সাম্প্রতিক পোস্ট

প্রবীণ ব্যক্তি পরিমলের জীবনসংগ্রাম

কলমাকান্দা থেকে আলপনা নাফাক

কলমাকান্দা উপজেলার বগাডুবি গ্রামে বাস করেন পরিমল হাজং। বয়স আনুমানিক ৯০ বছর। তাঁর একমাত্র মেয়ে। সেই মেয়েটিও আবার সংসার করে অন্যত্র চলে গেছেন। এখন পরিমল হাজং ও তার স্ত্রী দুজন নিয়ে তাদের পরিবার। নিজস্ব জমি বলতে আছে ২০ শতক বাড়িভিটাই রয়েছে।

68938019_727523564355679_7651095203981295616_n

দিন মজুর হিসেবেই তাঁর প্রায় পুরো জীবন অতিবাহিত করছেন। পাশাপাশি বাঁশ বেতের কাজ করে তিনি কোনমতে সংসার পরিচালনা করছেন। যেমন, কুলা, চালুন, ঝুঙ্গা, জাক্খা, পাইলা, ডালা ইত্যাদি তৈরি করেন সারাবছর। নিজের বাঁশঝাড় না থাকায় বাজার থেকে বাঁশ কিনে তিনি তাঁকে এসব উপকরণ তৈরি করতে হয়। প্রতি বাঁশ তিনি ক্রয় করেন ৭০ টাকায়। একটি বাঁশ থেকে তিনি ৩-৪টি কুলা তৈরি করতে পারেন। আর প্রতি কুলা বিক্রি করেন ১৭০ টাকায়। এভাবে তিনি প্রতিদিন নানা কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকেন।

পরিমল হাজং এর বয়স যদিওবা ৯০ বছর তারপরও তিনি এসব জিনিস খুবই নিখুতভাবে তৈরি করতে পারেন বলে জানান। বয়সের ভারে এখন আর ভারী কাজগুলো করতে পারেন না। তাই এইসব কাজ করে তাঁর সংসার চলে। এসব জিনিসপত্র তৈরি করা খুবই কষ্টসাধ্য। একটি কুলা বা চালুন তৈরি করতে প্রায় দুইদিন সময় লাগে। এতে করে গড় মজুরির হিসেব করলে তেমন লাভ হয় না।

69590649_1524162401109749_6448645596805857280_n

তাঁর ভাষায়, ‘পুশাইনা তবু বানাইতে হয় নাহলে খাব কি? বাঁশ কিনার মত তার সাধ্য নেই। কোন রকম ধার দেনা করে বাঁশ কিনে জিনিস তৈরি করে আবার ধারের টাকা দিয়ে দিতে হয়। ফলে কোন আয়-ব্যয় এর হিসাব নেই আমার।’ তাঁর স্ত্রীও সাধ্যমত কৃষি শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। কিন্তু বয়সের ভারে তিনিও আর তেমন কাজ করতে পারেন না। সব মিলিয়ে তাঁদের দুজনের সংসার চলছে অনেক টানাপুড়েনের এর মধ্য দিয়ে। তবে যদি বাঁশ কেনার মত টাকা থাকতো তবে সে প্রতিদিন কাজ করে তার সংসার চালাতে পারতো বলে জানান।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: