সাম্প্রতিক পোস্ট

পানিবন্দী হয়ে থাকতে চায় না বস্তিবাসী

সাতক্ষীরা থেকে সোনিয়া খাতুন

বৃষ্টি হলেই আতংকে থাকে বস্তিবাসী। কারণ অল্প বৃষ্টিতে সৃষ্টি হয় তীব্র জলাবদ্ধতা। আর এই জলাবদ্ধতার কারণে দুর্বিষহ হয়ে ওঠে বস্তির জনজীবন।

বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা সমস্যায় ভুগতে হয় সাতক্ষীরার বিভিন্ন এলাকায় বসবাসকারী মানুষগুলোকে। তেমনি একটি এলাকা সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুর আতির বাগান বস্তি। একটু বৃষ্টি হলেই পানিবন্দি হয়ে পড়ে এই বস্তি। এত ভোগান্তির শেষ থাকে না।

প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে ভয়াবহ জলাবদ্ধতার শিকার হয় এই বস্তির মানুষ। ৪ থেকে ৫ মাস পানিবন্দি হয়ে থাকায় বসবাসের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে বস্তিটি। মানুষের পাশাপাশি হাঁস-মুরগি, গবাদি পশু সবকিছুই যেন একাকার হয়ে যায়। জলাবদ্ধতার কারণে নানারকম পানিবাহিত রোগ ছড়িয়ে পড়ে। গবাদি পশু মারা যায়। পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় ভেসে যায় ছোট ছোট সবজির ক্ষেত।

দীর্ঘদিন ধরে পানি জমে থাকার কারণে পানি নষ্ট হয়ে দুর্গন্ধ হয়ে যায়। মশার উপদ্রব বাড়ে। বাড়তেই থাকে রোগ বালাই। নিচু জমিতে যেখানে-সেখানে পানি জমে থাকার কারণে চাষযোগ্য জমি নষ্ট হয়ে যায়। ফলে চাষযোগ্য জমির পরিমাণও কমতে থাকে।

জলাবদ্ধতার মূল কারণ পানি নিষ্কাশনের জন্য কোনো ড্রেন নেই। ড্রেন থাকলেও সেটি উঁচু রাস্তার পাশ দিয়ে। রাস্তা উঁচু হওয়ায় নিচু এলাকার পানি নিষ্কাশনের সুযোগ থাকে না। তাই নিচু এলাকার বস্তিবাসীকে ভুগতে হয় দীর্ঘদিন। আসন্ন বর্ষা মৌসুমের সম্ভাব্য জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য তাই অবিলম্বে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাই।

লেখক: সদস্য, শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিম।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: