সাম্প্রতিক পোস্ট

আমরা বেশি করে সবজি বীজ সংরক্ষণে রাখবো

সাতক্ষীরা থেকে মনিকা রানী পাইক
আটুলিয়া ইউনিয়নের বড়কুপট গ্রামে বারসিক’র উদ্যোগে সম্প্রতি স্থানীয় জাতের বীজ সংরক্ষণ বিষয়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রশিক্ষণে ১০ জন নারী উপস্থিত ছিলেন। উক্ত প্রশিক্ষণে সহায়কের ভূমিকা পালন করেন ধুমঘাট শাপলা নারী সংগঠনের সভাপতি কৃষাণী অল্পনা রানী।


প্রশিক্ষণে অল্পনা রানীঅ স্থানীয় জাতের বীজ সংরক্ষণ ও বেশি বীজ রাখার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, ‘বীজ কেন বাজার থেকে কিনবো আমরা দুর্যোগপ্রবণ এলাকায় বাস করি। বারবার পানি এসে আমাদের সব নষ্ট করে দিয়ে যায়। এজন্য আমরা বেশি বেশি সবজি বীজ রাখবো এবং এই বীজ একে অপরের কাছে বিনিময় করবো।’ প্রশিক্ষণে তিনি শীমের বীজ, বরবটির বীজ লাগানোর কৌশল শেখান সবাইকে।


প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী রেখা বলেন, ‘আমরা কম বেশি বারোমাস সবজি চাষ করি কিন্তু বীজ রাখার উপায় জানতাম না। আমি প্রথম ফলনের বীজ রাখতাম তা থেকে পরের বছর ভালো ফলন পেতাম না। আবার বাজার থেকে কিনে চাষ করতাম। এবার থেকে আমি এই নিয়মে বীজ রাখবো। আর বাজার থেকে কিনবো না।’
প্রশিক্ষণ গ্রহণকারী সকলেই বীজ সংরক্ষণের পদ্ধতি জানতে পেরে খুবই খুশি। সীতা রানী বলেন, ‘আমরা তো বিভিন্ন এনজিওর সাথে জড়িত, কিন্তু কেউ এভাবে আমাদের বীজ রাখার উপায় শেখায়নি। একমাত্র বারসিক শিখিয়েছে। আমি এই নিয়মে বীজ রাখবো আর জৈব পদ্ধতিতে সবজি চাষ করবো।’

শতবাড়ির কৃষাণী তুলসী মন্ডল বলেন, ‘এই প্রশিক্ষণে আমরা অঙ্গীকার করি, আমরা যার যার বাড়িতে বীজ সংরক্ষণ করবো, বীজ বিনিময় করবো একে অপরের সাথে। বেশি বেশি সবজি চাষ করবো। কোন জায়গায় ফেলে রাখবো না। যতবার দুর্যোগ আসবে আমরা যেন ততবার সবজি বীজ রোপন করতে পারি।’

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: