সাম্প্রতিক পোস্ট

একজন সুরেন্দ্র মোহন রায় সমাজ উন্নয়নের বাতিঘর

সিংগাইর মানিকগঞ্জ থেকে শাহীনুর রহমান ও গাজী শাহাদাত হোসেন বাদল
বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী সুরেন্দ্র মোহন রায় স্মরণে দুই শতাধিক পিছিয়ে পড়া প্রান্তিক শিক্ষার্র্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে সম্প্রতি।


মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার পুটাইল ইউনিয়নের কৈতরা রাজবংশী পাড়া ও বেতিলা মিতরা ইউনিয়নের বড় বড়িয়াল মণিদাস পাড়ায় সুরেন্দ্র মোহন রায়ের কনিষ্ট পুত্র বিমল রায় ও তার পরিবারবর্গ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেন। কৈতরা মন্দির ভিত্তিক উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা কেন্দ্রের শিক্ষিকা ঝর্না রানী মন্ডল ও সিংগাইর সরকারি ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী স্মৃতি মনিদাসের সভাপতিত্বে যথাক্রমে আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন বিশিষ্ট সমাজ সংগঠক ও সামাজিক সাংষ্কৃতিক ব্যক্তিত্ব আ্যডভোকেট দিপক কুমার ঘোষ, একাত্তর ঘাতক দালাল নিমূল কমিটির মানিকগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আ্যডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, মানিকগঞ্জ আ্যাসেম্বেলি অফ গড ক্রাস পাষ্টর এডওয়ার্ড জামান, বারসিক কর্মকর্তা গাজী শাহাদাত হোসেন বাদল, হিসাব ও ব্যাবস্থাপনা কর্মকর্তা নিতাই চন্দ্র দাস,ও স্যামুয়েল হাসদা।

আলোচনায় বক্তারা বলেন, ‘শিক্ষক সুরেন্দ্র মোহন রায় ছিলেন প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর শিক্ষা ও সাংষ্কৃতিক মান উন্নয়নের জন্য আদর্শ শিক্ষক। শিক্ষক সুরেন্দ্র মোহন রায় নিজ গ্রামের শিক্ষার মান উন্নয়নে বহুমূখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন। তিনি জীবদ্দশায় পিছিয়ে পড়া মানুষের মাঝে শিক্ষার আলো প্রসারিত করতে নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন। তার হাত ধরেই অনেকেই আজ দেশের সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন, নিজেদের প্রতিষ্ঠিত কররেছেন। একজন সুরেন্দ্র মোহন রায় সমাজ উন্নয়নের বাতিঘর।’ বক্তারা আরো বলেন, ‘শিক্ষক সুরেন্দ্র মোহন রায় ভাবতেন প্রকৃত শিক্ষাই পশ্চাতপদ দৃষ্টি ভঙ্গি থেকে নারী জাতিকে মুক্তি দিতে পারে।শিক্ষক সুরেন্দ্র মোহন রায় পশ্চাৎপদ দৃষ্টিভঙ্গি থেকে নারীদের বের করে আনার চেষ্টা করেছেন।’

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: