সাম্প্রতিক পোস্ট

জেনিস ফারজানার সফলতার গল্প

সাতক্ষীরা শ্যামনগর থেকে রুবিনা রুবি 

স্বপ্ন  ছিলো লেখা পড়া করে চাকরি  করার। কিন্তু সেই স্বপ্ন কয়জনেরই বা পূরণ হয়? তাই আর পাঁচটা মেয়ের মত তার স্বপ্নের মাটি চাপা পড়ে  যায় ২০১১সালে যখন তার বিয়ে হয়ে যায় একজন ড্রাইভারের সাথে। জেনিস ফারজানার (২৫) কথা বলছি। সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার আটুলিয়া ইউনিয়নে হাওয়ালভাংগী গ্রামের গৃহবধূ তিনি।

বিয়ের পর যখন তিনি পড়ালেখা করতে চান তখন তার স্বামী তাকে আর লেখাপড়া করতে দেয়নি। সংসারের  শান্তির জন্য  সব মেনে নেয় ফারজানা। ২০১৫ সালে তার একটি ছেলে হয়। ছেলের বয়স যখন ৩ বছর তখন তিনি চিন্তা  করলেন বাড়িতে থেকেও তো কিছু করা যায়। তারপর একদিন তার স্বামীর বাবার কাছে গিয়ে কিছু  সবজি বীজ কিনে দেয়ার কথা বললে তিনি এনে দেন।

এরপর থেকে ফারজানা বেগম তার সন্তান সামলানোর সাথে সাথে গড়ে তোলেন সবজি বাগান। সে সবজি বাগানে তিনি আলু, কচু, ঢেঁড়স, বেগুন, শিম, কুমড়া) চাষ করেন। যখন  যে মৌসূম তখন তিনি মৌসুমী সবজি চাষ করেন সেই বাগানে। সবজি চাষ করে জেনিস ফারজানা ভালোই লাভবান হন।

সবজি চাষের পাশাপাশি তিনি হাঁস, মুরগি, কোয়েল পাখি কবুতর পালন করেন। এসব প্রাণীসম্পদ বিক্রি করে তিনি যা আয় করে তা দিয়ে তিনি কাপড়ের ব্যবসা শুরু করেন। সাথে সাথে গড়ে তোলেন নার্সারি। এখন তিনি এলাকায় একজন সফল নারী উদোক্তা হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন। ফারজানা বেগম জানান, তিনি সামনে আরও ব্যতিক্রম কিছু করতে চান। তিনি আর বলেন, ‘গ্রামের অনেক মানুষ এখন আমার এ উদ্যোগ দেখে আগ্রহী হয়ে কাজ শুরু করেছেন।’  

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: