জন্য খুব বেশি জায়গার প্রয়োজন হয় না। বড় উঠোন বা পাকা ঘরের ছাদেও বড় আকারের টবে লাগানো যায়। বাংলাদেশে চন্দ্রপ্রভা গ্রীষ্ম-বর্ষায় ফুটলেও কিছু কিছু গাছে বছরের অন্যান্য সময়েও দু’একটি ফুল ফুটতে দেখা যায়। এই ফুলগাছ দ্রুত বাড়ে। এই ফুলের মৌমাছি ও কীটপতঙ্গ আকর্ষণ করার ক্ষমতা প্রচুর।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: