সাম্প্রতিক পোস্ট

গোদাগাড়ীর বটতলী ও রিশিকুলে জলবায়ু সুরক্ষা ও প্রাণবৈচিত্র্য মেলা অনুষ্ঠিত

রাজশাহী থেকে জাহিদ আলী ও শহিদুল ইসলাম শহিদ

গোদাগাড়ী উপজেলার জনংগঠন ও বারসিকের আয়োজনে রাজশাহী গোদাগাড়ীর উপজেলার অন্তর্গত গোগ্রাম ও রিশিকুল ইউপির বটতলী ও রিশিকুল গ্রামে গত মঙ্গলবার ও বুধবার জলবায়ূ সুরক্ষা ও প্রাণ বৈচিত্র্য মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গোগ্রাম ও রিশিকুল ইউপি চেয়ারম্যান মজিবর রহমান ও শহিদুল ইসলাম টুলুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গোদাগাড়ী উপজেলা ইসহাক।

DSC00807
গোগ্রাম ও রিশিকুল ইউপিতে দিনব্যাপী জলবায়ু সুরক্ষা ও প্রাণবৈচিত্র্য মেলায় ১২টি স্টলে বৈচিত্র্যময় বীজ, সবজি, ফল, নকশীকাথাঁ, কৃষিজ যন্ত্রপাতি, কেঁচো সার, নকশী কাঁথা ও অচাষকৃত শাক এর প্রদর্শন করা হয়। মেলায় ৮৫ ধরনের বীজ, ২৮ ধরনের অচাষকৃত শাক, ৩৮ ধরনের নকশী, পিঠা, ১৫ ধরনের নকশী কাঁথার প্রদর্শন করেন বটতলী ও রিশিকুল ইউপির কৃষাণীরা।

DSC00829
দিনব্যাপী মেলায় হারিয়ে যাওয়া এতিহ্যবাহী খেলার আয়োজন করা হয়। মেয়েদের পাটি বুনন, নবীনদের লাঠি টানা, প্রবীণদের হাড়িভাঙ্গা, যুবকদের সাতার এর মত খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলার আয়োজনকে কেন্দ্র করে গ্রামে উৎসবের আমেজ বিরাজ করে। সকল বয়সীদের অংশগ্রহণে খেলা অনুষ্ঠিত হওয়ার দিনব্যাপী মেলা চত্বর মিলন মেলায় পরিণত হয়।

DSC00842
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি গোদাগাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান ইসহাক বলেন, ‘বরেন্দ্র অঞ্চলের প্রাণ এই এলাকার খাড়ি। খাড়ি থেকে মানুষ বৈচিত্র্যময় মাছ পাই,অনেক বন্য জন্তুর আবাস এই খাড়িগুলোতে আমরা পানি নিয়মিত পাচ্ছি না। বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কম, খাড়ি পুরোপুরি সংস্কার না হওয়ায় এখন কৃষক সেচ কাজের জন্য পর্যাপ্ত পানি পাচ্ছে না। কৃষি কাজের জন্য কৃষককে ভুগর্ভস্থ পানির উপর নির্ভর করতে হচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের এইখানে পদ্মা নদী থেকে পানি তোলার ব্যবস্থা থাকলেও সকল জায়গায় প্রয়োজনের তুলনায় আমরা পযাপ্ত নদীর পানি ব্যবহার করতে পারি না। এই কারণে অঞ্চল ভেদে আমাদের আবাদ পরিবর্তন করতে হচ্ছে। পানিকে আমাদের সম্পদ মনে করে খরচ করতে হবে। তাহলেই সকল প্রাণীর জন্য পানি আশীর্বাদ হবে না হলে প্রভাব আমাদেরকেই ভোগ করতে হবে।’

DSC00844
রিশিকুল বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক ফারুক হোসেন বলেন, ‘নবান্নের ধান এখন কৃষকের ঘরে ঘরে। আমরা নবান্নের এই সময়ে প্রাণবৈচিত্র্য ও ঐতিহ্য আমরা হারাতে বসেছি। দিন দিন বাজার কেন্দ্রির রাসায়নিক সার ও হাইব্রিড ফসলের জোয়ারে দেশীয় বীজের মজুদ হারিয়ে গেছে। আমাদের সকলের উচিত দেশীয় বীজের বৈচিত্র্যকে রক্ষা করা।’

DSC00877
গোগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মজিবর রহমান বলেন, ‘জলবায়ূ পরিবর্তনের প্রভাব আজ আমাদের সামনে দৃশ্যমান। প্রতিবছর এই সময় যে হারে শীত পড়ার কথা সেই হারে শীত এখনও পড়েনি। আমাদের বৃষ্টিপাত কম হওয়ার কারণে মাটি লেয়ার রিচার্জ না হওয়ার কারণে পানির স্তর দিন দিন নিচে নেমে যাচ্ছে। আমাদের সকলকে কম পানিনির্ভর ফসল আবাদ করা উচিত।’

IMG_20181212_114342
দুই ইউনিয়নে দিনব্যাপী মেলায় প্রায় সহ¯্রাধিক মানুষ অংশগ্রহন করেন। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণ এর প্রভাব সম্পর্কে অবহিত করার জন্য এই অঞ্চলের বিখ্যাত গম্ভীরা সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। গম্ভীরা পরিবেশন করেন পবা লোকসাহিত্য ও সংস্কৃতি পরিষদ সংগঠনের সদস্যরা। অংশগ্রহণকারীরা মেলার সার্বিক বিষয়গুলো পর্ববেক্ষণ করেন। এই রকম অনুষ্ঠান প্রতিবছর আয়োজন করার জন্য আয়োজকের কাছে আবেদন জানান।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: