সাম্প্রতিক পোস্ট

মানিকগঞ্জে কৃষক কমিটি ও ফোরামের সভা অনুষ্ঠিত

মানিকগঞ্জ থেকে মো. মাসুদুর রহমান

‘মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার কৃষি হবে দুর্বার’-কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে সম্প্রতি (২৪ মার্চ) বারসিক’র উদ্যোগে মানিকগঞ্জ শহর কার্যালয়ে জেলা কৃষি উন্নয়ন কমিটির সভাপতি করম আলী মাষ্টারের সভাপতিত্বে ৪ জন নারী কৃষক এবং ২১ জন পুরুষ কৃষক নেতৃবৃন্দদের অংশগ্রহণে দিনব্যাপি সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় চলমান মৌসুমের সরেজমিনের পরিস্থিতি নিয়ে কৃষক গবেষণা ফোরমের আহবায়ক মাসুদ বিশ^াস বলেন, ‘ফোরামের ৩টি পিভিএস কমিটি বারসিক’র সহযোগিতায় ৩টি উপজেলায় ৫৬টি বোরো ধানের জাত নিয়ে এলাকা উপযোগি ধান জাত বাছাই শীর্ষক প্রায়োগিক কৃষি গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।’ তিনি জানান, ২০২০-২০২১ সালের রবি মৌসুমে ধলাই কৃষক সংঘের মসলা বীজ বর্ধন কর্মসূচির আওতায় হরিরামপুর, সিংগাইর ও ঘিওর উপজেলার ৩টি স্থানে কৃষক নিয়ন্ত্রিত মসলা জাত গবেষণা কার্যক্রম সম্প্রসারিত হয়েছে। এছাড়া জেলা সংগঠনের গৃহীত বন্যাত্তোর পুর্নবাসনে বিনা চাষে কাদা জমিতে পিয়াজ, রসুন উৎপাদন কর্মসূচি সফল হওয়ায় জেলা বীজ প্রত্যয়ন অফিসার কর্তৃক মাঠ পরিদর্শনের মাধ্যমে প্রশংসা অর্জিত হয়েছে।

সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়নের কৃষক নেতা শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আমার নেতৃত্বে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের ৫০০ জন কৃষককে সরকারিভাবে রবি-১ জাতের পাট বীজ বিনামূল্যে দেয়া হয়েছে। পাট চাষে জমির উর্বরতা বৃদ্ধি পায়।’ তার কথায় উদ্ধুদ্ধ হয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ১১ জন কৃষক ১০২০ শতাংশ জমিতে পাট বীজ বপন এবং ৬ জন তিল, কাউনের মিশ্র চাষ ও ৪ জন ধৈঞ্চা চাষের পরিকল্পনা করেন।

শতবাড়ি কর্মসূচির আলোচনায় সিংগাইর উপজেলার বায়রা গ্রামের কৃষক রজ্জব আলী মাতুব্বর বলেন, ‘এই কর্মসূচি আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে। এই কর্মসূচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে কোম্পানি বীজ ও রাসানিক সারের উপর নির্ভরশীলতা কমে যাবে। পাশাপাশি নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনে আরো শতবাড়ি গড়ে উঠবে।’

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: