সাম্প্রতিক পোস্ট

পৃথিবীটাকে বাঁচাতে হবে আমাদের প্রয়োজনেই

মানিকগঞ্জ থেকে রাশেদা আক্তার
‘একটাই পৃথিবী, প্রকৃতির ঐকতানে টেকসই জীবন’- এ প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে গতকাল জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর, মানিকগঞ্জ কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সানোয়ারুল হক এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ।


প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ বলেন, ‘আজ বিশ^ পরিবেশ দিবস। ১৯৭২ সালে যখন প্রথম পরিবেশ দিবস উদযাপন করা হয় তখনকার প্রতিপাদ্য আর আজকের প্রতিপাদ্য বিষয় একই। এর ফলে এটাই বুঝায় আজ ৫০ বছর পরও এর গুরুত্ব এতটুকু কমেনি। আমরা নিজেরা পরিবেশ দূষণ করি আবার নিজেরোই অনেক কথা বলি। পরিবেশ রক্ষা করা পরিবার থেকেই শিখতে হবে। প্রকৃতি আর মানুষের মধ্যে একটা সম্পর্ক রয়েছে। এই সম্পর্কের মধ্যে ঐকতান থাকতে হবে। পৃথিবী একটাই আর এই পৃথিবীটাকে বাঁচাতে হবে আমাদের প্রয়োজনেই।’ তিনি বলেন, ‘বারসিক অনেক ধরনের কাজ করে থাকে। বারসিক প্রশাসনের সব প্রোগ্রামেই থাকে। পরিবেশ নিয়ে বারসিক অনেক ধরণের কাজ করে আমরা জেনেছি। আপনাদের এই কাজের সর্বোচ্চ পুরস্কার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনাদের দিয়েছেন। আপনার পরিবেশ পদক ২০২১ পেয়েছেন। বারসিককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আর বারসিক যেহেতু মানিকগঞ্জে কাজ করে সেহেতু শুধু বারসিক নয় আমরাও আজ গর্বিত।’


দিবসের প্রেক্ষাপট তুলে ধরে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পরিবেশ অধিদপ্তর, মানিকগঞ্জ এর উপ-পরিচালক নুরুল আলম। তিনি বলেন, ‘আজ বিশ^ পরিবেশ দিবস। পরিবেশ দিবস প্রথম পালিত হয় ১৯৭২ সালে। বিভিন্ন ভাবে পরিবেশ দূষণ হয়ে থাকে। বায়ু দূষণ, পানি দূষণ, শব্দ দূষণ, মাটি দূষণ প্রতিনিয়তই হচ্ছে। এই পরিবেশ দূষণ রোধ কোনো প্রতিষ্ঠানের একার পক্ষে করা সম্ভব নয়। সকলের মিলিত প্রচেষ্টায় সম্ভব।”


৭১ টিভির প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম মিহির বলেন, ‘আজ বিশ^ পরিবেশ দিবস। বারসিক পরিবেশ রক্ষায় অনেক কাজ করেছে এবং এখনো করে যাচ্ছে। বারসিক নদী দূষণ রোধে কাজ করে, নদী রক্ষায় কাজ করে, পাখি রক্ষায় কাজ করে। বারসিক গ্রামের কৃষক, যুব, নারী ও শিশুদের ঐক্যবদ্ধ করে কাজ করে। আজ বারসিক পরিবেশ পদক ২০২১ পেয়েছে। এটি আসলেই বারসিক পাওয়ার যোগ্য। বারসিককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।”


সিভিল সার্জন মোয়াজ্জেম হোসেন খান বলেন, “আজ বিশ^ পরিবেশ দিবস। নানাভাবে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে। পরিবেশ দূষণের জন্য শুধু বিভিন্ন শিল্প-কারখানাই দায়ী নয়, আমরাও দায়ী। আজকাল বেশি ফলনের আশায় জমিতে রাসায়নিক সার ব্যবহার করা হচ্ছে। এর ফলে মাটির উর্বরতা শক্তি নষ্ট হচ্ছে। সেই সাথে জমিতে ব্যবহৃত সার বৃষ্টির পানিতে মিশে নদীর পানি দূষিত করছে। শুধুমাত্র দূষণজনিত সংক্রামকের কারণে বছরে সারা বিশে^ ৬৭% মানুষ মৃত্যুবরণ করে থাকে।’


অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: হাফিজুর রহমান বলেন, ‘আজ বিশ্ব পরিবেশ দিবস। পরিবেশ অনেক ভাবেই দূষিত হচ্ছে। এই দূষণ রোধে সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে। পরিবেশ নিয়ে অনেক সংগঠন কাজ করে। বেশি করে গাছ লাগাতে হবে।
উল্লেখ্য, এনজিও প্রতিনিধি হিসেবে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বারসিক এর প্রোগ্রাম অফিসার রাশেদা আক্তার। অনুষ্ঠানে সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ ও শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা শেষে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বৃক্ষ বিতরণ করা হয়।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: