সাম্প্রতিক পোস্ট

সাতক্ষীরা শহরের একটি বাড়িকে পাখি বাড়ি ঘোষণা

সাতক্ষীরা শহরের একটি বাড়িকে পাখি বাড়ি ঘোষণা

সাতক্ষীরা থেকে আসাদুল ইসলাম

পাখি পোকামাকড় খায়, ফসল বাঁচায়। বীজদানা খেয়ে নতুন গাছের জন্ম দেয়। একটি এলাকার প্রজাতি পাখির মাধ্যমে পরিভ্রমণ করে পৌঁছে যায় অন্য আর একটি প্রতিবেশে। পাখির ডাকে ভোর হয়। পাখির ডানায় স্বপ্ন উড়ায় মানুষ।
“পাখি পরিবেশের বন্ধু। আসুন পাখির বৈচিত্র্য রক্ষা করি। পাখির প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা প্রকাশ করি” স্লোগানকে সামনে রেখে সাতক্ষীরার শহরের রাজার বাগান গ্রামের পাখি প্রেমিক যুবক আসাদুজ্জামানের বাড়ি আঙিনাকে পাখি বাড়ি ঘোষণা করা হয়েছে।

????????????????

আজ ১লা মার্চ সকাল সাড়ে ১০টায় বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান বারসিক এবং শিক্ষা সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিমের সহযোগিতায় এ পাখি বাড়ির ঘোষণা করেন সাতক্ষীরা সদর উপজেরার চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বারসিকের সমন্বকারি পাভেল পার্থ, শেখ ফারুকুজ্জামান ডেভিড, পাকি বাড়ির উদ্যোক্তা আসাদুজ্জামান, শিক্ষা, সংস্কৃতি ও বৈচিত্র্য রক্ষা টিমের সধারণ সম্পাদক গাজী আসাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক নাহিদ হাসান, প্রচার সম্পাদক নূরুল হুদা, শাকিল হোসেন, আওসাফুর রহমান, আব্দুল কাদের, আবুল হোসেন, শওকাত হোসেন, প্রেমা, রুপা প্রমূখ।

IMG_20180301_101524
পাকি বাড়ির উদ্যোক্তা ও যুব পাখি প্রেমিক আসাদুজ্জামান বলেন, “পাখির প্রতি ভালোবাসা দেখাতে আমার এই উদ্যোগ। কেউ যেন পাখি না মারে। পাখি অবাধে চলাফেরা করতে পারে সেই সচেতনতা সৃষ্টির চেষ্টা চালাচ্ছি।”
গবেষক ও লেখক পাভেল পার্থ জানান, মানুষের প্রয়োজনে পাখিকে টিকিয়ে রাখতে হবে। পাখি না থাকলে খাদ্য শৃংঙ্খল ভেঙে পড়বে। এই বাড়িটা একটি বিশেষ বাস্তুসংস্থান। যেখানে পুকুর, গাছ, গরু-ছাগল, হাঁস-মরগিসহ প্রকৃতির বৈচিত্র্যে ভরপুর যার ফলে পাখির বসবাসের জন্য এমন একটি বাড়ি খুবই ভালো। এমন উদ্যোগে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান বাবু বলেন, “এমন উদ্যোগ খুবই ভালো। এতে করে পাখির প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি হবে। সবার মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি হবে। এই আসাদের মত সবাইকে পাখি প্রতি ভালোবাসা দেখাতে হবে। পাখি বাড়ি উদ্যোগটি একটি ব্যতিক্রম উদ্যোগ।”

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: