সাম্প্রতিক পোস্ট

সমাজ বিনির্মাণে বরেন্দ্র অঞ্চলের কয়েকজন তরুণ

বরেন্দ্র অঞ্চল থেকে শহিদুল ইসলাম

তারুণ্যের দেশ বাংলাদেশ। বাংলাদেশের তরুণের সংখ্যা প্রায় ৫ কোটি ৩০ লাখ যা মোট জনসংখ্যার তিনভাগের একভাগ। সেই হিসাবে বাংলাদেশ তরুণদের দেশ। এই তরুণ-যুবদের মধ্যে রয়েছে অপার সম্ভাবনা, অসীম সাহস, কর্মস্পৃহা ও উদ্যোগ।

বলা হয়, সমৃদ্ধির উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ। এই উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় তারুণ্যই মূলশক্তি। উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় বদলে যাচ্ছে আমাদের সমাজ, রাষ্ট্র ও দেশ। চারিদিকে দালান কোটা আর উড়াল সেতু, কৃষকের হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রমে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা, সব মিলে একটা পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। কিন্তু মনের উন্নয়ন, মানসিকতার উন্নয়ন, পরিবেশের উন্নয়ন, বৈষম্য আর নারী শিশুর প্রতি সহিংসতার দিকগুলো তাল মিলিয়ে অবনতি হচ্ছে। নারী শিশু নির্যাতন কমেনি। বরং বেড়েই চলেছে। পরিবেশ আর প্রাণবৈচিত্র্যের প্রতি সহিংসতাও বেড়েছে। সংকটকালীন এই সময়ে রাজশাহী তথা বরেন্দ্র অঞ্চলের কিছু তরুণ-যুবকরা কাজ করছেন অবিরত। সমন্বিত উন্নয়নের সার্বিক দিকগুলোকে গুরুত্ব দিয়ে বরেন্দ্র অঞ্চলের তরুণ যুবকরা কাজ করছে সমন্বিত উদ্যোগে।

শহর প্রান্তিক মানুষের অধিকার, নগর প্রান্তিক শিশুর শিক্ষা অধিকার, নদী দূষণ বন্ধসহ শিক্ষা, স্বাস্থ্য, প্রাণবৈচিত্র্য, নিজস্ব সংস্কৃতি আর তরুণদের মানসিক ও মননশীল দিকগুলো নিয়ে ভূমিকা পালন করছেন রাজশাহীর তরুণরা। অভিজ্ঞজনের অভিজ্ঞতা শিখে নিজেদের দক্ষতাগুলো কাজে লাগিয়ে বরেন্দ্র অঞ্চলের উন্নয়নে অনন্য ভূমিকা পালন করছেন বেশ কয়েজকন তরুণ।

তরুণদের এই উদ্যোগ এবং মেধাকে উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক শ্রদ্ধা ও সম্মানের সাথে দেখে। দেশের উন্নয়নে মননশীল ও দক্ষ তারুণ্যে গড়তে বারসিক সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। তরুণরা নানা ক্ষেত্রে অবদান রাখছেন। আর এই বিশেষ অবদানকে বারসিক স্বীকৃতি ও সম্মান করে থাকে।

প্রতি বছরের ন্যায় বারসিকের সহায়ক ভূমিকায় এবং বরেন্দ্র অঞ্চল যুব সংগঠনগুলোর অংশগহণে বরেন্দ্র যুব সম্মেলন ও সম্মাননা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিতকতায় এবারো ৫ম বারের মতো ‘বরেন্দ্র যুব সম্মেলন ও সম্মাননা ২০২০’ সম্প্রতি রাজশাহী জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। যেখানে রাজশাহী তথা বরেন্দ্র অঞ্চলের ৪৬টি তরুণ যুব সংগঠনের প্রায় ৩০০ প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেছেন। রাজশাহী অঞ্চলের এই তরুণরাই বরেন্দ্র অঞ্চলের শিক্ষা, পরিবেশ, স্বাস্থ্য, নগর ও নাগরিক জীবনের সামাজিক সমস্যা নিরসনে জনসচেতনতা তৈরিতে বিভিন্ন ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করছে। স্ব স্ব ভূমিকায় অনন্য অবদান রাখায় বারসিক চলতি বছরে ৬টি ক্যাটাগড়িতে দুটি তরুণ-যুব সংগঠন এবং ৪জন জন তরুণকে বিশেষভাবে সম্মানিত করেছে।

বিগত বছরের সার্বিক কাজের বিবেচনায় তারা এবার বরেন্দ্র যুব সম্মেলনে শ্রেষ্ঠ যুব এবং শ্রেষ্ঠ সংগঠন হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এবার বরেন্দ্র যুব সম্মেলন ও সম্মাননা ২০২০ এর যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ যুব ২০২০ সম্মাননা অর্জন করেছেন ইয়ুথ এ্যাকশন ফর সোস্যাল চেঞ্জ (ইয়্যাস) এর সভাপতি শামীউল আলীম শাওন ও স্বপ্নপুরণ ফাইন্ডেশনের পরিচালক ডা. আমানুল্লাহ বিন আখতার আবিদ। শ্রেষ্ঠ যুব নারী ২০২০ হিসেবে সম্মাননা অর্জন করেছেন মোছা. জরিনা খাতুন, শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠক ২০২০ হিসেবে নির্বাচিত হন সূর্যকিরণ বাংলাদেশ সংগঠনের সভাপতি শাইখ তাসনীম জামাল, শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠন ২০২০ হিসেবে নির্বাচিত হয় রাজশাহী তানোর উপজেলার স্বপ্নচারী উন্নয়ন সংগঠন। শ্রেষ্ঠ প্রকল্প যুব প্রকল্প প্রস্তাবনা ২০২০ এ সেরা হয় বরেন্দ্র শিক্ষা সংস্কৃতি বৈচিত্র্য রক্ষা কেন্দ্র যুব সংগঠন। এছাড়াও এবারের অত্যন্ত কার্যকর প্রকল্প প্রস্তাবনা ‘স্বপ্নের বরেন্দ্র’ উপস্থাপন করে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নবজাগরণ ফাইন্ডেশন। শ্রেষ্ঠ সম্মাননা ও পুরুষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ড. বিধান চন্দ্র দাস, নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহাকারী অধ্যাপক অভিজিৎ রায়, আরএমপি’র ডিসি-ডিবি আবু আহম্মদ আল মামুনসহ প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ।


তরুণ্যের সমন্বিত উদ্যোগে এগিয়ে যাবে বরেন্দ্র অঞ্চল উন্নত হবে আমাদের বাংলাদেশ।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: