সাম্প্রতিক পোস্ট

এসো স্বপ্ন দেখি, জীবন সাজাই নতুনভাবে

ঢাকা থেকে, পূজা রানী মন্ডল এবং রুনা আক্তার
বারসিক’র উদ্যোগ সম্প্রতি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মোহাম্মাদপুর থানার, চাঁদ উদ্যানে, ২৫ জন কিশোর কিশোরী নিয়ে এক চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই প্রশিক্ষণে উপস্থিত ছিলেন বারসিকের মাঠ সহায়ক পুজা রানী মন্ডল, রুনা আক্তার ও স্থানীয় যুব সমাজের অভিভাবকবৃন্দ প্রমূখ। এই কর্মসূচির প্রতিপাদ্য হল: ‘এসো স্বপ্ন দেখি, ছবি আঁকি, জীবন সাজাই রঙিনভাবে। অংশগ্রহণকারীদের অধিকাংশই খুব ভালো ছবি অংকন করেছেন। রিপা আক্তার নামে বাক প্রতিবন্ধি সবচেয়ে ভালো ছবি অংকন করে প্রথম স্থান অধিকার করেন।

চিত্রাংকন কর্মসূচির আলোচনায় বারসিক’র সমন্বয়ক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমাদের পরিবার এবং সমাজকে সুন্দর এবং নিরাপদ রাখার জন্য এই নগরে আমাদের সব বয়সের মানুষদের কিছু না কিছু পারিবারিক এবং সামাজিক দায়িত্ব পালন করতে হয়। এখন আমাদের বর্ষাকাল চলছে এবং আমাদের বাসাবাড়ির চারপাশে বিভিন্ন পাত্রে জমে থাকা পানি থেকে এডিস মশার জন্ম হচ্ছে এবং মানুষ এডিস মশার কামড়ে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। অনেকেই এই রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করছে। অথচ আমরা যদি একটু সচেতন হয়ে ছোট বড় সবাই আমাদের বাসাবাড়ির চারপাশে পানি জমতে না দিয়ে পরিস্কার পরিছন্ন রাখি তবে আমরা সকলেই ডেঙ্গু রোগের প্রকোপ থেকে নিজেদের এবং আমাদের প্রতিবেশীদের ডেঙ্গু রোগমুক্ত রাখতে পারি।’ তিনি আরও বলেন, নগরের সব বয়সের মানুষের জন্য সমানভাবে দায়িত্ব রয়েছে।’

বস্তিবাসীরা জানান, তারা তাদের বাসাপবাড়ির চারপাশ পরিষ্কার রাখবে যাতে পানি জমে না থাকে। যাতে পরিষ্কার থাকে তার জন্য আমরা কাজ শুরু কবর। পরিশেষে অংশগ্রহণকারী সকল যুবদের মধ্যে কালার পেন্সিল, রাবার, পেন্সিল, একটি করে সাবান এবং কিছু শুকনো খাবার উপহার হিসেবে দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, এই চিত্রাংকন কর্মসূচির মূল লক্ষ্য হল অংশহণকারীদের সৃষ্টিশীল কাজে যুক্ত করার মাধ্যমে তাদের স্বপ্নকে ফুটিয়ে তোলা, তাদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তোলা। একই সাথে তারা যাতে এই সৃষ্টিশীল কাজের মধ্য দিয়ে তাদের জীবনের স্বপ্ন, লক্ষ্য, প্রত্যাশা, সুনির্দিষ্ট করতে পারে সেই চেষ্টা করা। তাছাড়া তাদের সুষ্টিশীল কাজকে উৎসাহিত করার মধ্য দিয়ে তাদেরকে দেশের প্রকৃত নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: