সাম্প্রতিক পোস্ট

প্রকৃতির সাথে সন্ধি করেই আমাদের বেঁচে থাকতে হবে

সিংগাইর মানিকগঞ্জ থেকে শাহিনুর রহমান
‘একটাই পৃথিবী: প্রকৃতির ঐক্যতানে টেকসই জীবন’-এ প্রতিপাদ্যের আলোকে সিংগাইর উপজেলার ব্রী কালিয়াকৈর যুব কল্যাণ উন্নয়ন সংঘের উদ্যোগে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে গতকাল ইভটিজিং, মাদক ,বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে এক আলোচনা সভা ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি মোঃ শামিম আহমেদ এর সভাপতিত্বে জিয়াউর রহমানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিংগাইর উপজেলা পরিষদের সম্মানিত চেয়ারম্যন, আলহাজ্ব মুশফিকুর রহমান খান হান্নান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিংগাইর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যন শারমিন আক্তার,বলধারা ইউনিয়ন পরিষদের ৮নং ওয়ার্ডের ইউ.পি সদস্য মোঃ হায়দার আলী তারা ,বড় কালিয়াকৈর পল্লী উন্নয়ন যুবক সংঘের সভাপতি মোঃ ইংরেজ আলী মাতবর, বীরমুক্তিযোদ্ধা ওসমান গনি আসমান, বড় কালিয়াকৈর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ডাঃ এম এ জলিল ও বারসিক মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল চন্দ্র রায়। এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন বারসিক কর্মকর্তা শারমিন আক্তার, যুব কল্যাণ উন্নয়ন সংঘের সকল সদস্য বৃন্দ এবং বড় কালিয়াকৈর, বাংগালা, কাস্তা, নবগ্রাম থেকে আগত যুব ,কৃষক ,জেলে, ব্যবসায়ীসহ নানা পেশার প্রায় ৫ শতাধিক মানুষ।


প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান মুশফিকুর রহমান হান্নান বলেন, ‘প্রকৃতির সঙ্গে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত প্রতিটি মানুষ ও প্রাণী কূলের জীবন। প্রকৃতিকে ভালোবাসার অর্থ নিজেকেই ভালোবাসা। প্রকৃতি না থাকলে মনুষ্য-জীবন, পশুপাখির জীবন সংকটে পড়বে। প্রকৃতির সবকিছু আহরণ করেই পৃথিবীর জীবকূলের জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত চলতে হয়। তাই আমাদের উচিত প্রকৃতির প্রতি যত্নবান হওয়া, তাকে বাঁচিয়ে রাখা, প্রকৃতির সাথে সন্ধি করেই আমাদের বেঁচে থাকতে হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘যে কোনো জাতির জাতির সেরা সম্পদ ছাত্র ও যুবসমাজ। একটি জাতির সমৃদ্ধি সম্মান আর মর্যাদার সাথে যুব সমাজ সম্পৃক্ত। জাতির গৌরব বৃদ্ধির সুমহান দায়িত্ব এক দিন তাদের হাতেই বর্তাবে। তাদের সফলতার ওপরই নির্ভর করবে জাতির ভবিষ্যৎ। কাজেই এই যুব সমাজকে হতে হবে মাদক মুক্ত।’


ভাইস চেয়াম্যান শারমিন আক্তার বলেন, ‘বাল্য বিয়ে কোনো সময়ই কোনো সমাজে গ্রহণযোগ্য নয়। এতে কোমল বয়সে বিবাহিত শিশুদের কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই যেন একটা অগ্নিকান্ডে ঝাঁপ দেয়ার শামিল। অন্যদিকে সমাজে বহু আগে থেকেই মাদক সুন্দর পরিবার গঠনে একটা সাংঘার্ষিক বস্তু হিসেবে কাজ করছে। মাদক সেবনের ফলে অনেক পরিবার ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে, হয়ে যাচ্ছে নিঃস্ব। বাল্য বিয়ে ও মাদক উভয়ই সমাজকে কলুষিত করে। আর তাই এই দুটোকে প্রতিরোধ করতে শুধুমাত্র প্রশাসনের ওপর নির্ভর করলেই হবে না। পরিবারের ভেতর থেকেও নিতে দায়িত্ব।’


বারসিক আঞ্চলিক সমন্বয়কারি বিমল রায় বলেন, ‘প্রকৃতি ও পরিবেশ আজ সঙ্কটের মুখোমুখি। এ সঙ্কট বিশেষ কোনো গোষ্ঠী, দেশ বা জাতির নয় সমগ্র মানব জাতির। প্রাকৃতিক ও মানব সৃষ্ট বিভিন্ন কর্মকান্ডের ফলে বিপন্ন পরিবেশ। মানুষের বসবাস উপযোগী বিশ্ব গড়ার লক্ষ্যে চাই প্রকৃতিকে সজীব রাখতে হবে এবং বৃক্ষ রোপণ করতে হবে। নারী নির্যাতন,বাল্য বিবাহ,মাদক থেকে আমাদের যুব সমাজ রক্ষা করতে হবে।’


সভাপতির বক্তব্যে শামীম আহমেদ বলেন, ‘আমরা সামজিকভাবে বৃক্ষ রোপণের মাধ্যমে আমাদের গ্রামগুলোকে সবুজায়িত করতে চাই। আমরা মাদক ও বাল্য বিবাহমুক্ত সমাজ গড়েত গ্রামের জনসাধারণকে পাশে চাই। আপনাদের সহযোগিতায় আমরা একটি মাদক ও বাল্য বিবাহ মুক্ত সমাজ উপহার দিতে পারবো।’
উল্লেখ্য বিশ^ পরিবেশ দিবস উপলক্ষে আম, কাঁঠাল, জাম, লিচু, পেয়ারা, নারিকেল, ডইয়া, জলপাই, চাম্বুল, বকুল, মেহগনি, লেবু, কৃষ্ণচূড়া, গাব, জলপাই, নিম, পিছফল, নুনাফলসহ ২৫ জাতের বৃক্ষ রাস্তা, বাজার ও স্কুল প্রাঙ্গনে রোপণ ও মানুষের মধ্যে বিতরণ করা হয়।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: