সাম্প্রতিক পোস্ট

নিজে সচেতন থাকি অন্যকে সচেতন করি

রাজশাহী থেকে সুলতানা খাতুন

বারসিক’র উদ্যোগে ‘করোনামুক্ত গ্রাম চাই, নিজে সচেতন থাকি অন্যকে সচেতন করি’ শিরোনামের একটি প্রচারভিযান সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হয়েছে রাজশাহীর দর্শনপাড়া ইউনিয়নের পাঁচটি গ্রামে।

ওই প্রচারাভিযানে দশর্নপাড়া ইউনিয়নের ৩টি গ্রামকে করোনামুক্ত গ্রাম ঘোষণা করা হয়েছে। গ্রামগুলো হলো: বিলনেপাল পাড়া, বিলধর্মপুর ও তেঁতুলিয়া ডাংগা। এরই ধারাবাহিকতার অংশ হিসেবে প্রসাদপাড়া ও নদীকান্দা গ্রাম দুইটিকেও করোনামুক্ত গ্রাম ঘোষণা করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এই প্রচারাভিযানে গ্রামের নারী, পুরুষ, তরুণ-তরুণী অংশগ্রহণ করেন এবং তাঁরা সবাই করোনাকালিন সময়ে নিজেরা সচেতন থেকে অন্যদের সচেতন করার চেষ্টা করেছেন।

এই প্রচারাভিযানে গ্রামের মানুষকে প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না যাওয়া, বাইরে গেলে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার অনুরোধ করা হয়। তাই তো দেখা গেছে, গ্রামের মানুষ মহামারী করোনাকালিন সময়ে বাড়িতে থাকার চেষ্টা করেছেন। আর কেউ জেলার কিংবা দেশের বাইরে থেকে আসলে গ্রামের গঠিত কমিটি এসব মানুষকে হোম কোয়ারান্টাইন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। অন্যদিকে প্রয়োজনে কেউ বাইরে গেলে তাঁরা মাস্ক ব্যবহার করেছে এবং সাবান দিয়ে হাত ধুয়েছে সময়মত।

এই প্রচারাভিযানের অংশ হিসেবে মসজিদে মাইকিংসহ বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক প্রচারনা চালানো হচ্ছে। গ্রামের মানুষের এই সচেতনতা এবং সবাইকে সচেনত করার প্রচেষ্টার কারণে তারা তাদের গ্রামগুলোকে করোনা থেকে মুক্ত রাখতে পেরেছেন বলে তারা জানান। গ্রামবাসীরা আশা করছেন, শুধু তাদের গ্রামই নয় ইউনিয়নের সকল গ্রামকে করোনামুক্ত করে গোটা দশর্নপাড়া ইউনিয়নকে করোনামুক্ত ইউনিয়ন হিসেবে ঘোষণা করতে পারবেন।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণরোধে এসকল গ্রামবাসীদের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়। তাদের এই উদ্যোগ দেখে অন্য এলাকার মানুষও সচেতন হবে, করোনা থেকে নিজেদের সুরক্ষা নিশ্চিত করবেন এই প্রত্যাশা করি।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: