সাম্প্রতিক পোস্ট

আসুন ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতন হই

সিংগাইর, মানিকগঞ্জ থেকে শাহিনুর রহমান

ডেঙ্গু প্রতিরোধের জন্য বাড়ির চারপাশ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা এবং জনমনে সচেতনতা তৈরি করার লক্ষ্যে বারসিক’র উদ্যোগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে দইয়ের হাড়ি, ভাঙ্গা পাতিল, টিনের কৌটা, ডাবের খোসা, ফুলের টব, গাড়ির টায়ার, টিনের কৌটা জমে থাকা পানি পরিষ্কার পানি অপসারণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে সম্প্রতি।

IMG_20190808_100222
সিংগাইর উপজেলার বলধারা ইউনিয়নের বাংগালা এবং কাস্তা গ্রামের ৭০টি বাড়ির সদস্য নিজ উদ্যোগে কার্যক্রমে অংশ্রগহণ করেন। এ সম্পর্কে কাস্তা কৃষক কৃষাণি সংগঠনের সদস্য মহাদেব মন্ডল বলেন, ‘ডেঙ্গু জ্বরে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে। বাড়ির চারপাশ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। তাছাড়া প্রাকৃতিকভাবেও এই মশার আক্রমণ থেকে রক্ষ পাওয়া যায়। তা হলো নারিকেলের খোসার সাথে ধুপের গুড়ো মিশেয়ে বাড়ির চারিপাশে ধূয়া তৈরি করা, ঘরের ভিতরে ধোয়া প্রবেশ করানো।’ তিনি আরো বলেন, ‘বর্ষা ঋতুতে মশাসহ নানা ধরনের ক্ষতিকারক পোকামাকরের উপদ্রপ বেশি। আমাদের অসেচেতনতার কারণে মানুষের দেহে নানা ধরনের রোগের সংক্রমণ হতে পারে এবং সাপের আক্রমণ হতে পারে।’ বাংগালা নবকৃষক কৃষাণি সংগঠনের সদস্য বাসন্তি রায় ডেঙ্গু জ্বর সর্ম্পকে বলেন, ‘ডেঙ্গু জ্বর হয়ে গেলে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা নিতেই হবে। তার সাথে সকলেরই দায়িত্বশীল হতে হবে। চিকিৎসার পাশাপশি সচেতনতাই পারে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে।’

IMG_20190808_111736
উল্লেখ্য, এডিস মশাবাহিত এক ধরনের ভাইরাস জ্বর ডেঙ্গু। এই জ্বর অন্যান্য ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়াজনিত জ্বর থেকে আলাদা। এই জ্বর কোনভাবেই ছোঁয়াছে রোগ নয়। নারী পুরুষ উভয়েরই এই রোগ হতে পারে। বাড়ির আশেপাশে দইয়ের হাড়ি, ভাঙা পাতিল, টিনের কৌটা, ডাবের খোসা, ফুলের টব ফ্রিজের পিছনে জমে থাকা পরিষ্কার পানি এডিস মশার আশ্রয়স্থল এবং এইসব পরিষ্কার পানিতে ডিম ফোটার মাধ্যমে এডিস মশার জন্ম হয়ে থাকে। আর এই মশা কাউকে কামড়ালে ৪ থেকে ৬ দিনের মধ্যে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হতে পারে।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: