সাম্প্রতিক পোস্ট

আগামী প্রজন্মের হাত ধরে এগিয়ে যাচ্ছে নিরাপদ কৃষি ব্যবস্থা

নেত্রকোনা থেকে খাদিজা আক্তার লিটা
নেত্রকোনা জেলার গাছগড়িয়া যুব সংগঠনের উদ্যোগে স্থানীয় জাতের ধানজাত গবেষণা কার্যক্রম শুরু হয়েছে এ বছর। ২৩টি স্থানীয় জাত নিয়ে তাদেও এই গবেষণা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ ধানের জাতগুলোর মধ্যে রয়েছে গুটি স্বর্ণা, লালজিরা, মুশুরি পাইজাম, লোহাজং, খৈইল ঝুড়ি, কাপনদুলা, গাড়পাইজং, সুবাশ, মধুরাজ. জেসমিন. লালবিড়ই, আলফাইরি, শামপাগিটা, বাদশা ভোগ এবং বাঁশমতিসহ আরও বেশি কিছু জাত।


যুবকরা এ ধানগুলো চাষ করেছেন গবেষণা প্লটে। যুব সংগঠনটি দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের এলাকার পরিবেশ রক্ষা, নিরাপদ বৈচিত্র্যময় খাদ্য উৎপাদন, বিভিন্ন সমাজিক সমস্যা সমাধানের পাশাপাশি কৃষিতে যুবদের আগ্রহ বৃদ্ধিতে কাজ করে যাচ্ছে। তাদের চলমান কাজের ধারাবাহিকতায় তারা ধান নিয়ে বিশেষ করে স্থানীয় ধান নিয়ে গবেষণা কার্যক্রম হাতে নেয়। মূলত সংগঠনের উদ্যোগে প্রতিবছর সদস্যরা এলাকার দরিদ্রদের কৃষকদের ধান রোপণ ও কাটার কাজে সহায়তা করে থাকে।


চলতি বছর বন্যার পরবর্তী সময় এলাকার বীজ সংকট মোকাবেলার পাশাপাশি এলাকা উপযোগি ধানের জাত নির্বাচনে স্থানীয় জাতের ২৩ ধরনের ধান নিয়ে শুরু করেছেন এ ধান জাত গবেষণা কার্যক্রম। এ কাজে সহযোগিতা করছে এলাকার গাছগড়িয়া কৃষক সংগঠন এবং সার্বিক বিষয়ে সহযোগিতা করেছে বারসিক।


যুবদের এ নতুন উদ্যোগে এলাকার যুবদের মধ্যে কৃষিকাজে আগ্রহ বৃদ্ধি পেয়েছে। অনেক যুব নিজেদের মতো এলাকা উপযোগি বিভিন্ন সবজি চাষ শুরু করেছে। শিক্ষার পাশাপাশি নিজের বাড়িতে সবজি চাষের মাধ্যমে পরিবারের পুষ্টির চাহিদা পূরণ করার চেষ্টা করেছেন। এভাবে দেখা যাচ্ছে, দিনকে তিন যুবকদেও চিন্তা ও চেতনায় পরিবর্তন এসেছে, অভিজ্ঞ কৃষকদের প্রতি তাদেও ভেতরে শ্রদ্ধাবোধও সৃষ্টি হয়েছে। এভাবে কৃষি ও কৃষকের প্রতি তরুণদের শ্রদ্ধা ও দায়িত্ববোধ তৈরির মাধ্যমে নিরাপদ খাদ্য উৎপাদনে যুবকরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করবেন বলে আমরা প্রত্যাশা করি।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: