সাম্প্রতিক পোস্ট

প্রবীণদের অভিজ্ঞতার সঙ্গী হয়ে উঠতে হবে

সিংগাইর, মানিকগঞ্জ থেকে রিনা আক্তার
বারসিক’র উদ্যোগে এবং আজিমপুর ও আঙ্গারিয়া গ্রামের নারী-কিশোরী সংগঠনের যৌথ আয়োজনে সম্প্রতি পৃথক দু’টি আন্তঃপ্রজন্ম সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাল্যবিয়ে, নারী নির্যাতন রোধসহ, সাম্প্রদায়িক ও সামাজিক সহিংসতা প্রতিরোধে নবীন-প্রবীণকে সমন্বিত করে একটি শক্তিশালী প্রতিরোধ ব্যবস্থা করা জন্য এই সংলাপ আয়োজন করা হয়।


পৃথক দু’টি সংলাপে সভাপতিত্ব করেন দু্ই সংগঠনের সভাপতি সবিতা রানী মন্ডল ও জাহানারা বেগম। আন্তঃপ্রজন্ম সংলাপে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন খেলাঘর আসর জেলা শাখার সভাপতি অধ্যাপক জগদীশ চন্দ্র মালো, সিংগাইর পৌরসভার কাউন্সিলর ও ্উপজেলা প্রতিবন্ধী সমিতির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন, নিরাভরন থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত সন্দীপন সায়েম ব্যবসায়ী ইলিয়াস হোসেন, বারসিক’র প্রোগ্রাম অফিসার নজরুল ইসলাম। সংলাপে আরও অংশগ্রহণ করেন কিশোরী নদী আক্তার, ঝর্না আক্তার, পূর্নিমা সিদ্ধা, বৃষ্টি সিদ্ধা, নারীনেত্রী রাশেদা বেগম, লক্ষী রানী মন্ডল, আদর্শ কৃষক ধনঞ্জয় মন্ডল, মোশারফ মিয়া, যুবক শুভ মন্ডল, মুরাদ হোসেন, প্রবীণ নারী ফালানী দাসী, ইয়ারজান বেগম, কৈকি সরকার প্রমুখ।


সংলাপে অধ্যাপক জগদীশ চন্দ্র মালো বলেন, ‘পরিবারের মেয়েরা বোঝা নয়; সম্পদ। তাদের সুশিক্ষা প্রদান করতে হবে, তাদের জীবন যেন অঙ্কুরে বিনষ্ট না হয় সেদিকে সকলের লক্ষ্য রাখতে হবে। নবীন-প্রবীণ সমন্বয়ে বিনির্মিত হয়ে নারীবান্ধব বহুত্ববাদী সমাজ।’
অন্যান্য বক্তারা গ্রামীণ নারীদের সমঅধিকার, সমমর্যাদা বৃদ্ধিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। তারা বলেন, আজকের এই নবীনদের প্রবীণদের কাছ থেকে অনেক কিছু জানার আছে, প্রবীণরা যেন কখনও একাকীত্ববোধ না করে সেজন্য বাড়ির সকলকে অবসর সময়ে তাদের বন্ধু হয়ে উঠতে হবে, পারিবারিক কাউন্সিলিং বাড়াতে হবে। একটি পরিবারে ছোট বাচ্চাটিকে যেভাবে যতœ করা হয় স্ইেভাবে বাড়ির বয়স্কদের দিকেও বিশেষ খেয়াল রাখা আমাদের দায়িত্ব।’
উল্লেখ্য, সংলাপে ধারণাপত্র পাঠ করেন প্রকল্প সহায়ক আছিয়া আক্তার, সঞ্চালয়কের দায়িত্ব পালন করেন বারসিক’র প্রকল্প সহায়ক রিনা আক্তার। সংলাপে নারী-পুরুষ, কিশোর-কিশোরীরা গান, কবিতা, গল্প প্রভৃতি পরিবেশন করে পরিবেশকে প্রাণবন্ত করে তোলেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: