সাম্প্রতিক পোস্ট

একজন বৃক্ষ প্রেমিক নছরুদ্দিন

একজন বৃক্ষ প্রেমিক নছরুদ্দিন

মানিকগঞ্জ থেকে আব্দুর রাজ্জাক

কাঁধে বিভিন্ন প্রজাতির ফলজ গাছের চারা নিয়ে রাস্তায় ঘুরে ঘুরে বিক্রি করেন নছরুদ্দিন। তিনি ভ্রাম্যমাণ গাছ বিক্রেতা। বয়স ৮৫, তবুও যেন ক্লান্তি নেই এক ফোঁটাও। এখনও নিজে পরিশ্রম করতে, কাজ করে খেতে পছন্দ করেন তিনি। নছরুদ্দিনের বাড়ি মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার টেপরী গ্রামে।

01 (1)
মানিকগঞ্জ শহরস্থ রাস্তায় গাছ বিক্রির সময় কথা হয় নছরুদ্দিনের সঙ্গে। বয়োবৃদ্ধ এই মানুষটি প্রায় প্রতিদিনই কোন না কোন ফলের গাছ কাঁধে বয়ে নিয়ে পুরো শহর ঘুড়ে বেড়ান বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে। দামও নেন খুব কম। এই বয়সেও পিঠে গাছ বয়ে বেড়ানোর কারণ জিজ্ঞেস করলে নছরুদ্দিন বলেন, “দিন যতই যাচ্ছে ততই বিদেশী ফলের ভীড়ে দেশীয় ফলের নামই আমাদের ছেলে মেয়েরা ভুলে যাচ্ছে। দেশী ফলের গাছ কমে যাচ্ছে তাই বিদেশী ফলের পরিবর্তে দেশী ফলের গাছ বাড়ানোর জন্যই আমি মানুষকে দেশী ফলের গাছ লাগানোর জন্য উদ্বুদ্ধ করে যাচ্ছি।”

মো. রাজিব হোসেন নামক জনৈক গাছের চারা ক্রেতা বলেন, “এই বৃদ্ধ লোকটিকে অনেক দিন ধরেই দেখছি কম দামে বিভিন্ন প্রজাতির গাছের চারা বিক্রি করতে। আমিও তার কাছ থেকে অনেক গাছ কিনেছি। লোকটি অনেক ভালো এবং সৎ।”
প্রাণ-প্রকৃতিকে টিকিয়ে রাখতে হলে, টিকিয়ে রাখতে হবে নছরুদ্দিনের মত মানুষদের। যারা নিঃস্বার্থভাবে শুধু ঐতিহ্য ও সংস্কার রক্ষার তাগিদে প্রাণ ও প্রকৃতিকে লালন করে চলেছেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: