সাম্প্রতিক পোস্ট

স্বাধীনতা আমাদের ভালোবাসার, গর্বের

ঢাকা থেকে হেনা আক্তার রুপা, রুনা আক্তার, পূজা রাণী মন্ডল

বারসিক’র উদ্যোগে সম্প্রতি ঢাকার বালুরমাঠ ও হাজারীবাগে কিশোর ও কিশোরীদের চিত্রাংকন কর্মসূচির মাধ্যমে স্বাধীনতা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করা হয়েছে। কিশোর-কিশোরীরা চিত্রাঙ্কনের মাধ্যমে দেশের প্রতি তাদের স্বপ্ন, আস্থা এবং সম্ভাবনা প্রকাশ করে।

অনুষ্ঠানে ৪১ জন শিশু ও যুব, কিশোর ও কিশোরী অংশগ্রহণ করে। অনুষ্ঠানে বারসিক’র সহায়ক হিসেবে রুনা আক্তার, পূজা রাণী মন্ডল উপস্থিত শিশু ও কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে দেশের স্বাধীনতা, ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধ ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধুদের সম্পর্কে ধারণা প্রদান করেন। এছাড়া বারসিক’র কর্মীরা অংশগ্রহণকারী শিশু, কিশোর ও কিশোরীদের মাঝে পরিবেশ, প্রকৃতি, প্রাণ, গাছপালা এবং প্রকৃতির সাথে মানুষের সম্পর্ক কী সে বিষয়ে আলোচনা করেন।

চিত্রাংকনের মাধ্যমে শিশু, কিশোর ও কিশোরীরা তাদের স্বপ্ন, আশা, প্রত্যাশা এবং দেশের জন্য তাদের সম্ভাবনাগুলো রঙের তুলিতে তুলে ধরে। এছাড়া তারা পরিবেশ, প্রকৃতি সম্পর্কেও তাদের ধারণা প্রকাশ করেন রঙের তুলিতে আঁকা ছবিগুলোর মাধ্যমে। চিত্রাংকরে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে উপহার হিসেবে পেপার, রং পেন্সিল, রাবার, সাপ্নার, বিস্কুট দেওয়া হয়। পাশাপাশি করোনাকালীল এই সময়ে শিশু ও যুবদের সুরক্ষার জন্য সাবান উপহার দেওয়া হয়।

আলোচনায় বারসিক’র কর্মকর্তারা বলেন, ‘১৯৭১ সালের ২৫মার্চ রাত্রে পাকিস্থানী হানাদার বাহিনী অপারেশন সার্চ লাইট নামে রাতের আধারে অমানবীকভাবে নিরীহ বাঙালির উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে নির্বিচারে শুধুমাত্র ঢাকা শহরেই প্রায় ১০ হাজার মানুষকে হত্যা করে। দেশের মুক্তিপাগল মানুষ দেশকে স্বাধীন করার জন্য মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে এবং প্রায় নয় মাস যুদ্ধ করে দেশকে স্বাধীন করেন। দেশের ৩০ লক্ষ মুক্তিপাগল শহীদের এবং ২ লক্ষ মা বোনের ইজ্জ্বতের বিনিময়ে এবং সীমাহীন কষ্টের বিনিময়ে প্রাপ্ত এই স্বাধীনতা আমাদের সবার জন্য একটি অহংকার, আমাদের পরম ভালোবাসার, আমাদের পরম প্রেরণার, আমাদের অনেক গর্বের।’

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: