সাম্প্রতিক পোস্ট

সকলের সম্মিলিত উদ্যোগেই পলিথিন ব্যাগ বর্জন সম্ভব

নেত্রকোনা থেকে রুখসানা রুমী

প্রকৃতি সুরক্ষিত হলে প্রকৃতিই আমাদের রক্ষা করবে। ৬০ এর দশকের পরে সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগ ও উন্নয়নের নামে প্রাণবৈচিত্র্য ও পরিবেশ বিধ্বংসী পদক্ষেপের ফলে স্থানীয় ধান, সবজি, মাছ, প্রাণীসহ সকল প্রাণবৈচিত্র্য আজ বিপন্ন। তাই স্থায়িত্বশীল জীবনযাপন, প্রাকৃতিক সম্পদের উপর অধিকার নিশ্চিত করা, প্রাণবৈচিত্র্য রক্ষায় প্লাস্টিক পণ্যের বিকল্প পণ্য তৈরি ও প্লাস্টিক পণ্যের বাজার নির্ভরশীলতা কমাতে কুটির শিল্পের বিস্তার করতে এলাকায় কুটির শিল্পের কাজ বৃদ্ধিতে প্রচারণা, যুব সমাজকে মাদকমুক্ত রাখা, গ্রামের ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়ায় উৎসাহিত করা ও এলাকার ছোট ছোট উন্নয়নমূলক উদ্যোগ গ্রহণের জন্য নেত্রকোনা সদর উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের সাজিউড়া গ্রামের কিছু সংখ্যক উদ্যোগী কিশোরীরা ‘সবুজের সন্ধান কিশোরী সংগঠন’র নামে একটি জনসংগঠন গড়ে তোলে।

20190904_123708-W600

সংগঠনটি প্রায় এক বছর যাবত দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা উপকরণ (খাতা, কলম) সহায়তা, স্কুলের শিক্ষার্থীদের ঔষধি গাছের সাথে পরিচিতি করা, মাদকের কুফল ও বাল্যবিবাহে কুফল সম্পর্কে যুব ও কিশোরীদের সচেতনতা বৃদ্ধিতে বিভিন্ন ধরণের সচেতনতামূলক প্রচারণা কার্যক্রম করে আসছে। সংগঠনটি কাজের ধারাবহিকতায় ‘সাজিউড়া মফিলা ফয়েজ উচ্চ বিদ্যালয়’ এ পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষরোপণ, এলাকায় প্রাণবৈচিত্র্য বৃদ্ধি এবং গ্রামের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ সুন্দর রাখতে বৈচিত্র্যময় বৃক্ষের চারা রোপণের উদ্যোগ গ্রহণ করে। সংগঠনটি বিগত এক বছর যাবত সাজিউড়া মফিলা উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষাথীদের সাথে লোকায়েত জ্ঞান, কৃষি প্রাণবৈচিত্র্য সংরক্ষণ, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় ২০১৮ সালে এলাকার দুই কিলোমিটার রাস্তায় তাল বীজ রোপণ করেছে। চলতি বছর সংগঠনটি এলাকার ও স্কুলের পরিবেশ রক্ষায় শিক্ষার্থীদের সচেতনতা বৃদ্ধি, ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধ ও পলিথিন ব্যাগ বর্জনে শিক্ষাথীদের নিয়ে সচেতনতামূলক প্রচারণার আয়োজন করেছে।

20190904_122922-W600

বারসিক’র সহয়তায় স্কুলের সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘আসুন সবাই মিলে পলিথিন ব্যাগ বর্জন করি’ ইস্যুতে সচেতনতামূলক আলোচনা সভা এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে লিফলেট বিতরণ ও প্রচারাভিযান অনুষ্ঠান করে। যুব সংগঠনের সদস্যরা সকল শিক্ষার্থীদের নিয়ে নিজ বিদ্যালয়ের সকল কক্ষ ও স্কুল প্রাঙ্গন পরিষ্কার পরিছন্ন অভিযানের মাধ্যমে পলিথিনমুক্ত করেন। সকল শিক্ষার্থীরা একযোগে আওয়াজ তোলে ‘পলিথিন ব্যাগ বর্জন করি, সুন্দন জীবন গড়ি’।

এই প্রসঙ্গে স্কুলের প্রধান শিক্ষক বলেন, ‘আসুন আজ থেকে আমরা সবাই মিলে পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার বন্ধ করি। পলিথিন ব্যাগে কারণে পরিবেশের ও প্রাণবৈচিত্র্যের অনেক ক্ষতি হচ্ছে। পলিথিন আমাদের স্বাস্থ্যে জন্য ভয়ানক ক্ষতিকর। পলিথিন পচে না এবং মাটিতেও মিশেনা।’ তিনি পলিথিন ব্যাগ আমদানিকারী ও বিক্রেতাদের আইনত শাস্তি প্রদান ও আর্থিক জরিমানার বিষয়েও শিক্ষার্থীদের অবহিত করেন।

20190904_122006-W600

শিক্ষক রঞ্জন কুমার বলেন,‘আমরা পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার বন্ধ করে পাটজাত পণ্য ব্যবহার করা অভ্যাস করলে অনেক রোগ থেকে মুক্ত থাকতে পারব। প্রতিবছর বাংলাদেশের তিন লক্ষ টন পলিথিন জলাভূমিতে ও উন্মুক্ত স্থানে ফেলে দেয়া হয়। ফলে অগণিত প্রাণ ব্যাপকভাবে ক্ষয়ক্ষতির সম্মূখিন হচ্ছে। তাই আমাদেরকে ধীরে ধীরে পলিথিন ব্যাগ ও প্লাষ্টিক ব্যবহার বন্ধ করতে হবে।’

শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি তন্ময় অভিনয়ের মাধ্যমে ‘প্লাষ্টিক পণ্য সামগ্রী যে আমাদের শ্বাস রোধ করে ফেলেছে সেবিষয়ে সকলকে তথ্য প্রদান করেন এবং এ থেকে বাঁচাতে সকলের সাহায্য প্রার্থনা করে। তন্ময় বলেন, ‘আমরা নতুন প্রজন্ম সবাই সচেতন হলে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা পাবে এবং আমরা সুন্দর জীবনযাপন করতে পারব।’

20190904_123414-W600

অংশগ্রহণকারী সকল শিক্ষক শিক্ষার্থী এখন থেকে যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা, নোংড়া কাগজ না ফেলা ও পলিথিন না ব্যবহার করার জন্য শপথ গ্রহণ করে।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: