সাম্প্রতিক পোস্ট

ঢাকায় পরিবেশ রক্ষার শপথে চিত্রাঙ্কন ও প্রতীকী র‌্যালি অনুষ্ঠিত

ঢাকা থেকে ফেরদৌস আহমেদ উজ্জল
পরিবেশ রক্ষার শপথে ঢাকার হাজারীরাগের বালুর মাঠ ও বউবাজার বস্তির ইয়ুথ ও সিবিও সদস্যদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হলো চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও প্রতীকী র‌্যালি। বিশ^ পরিবেশ দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকা কলিং প্রকল্পের আওতায় গতকাল ৬ জুন হাজারীবাগের বালুর মাঠ বস্তি ও বউ বাজার বস্তির ইয়ুথদের নিয়ে এক চিত্রাঙ্গন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বারসিকের প্রজেক্ট ম্যানেজার ফেরদৌস আহমেদ, কমিউনিটি মবিলাইজার সাবিনা নাঈম ও কামরুন নাহার। এছাড়া বস্তিবাসী নেত্রী হোসনে আরা বেগম রাফেজা ও অন্যান্য সিবিও নেতৃবৃন্দ চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার উপস্থিত থেকে তরুণদের উৎসাহ প্রদান করেন।


‘সুন্দর পরিবেশ সুস্থ জীবন, আমার অধিকার আমার দায়িত্ব’ এই শ্লোগানকে উপজীব্য করে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় তরুণরা তাদের মনের মাধুরি মিশিয়ে বস্তি জীবন তাদের সংগ্রাম, তাদের স্বপ্নকে ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করে। এ সময় বস্তির কর্মজীবী তরুণরা (যারা কোনদিন ছবি আকেঁনি) তাদের অস্ফুট কষ্টের চিত্র তুলে ধরেন।
চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় ইয়ুথ লিডার রহিম বলেন, ‘এটি অত্যন্ত চমৎকার একটি উদ্যোগ। সত্যিকার অর্থে বস্তির ছেলে মেয়েরা এমন সুযোগ পায় না।’ আরেক অংশগ্রহণকারী বৈশাখী বলেন, ‘পুরো পৃথিবীর পরিবেশই আজ দূষিত। আমাদের নিজেদের সচেতন হতে হবে পরিবেশ রক্ষার জন্য।’চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের হাতে আর্ট পেপার, আর্ট বক্্র, আর্ট খাতা প্রদান করা হয়। প্রতিযোগিতা শেষে তাদের নাস্তা প্রদান করা হয়।


অন্যদিকে তিনদিন ব্যাপী পরিবেশ উদযাপনের শেষদিনে ৭ জুন বালুর মাঠ বস্তির ইয়ুথ ও সিবিও সদস্যদের অংশগ্রহণে এই প্রতীকী র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। সবাই মিলে হাত মিলাই, দূষণমুক্ত ঢাকা চাই এই শ্লোগান নিয়ে অনুষ্ঠিত র‌্যালিতে পরিবেশ সচেতনতামূলক নানা ধরনের শ্লোগান সম্বলিত ফেসটুন প্রদর্শন করা হয়। করোনা মহামারীকালে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এই র‌্যািল অনুষ্ঠিত হয়।
র‌্যালি শেষে ক্ষুদ্র পথসভা অনুষ্ঠিত হয় শাহজানান মার্কেটের সামনের রাস্তায়। এসময় বক্তব্য রাখেন বারসিকের সমন্বয়ক মো: জাহাঙ্গীর আলম, বস্তিবাসী অধিকার সুরক্ষা কমিটির সহসভাপতি হারুনুর রশিদ, ইয়ুথ লিডার বৈশাখী, শিক্ষক সোহেল রানা, হোসনে আরা বেগম রাফেজা প্রমূখ।
বক্তারা বলেন, ‘আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে পরিবেশ সুরক্ষায় কাজ করতে হবে। বস্তিবাসীদের সচেতনতা জরুরি।’ আগামীতে পরিবেশ সচেতনতায় সকলকে আরও সক্রিয় হবার আহবান জানিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করা হয়। র‌্যালীতে প্রায় অর্ধশতাধিক মানুষ শারিরিক দূরত্ব রক্ষা করে অংশগ্রহণ করেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: