সাম্প্রতিক পোস্ট

প্রতিবেশ পুনরুদ্ধার, হোক সবার অঙ্গীকার

প্রতিবেশ পুনরুদ্ধার, হোক সবার অঙ্গীকার

ঢাকা থেকে মো. জাহাঙ্গীর আলম
বিশ^ পিরবেশ দিবস উপলক্ষে বারসিক’র উদ্যোগে গতকাল মোহাম্মাদপুর বোডঘাট এলাকায় যুব ও নারীদের নিয়ে প্রতিবেশ পুনরুদ্ধার, হোক সবার অঙ্গীকার, প্রকৃতি সংরক্ষণ করি, প্রজন্মকে সম্পৃক্ত করি”এই শ্লোগানকে ধারণ করে অংশগ্রহণমূলক নগর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মসূচি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।


স্থানীয় কমিউনিটি লিডার মো: ফারুক হোসেনের সভাপেিত্ব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপার যুগ্ম সম্পাদক এবং বুড়িগঙ্গা বাঁচাও আন্দোলনের কনভেনর মিহির বিশ^াস। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুলসুম বেগম, রোজিনা বেগম, হোসনে আরা বেগম রাফেজা, রোজিনা বেগম ও বারসিক সমন্বয় মো. জাহাঙ্গীর আলম।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মিহির বিশ^াস বলেন, ‘আমাদের এই শহরের পরিবেশ ভালো রাখার দায়িত্ব আমাদের নিতে হবে। এই বর্জ্যগুলো আলাদাভাবে সংগ্রহ করলে আমরা প্লাস্টিক পণ্য রিসাইকেল করে আবার ব্যবহার করতে পারব, লোহা, কাচ ও অন্যান্য কঠিন বর্জ্যকে পূনরায় ব্যবহার উপযোগি করলে আমাদের খরচ কমে যাবে। তাছাড়া পচনশীল পণ্য দিয়ে আমরা জৈব সার তৈরি করতে পারব এবং গ্যাস ও বিদ্যুৎ তৈরি করে পরিবেশ ভালো রাখতে পারব।’ তিনি আরও বলেন, ‘এটা করতে পারলে আমাদের নদী খাল বিল জলাধানগুলো সুন্দর থাকবে, আমরা ভালোভাবে বিশুদ্ধ বায়ুর নিঃশ^াস নিতে পারবো। এই কাজে নগরের সবাইকে যুক্ত করতে পারলে সবকিছু করা সম্ভব হবে। কারণ আমরা উন্নত রাষ্ট্রের দিকে যাচ্ছি। সুতারাং আমাদের সবকিছুতে উন্নত নাগরিকের মত দায়িত্ব পালন করতে হবে।


বারসিক সমন্বয়ক জাহ্গাীর আলম বলেন, ‘আপনারা সকলেই জানের বিগত ৫ জুন ২০২১ বিশ^ পরিবেশ পালন করা হয়েছে। বাংলাদেশে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি অনেক সংগঠন এই দিবসটি পালন করেছে। এই দিবসের প্রতিপাদ্য ‘প্রতিবেশ পুনরুদ্ধার, হোক সবার অঙ্গীকার’। অর্থাৎ মানুষসহ সকল প্রাণীর বাস্তু বা বাসস্থান পূণরুদ্ধার করতে হবে আমাদের বেঁচে থাকার জন্য। আমাদের প্রতিবেশ এখন হুমকির সন্মূক্ষীন। মানুষের অসচেতনতা এবং লোভের কারণে আমাদের পরিবেশ ও প্রবিবেশ আজ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এই পরিবেশ এবং প্রতিবেশ ব্যবস্থা ভালো না রাখলে এই সুন্দর পৃথিবী আমাদের জন্য বসবাসের অনুপোযী হয়ে যাবে। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, বারসিক মাঠ সহায়ক হোসনে আরা বেগম রাফেজা, কুলসুম বেগম, রোজিনা বেগম, ফারুক হোসেন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, অনুষ্ঠানের শুরুতে স্থানীয় যুবরা তিনটি ব্যাগ নিয়ে হাতে গ্লাভস পরে কমিউনিটির ভেতর থেকে তিন ধরনের বর্জ্য যথাক্রমে কঠিন বর্জ্য্য, প্লাষ্টিক বর্জ্য্য, এবং পচনশীল বর্জ্য সংগ্রহ করে তিনটি ব্যাগে সংগ্রহ কওে যথাস্থানে নিক্ষেপ করেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: