সাম্প্রতিক পোস্ট

সকল জীবনের জন্য সমানভাবে বণ্টিত আগামী

সাতক্ষীরা থেকে মননজয় মন্ডল
বাংলাদেশের নানাপ্রান্তে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা প্রাাণবৈচিত্র্যের মধ্য দিয়েই আমরা আমাদের বেঁচে থাকার উপকরণ পাই এবং বিভিন্ন ধরণের বাস্তুসংস্থান ও পরিবেশ পদ্ধতির সাথে প্রাণী, উদ্ভিদ ও অণুজীব নিবিড়ভাবে সম্পর্কিত। আর্শিবাদস্বরূপ প্রাণবৈচিত্র্য সমৃদ্ধ একটি দেশ বাংলাদেশ। দেশের প্রাণবৈচিত্র্যকে সমৃদ্ধ ও সুসংহত রাখা আমাদের সকলের দায়িত্ব।

২২ মে আর্ন্তজাতিক প্রাণবৈচিত্র্য দিবস। শ্যামনগরে আন্তর্জাতিক প্রাণবৈচিত্র্য দিবস উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১২ টার সময় সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের চকবারা গ্রামে উক্ত কর্মসূচিটি অনুষ্ঠিত হয়। চকবারা খোলপেটুয়া সিএসও ও গবেষণা উন্নয়ন প্রতিষ্ঠান বারসিক যৌথভাবে উক্ত মতবিনিময় সভার আয়োজন করে।

২০২২ সালের আন্তর্জাতিক প্রাণবৈচিত্র্য দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয়, ‘সকল জীবনের জন্য বণ্টিত আগামী’ এই ¯েøাগানকে সামনে নিয়ে মতবিনিময় সভায় বক্তারা আইলা বিদ্ধস্ত গাবুরা ইউনিয়নের প্রাণবৈচিত্র্যের চিত্র তুলে ধরে বলেন, “আইলায় আমাদের হারিয়ে যাওয়া সকল প্রাণবৈচিত্র্য আবারও সংগ্রহ করে টেকসই জীবনযাপন করার কাজ শুরু করেছি। নিজেরা সংগঠন করেছি। ধান-মাছ-গাছ-পাখি-প্রাণিসহ অচাষকৃত উদ্ভিদবৈচিত্র্য ফিরিয়ে আনতে নিরন্তর প্রচেষ্টা আব্যহত রয়েছে।’ আলোচকরা আরো জানান, জলবায়ু সহনশীল প্রাণবৈচিত্র্যনির্ভর কৃষির মূলভিত্তি হলো আন্তঃনির্ভরশীলতা। দেখা না দেখা অসংখ্য প্রাণ যারা বিভিন্ন ভাবে মানুষসহ কৃষির নানা উপকার করছে সেইসব প্রাণের রয়েছে অপরের উপরের আন্তঃনির্ভরশীলতা। বসতভিটার প্রাণবৈচিত্র্যনির্ভর কৃষি বর্ধিতহারে ফলমূল ও শাকসবজি উৎপাদনের একটি স্বাস্থ্যসম্মত এবং টেকসই পদ্ধতি যা কতিপয় অতিসাধারণ, স্বল্প ব্যয় এবং সহজ কৌশলের সমন্বয়ে গঠিত যা প্রান্তিক কৃষকগণ সহজেই বসতভিটায় প্রয়োগ করতে পারেন। উপস্থিত অংশগ্রহণকারী নদীর বাঁধ সংস্কার করে তাদের বসতি ও কৃষি জমি রক্ষার জোরালো দাবী জানান।

খোলপেটুয়া দলের জয়নাব বেগমের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভাটির সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন বারসিক’র এ্যাডভোকেসী এ্যসিসটেন্ট ফজলুল হক। আলোচনায় চকবারা খোলপেটুয়া সিএসও সদস্যবৃন্দ, স্থানীয় জনগোষ্ঠী ও বারসিক কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: