সাম্প্রতিক পোস্ট

সবুজে থাকি সবুজে বাঁচি

নেত্রকোনা থেকে তাসমিয়া তহুরা
সবুজ মাঠ, সবুজ বন, সবুজ প্রকৃতি আমাদের কাছে থেকে হারিয়ে যাচ্ছে। তারপরেও কিছু প্রকৃতিপ্রেমী আমাদের সুবুজের আবহ ধরে রাখার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। সবুজে ফেরার স্বীকৃতি সবুজেই ফিরবে পৃথিবী এই প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে নেত্রকোণা জেলার পৌরএলাকায় উপস্থিত রাজুরবাজার কলেজিয়েট স্কুলের অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা,স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষাথীদের উদ্যোগে গত ছয় বছর ধরে স্কুল ক্যাম্পাসকে সবুজ ক্যাম্পাস হিসেবে গড়ে তোলার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।


কাজের ধারাবাহিকতায় এ বছর ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য্য বর্ধনের জন্য বেলিফুল, রঙ্গন, গোলাপ, গন্ধরাজ ফুলের চারা রোপণ করেছেন। শুধু ফুলের গাছ রোপণই নয় শিক্ষার্থীরা শপথ গ্রহণ করেন যে, গাছ রোপণের পাশাপাশি নিজ নিজ কক্ষ পরিচ্ছন্ন রাখা, পানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী হওয়া,ক্যাম্পাসে ধূমপান না করা,প্রতি বর্ষায় প্রত্যেকেই তিনটি গাছের চারা রোপণ, পলিথিন ব্যবহার কমানোসহ পরিবেশবান্ধব কাজগুলোর চর্চা করা।


উল্লেখ্য যে, স্কুলে সততা স্টোর স্থাপন করা হয়েছে। সবুজ ক্যাম্পাসের অংশহিসেবে ২০১৬ সালে আয়োজন করা হয় আঞ্চলিক ট্রি-অলিম্পিয়ার্ড অনুষ্ঠান। নেত্রকোনা জেলার ৫৬টি স্কুলের ২৫৪ জন শিক্ষার্থী এই অলিম্পিয়ার্ডে অংশগ্রহণ করে। রাজুর বাজার স্কুলের প্রাঙ্গণে ঐদিন রোপণ করা হয় ১১ জাতের শোভাবর্ধনকারী গাছের চারা। যে গাছ বড় হয়ে ক্যাম্পাসের সৌন্দর্য্য বাড়িয়ে দিয়েছে। প্রতিবছরই কৃষ্ণচূড়া গাছের চারা রোপণের মাধ্যমে একটি কৃষ্ণচূড়া চত্বর গড়ে তোলার কাজ চলছে।


স্কুলের শিক্ষার্থীদের ও শিক্ষকদের অক্লান্তিক প্রচেষ্টায় এবং প্রকৃতিপ্রেমী মানুষ অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফার তত্ত্বাবধানে একটি সবুজ ক্যাম্পাস গড়ে তোলার জন্য বেসরকারী গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক রাজুর বাজার কলেজিয়েট স্কুলের সাথে কাজ করে যাচ্ছে।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: