সাম্প্রতিক পোস্ট

প্রকৃতিকে সুস্থ রাখি আমরা সুস্থ থাকবো

সিংগাইর, মানিকগঞ্জ থেকে অনন্যা আক্তার

সম্প্রতি বারসিক’র উদ্যোগে সিংগাইরে ‘কৃষি প্রতিবেশ বিজ্ঞান ভিত্তিক কৃষি চর্চা’ একটি অংশগ্রহণমূলক তৃণমূল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। এলাKvর জনগোষ্ঠির মাঝে রাসায়নিক কৃষির ভয়াবহতা ও বিরূপ প্রতিক্রিয়া উপস্থান এবং কৃষি প্রতিবেশ বিজ্ঞান বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করার জন্য এই বৈঠক আয়োজন করা হয়। উক্ত বৈঠকে গ্রামের ১৯ জন নারী ও পুরুষ অংশগ্রহণ করেন।  বৈঠক পরিচালনায় সহায়কের  ভূমিকা  পালন  করেন  বারসিক’র প্রোগ্রাম অফিসার মাসুদুর রহমান । এছাড়া উক্ত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন প্রকল্প কর্মী  সঞ্জিতা  কির্তুনীয়া ও অনন্যা আক্তার প্রমুখ।

বৈঠকে মাসুদুর রহমান কৃষকদের বারসিক সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা দেন। তিনি প্রতিবেশ, প্রাণী জগতের সাথে পরিবেশের আন্তঃসম্পর্ক, আন্তঃসম্পর্ক তৈরি হওয়ার পর পরস্পরের মধ্যে যে আন্তঃনির্ভরশীলতা তৈরি হয় তা খাদ্য শৃঙ্খলার মাধ্যমে কৃষকদের বুঝিয়ে দেন।

অভিজ্ঞ কৃষক অর্জুন বিশ্বাস বলেন, ‘বর্তমানে ও সার, বিষ ছাড়া ফসল উৎপাদন করা সম্ভব, কিন্তু আমরা নিজেদের উপর নির্ভর না হয়ে বাজারের প্রতি নির্ভশীল হয়ে পড়ছি। আমরা নিজেরা নিজেদের ক্ষতি করে ফেলছি। আমরা রাসায়নিকনির্ভর হয়ে পড়েছি, সার, বিষ ব্যবহার করতে করতে মাটি নষ্ট করে ফেলেছি। ক্ষতিকারক পোকা মারার জন্য যে বিষ ব্যবহার করছি এতে করে বন্ধু পোকাও মারা যাচ্ছে।’ কৃষক নারায়ণ সরকার বলেন, ‘এখন কোন বীজ বপন করলে অর্ধেক খায় পাখি অর্ধেক খায় পিঁপড়া।’

মাসুদুর রহমান বলেন, ‘আমরা নিজেদের খাদ্য বৃদ্ধি করার জন্য পশু, পাখির খাবার নষ্ট করে ফেলছি। রাসায়নিক সার শুধু মাটির না; মানুষ, পশু, পাখির অনেক ক্ষতি করছে, কিডনি রোগ, ক্যানসার, হার্টের রোগ, ছেলে মেয়ে প্রতিবন্ধী হয়।’ তিনি কৃষকদের মাঝে জৈব সারের উপকারী দিক তুলে ধরে বলেন, ‘প্রথমে বড় পরিসরে নয়, বাড়ির আঙিনায় নিজেদের খাবার আগে নিরাপদভাবে উৎপাদন করেন, দেখবেন আস্তে আস্তে সকল ফসলই নিরাপদভাবে তৈরি করতে পারবেন। ‘প্রকৃতিকে সুস্থ রেখে, আমরা সুস্থ থাকতে চাই।’

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: