সাম্প্রতিক পোস্ট

বাজেটে জনগণের অংশীদারিত্ব থাকতে হবে

সিংগাইর, মানিকগঞ্জ থেকে শাহীনুর রহমান

বাংলদেশে প্রতিবছর আয় ব্যায়ের হিসাব প্রস্তুতের জন্য জাতীয় বাজেট ঘোষনা করা হয়। তবে বাংলাদেশে জাতীয় আয়ের একটি সর্ববৃহৎ অংশ হচ্ছে কৃষি। কিন্তু প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে দেশের ৭০ থেকে ৮০ ভাগ মানুষ জড়িত হলেও তারা প্রাক বজেটের আলোচনা এবং জাতীয় বাজেট এবং স্থানীয় বাজেটে কোন অংশীদারীত্ব ও মতামত থাকে না। সম্প্রতি ‘কৃষিতে সরকারি বরাদ্দ বাড়াও ভূমিহীন প্রান্তিক কৃষকের পাশে দাঁড়াও’ শিরোনামে কাস্তা বারোওযারী কৃষক কৃষাণী সংগঠনের উদ্যোগে বলাধারা ইউনিয়নের কাস্তা গ্রামের ভানু রায়ের বাড়িতে স্থানীয় সরকারের বাজেট পর্যালোচনা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

33965318_10209001053223916_7251595110092111872_n
কৃষক সংগঠনের সভাপতি ভানু রায়ের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মানিকঞ্জ জেলা কৃষি উন্নযন সংগঠনের সভাপতি মো. করম আলী মাষ্টার, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা রতন মন্ডল, বারসিক আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল রায়। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন বারসিক কর্মকর্তা শাহীনুর রহমান, গাজী শাহাদাৎ হোসেন বাদল এবং শারমিন আক্তার প্রমুখ। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মর্জিনা বেগম, সদস্য কার্তিক সরকার, আমেনা বেগম এবং আব্দুল খালেক

সম্প্রতি বলধারা ইউনিয়নে ঘোষিত এক কোটি সত্তর লক্ষ টাকা বাজেটের উপর প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের জন্য বরদ্দকৃত বাজেটের পরিমাণ ও বাস্তবায়ন কৌশল উন্নয়নে জনগোষ্ঠীর ভূমিকা নিয়ে অংশগ্রহণকারীগণ পর্যালোচনা করেন। তারা জানান, বাজেটের আকার বড় হলেও বাজেটে প্রান্তিক, ভূমিহীন কৃষকদের জন্য কৃষি ক্ষেত্রে বাজেট এর পরিমাণ খুব কম হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, ত্রাণ এবং প্রাকৃতিক সম্পদ রক্ষায় কোন বাজেট বরাদ্দ করা নেই। এখানে বজেট বরাদ্দ করতে হবে।

33813947_10209001053183915_8030045326763098112_n
সংগঠনের সভাপতি ভানু রায় বলেন, “বাজেট এ নারীদের উন্নয়নের জন্য আলাদা কোনা বরাদ্দ নেই। নারীদের উন্নয়নে নারীদের জন্য বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ রাখতে হবে।” মানিকগঞ্জ জেলা কৃষি উন্নয়ন কমিটির সভাপতি করম আলী মাষ্টার বলেন, “বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। উন্নতির অনেকাংশেই নির্ভর করে কৃষি খাতের উপর। তাই এ দেশের বাজেটে প্রাধান্য দিতে হবে কৃষি খাতকে। দেশের মানুষের দারিদ্র মোচন, কর্মসংস্থান বৃদ্ধি, খাদ্যনিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং দ্রুত প্রবৃদ্ধি অর্জনের জর্ন একটি সম্প্রসারণমূলক বাজেট সব সময়ই আমাদের কাম্য।”

33992944_10209001053383920_7700149709096091648_n
বারসিক আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল রায় বলেন, “কৃষি তথ্য যোগাযোগ কেন্দ্র স্থাপন, কৃষির লাভজনক মুল্য প্রাপ্তির জন্য বাজারজাতকরণ কর্মসূচি গ্রহন করতে হবে। তাছাড়া কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সরকারি বাজেটে প্রতিফলিত হওয়া জরুরি যেমন দুর্যোগে ফসলহানির পর কৃষক যাতে প্রণোদনা পায়।” উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা রতন মন্ডল বলেন, “বাজেট হতে হবে গণমূখী যেখানে জনগোষ্ঠীর অংশীদারিত্ব ও মতামত থাকতে হবে। বাজেটে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর উন্নয়নের জন্য বরাদ্দ আরো বাড়ানো যেতে পারে।”

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: