সাম্প্রতিক পোস্ট

পানি সম্পদের উৎসগুলো সংরক্ষণ করতে হবে

ভূমিকা

জাতিসংঘের পরিবেশ উন্নয়ন বিষয়ক সম্মেলন (ইউএনসিইডি)-এর ১৯৯২ সালের সভায় বিশ্ব পরিবেশে পানির গুরুত্ব  বিবেচনায় নিয়ে তার পরের বছর অর্থাৎ ১৯৯৩ সাল থেকে সর্বপ্রথম বিশ্ব পানি দিবস পালন করা হয়ে আসছে। সেই হিসাবে আজ ২২ শে মার্চ  ২৫ তম বিশ্ব পানি দিবস উদযাপন করা হচ্ছে। পৃথিবীপৃষ্ঠের তিন-চতুরাংশ পানি। শতকরা হিসাবে এর পরিমাণ দাঁড়ায় ৭১.৪ শতাংশ। আর পানির অন্যতম উৎস বিভিন্ন জলাশয় যেমন, নদ-নদী, হাওড়-বিল, পুকুর শুকিয়ে ভূগর্ভস্থের পানির স্তর নিচে নেমে যাচ্ছে। ফলে দিন দিন পানি শূন্য হয়ে পড়ছে এসব জলাধার। তাই এত পানি থাকার পরও চারদিকে শুধু পানির অভাব; যার প্রভাব দেশকে মরুময়তার দিকে ঠেলে দিচ্ছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। পানির এই অপচয় (বর্জ্য পানি) সম্পর্কে সচেতন করার জন্য ২০১৭ সালে ২২ মার্চ আন্তর্জাতিক পানি দিবস এর প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ করা হয়েছে “পানি কেন বর্জ্য”? প্রতিবছর ২২মার্চ আন্তর্জাতিক পানি দিবস পালন করা হয় বিভিন্ন ইস্যু এবং সেই ইস্যু কেন্দ্রিক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করার জন্য। এবারের প্রতিপাদ্যের মূল বক্তব্য হচ্ছে পানির অপচয় (বর্জ্য) কমানো এবং ব্যবহার্য পানির পুনঃব্যবহার নিশ্চিত করা। বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি সংগঠনের উদ্যোগে বিশ্ব পানি দিবস পালিত হয়েছে। এই সংবাদটি বিশ্ব পানি দিবস উপলেক্ষ্ মানিকগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় এবং নেত্রকোনায় নেওয়া বিভিন্ন কর্মসূচি আলোকে তৈরি করা হয়েছে:

মানিকগঞ্জ সদর
‘সুপেয় পানি সম্পদের টেকসই ব্যবহার করি’ প্রতিপাদ্য সামনে রেখে মানিকগঞ্জ জেলার কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের বাসুদেবপুর গ্রামের বাসুদেবপুর মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি উচ্চ বিদ্যালয় ও বাসুদেবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের যৌথ আয়োজনে এবং বারসিক এর সহযোগিতায় গতকাল ২২ মার্চ পালিত হলো ‘বিশ্ব পানি দিবস ২০১৭’। দিবসকে কেন্দ্র করে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে আয়োজন করা হয় র‌্যালি, আলোচনা সভা, রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা। চিত্রাংকন এবং রচনা প্রতিযোগিতার বিষয় ছিল ‘অতীতে ধলেশ্বরী নদী কি অবস্থায় ছিল? বর্তমানে কি অবস্থায় আছে এবং ধলেশ্বরী নদী সম্পর্কে তোমার ভাবনা।’

DSC02619
দিনব্যাপী কার্যক্রমের শুরু হয় র‌্যালির মাধ্যমে। ধলেশ্বরী নদী খননের দাবিতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক, এলাকাবাসী এবং দুই শতাধিক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে র‌্যালি হয়। র‌্যালিটি বাসুদেবপুর গ্রাম হয়ে চরমত্ত ও মকিমপুর গ্রামের মধ্য ঘুলে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এসে মিলিত হয়। এসময় ‘ধলেশ্বরী নদী খনন কর, পানির অপচয় রোধ কর, নদীর অবৈধ দখল রোধ করাসহ নানা ধরণের শ্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে চারদিক।

সহকারী শিক্ষক আসাদুজ্জামান খান এর সঞ্চালনায় বাসুদেবপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. ফারুক হোসেন এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভার শুরুতে বিশ্ব পানি দিবসের প্রেক্ষাপট তুলে ধরে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী তাসলিমা আক্তার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বারসিক এর আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল রায়। বক্তারা তাদের বক্তব্যে পানি সম্পদ এবং এই সম্পদের প্রাকৃতিক উৎস্যসমূহ সংরক্ষণ এবং পুনরুদ্ধারের উপর আলোকপাত করেন। আলোচনা শেষে রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।

মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলা
পানির ব্যবহার ও জ্বালানি বিষয়ে নালী ইউনিয়নের উভাজনি কৃষান-কৃষাণীর ঐক্য পরিষদের উদ্যেগে পালিত হলো বিশ্ব পানি দিবস। ছোট শিশুরা তাদের বাড়ির চারিদিকের নদীর নাম, নদীতে কি কি মাছ পাওয়া যেতো, কেমন নৌকা চলতো তা তারা চিত্রাংকনের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলে। ৩৩৩৩নারীরা তাদের পানি ব্যবহারের উপকরণ সমূহ যেমন-কলস, হাঁড়ি, জগ, বালতির ছবি তুলে ধরেন। এই প্রসঙ্গে কুন্দুরিয়া গ্রামের সমাজ কর্মী ভজন কুমার সরকার বলেন, “বর্তমানে কৃষি কাজে পানির সমস্যা হচ্ছে। নদীতে চৈত্র মাসের আগেই পানি শুকিয়ে যায়। এতে কৃষিকাজে, গরু ও ছাগল গোসল করাতে সমস্যা হয়।”

উক্ত আলোচনা সভায় সভপতিত্ব করেন নালী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রতন মিয়া। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বারসিক কর্মকর্তা সুবীর কুমার সরকার। উক্ত সংগঠনের সদস্য হাজেরা আক্তার বৃষ্টির পানি সংরক্ষণের কথা উল্লেখ করেন। আরো বক্তব্য রাখেন উক্ত ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মো. বেল্লাল হোসেন এবং বারসিক গবেষক নজরুল ইসলাম প্রমুখ। আলোচনা শেষে চিত্রাংকন প্রতিযোগিদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন সভাপতি।

মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর উপজেলা
‘প্রতিনিয়ত আমরা ভূগর্ভস্থ পানি ব্যবহার করছি ফলে পানির স্তর ক্রমান্বয়ে নিচে নেমে যাচ্ছে। অন্যদিকে ভূপৃষ্ঠের পানির অনিয়ন্ত্রিত ব্যবহারের ফলে পৃথিবিতে পানির সংকট আরও প্রকট আকার ধারণ করছে। উপরোন্ত বৈশ্বিক জলবায়ুর প্রভাবে আমরা আরো ঝুঁকির মধ্যে রয়েছি। জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় আমরা দু’টি কৌশল অবলম্বন করতে পারি। জলবায়ু পরিবর্তনের মাত্রা কমিয়ে আনার জন্য জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহার কমিয়ে সৌর শক্তি, বায়ু শক্তির মত নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়াতে পারি এবং ভূগর্ভস্থ পানির ব্যবহার কমিয়ে ভূপৃষ্ঠের পানির সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারি’।

উপরোক্ত বিষয়গুলো বিশ্ব পানি দিবস ২০১৭ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানের মূল প্রবন্ধ পাঠের সময় উপস্থাপন করেন কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয় এর দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী দেওয়ান আতিকা আক্তার। মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলার কবি নজরুল উচ্চ বিদ্যালয় এবং বারসিক যৌথভাবে পানি দিবস পালন উপলক্ষে আলোচনা সভা, রচনা প্রতিযোগিতা ও পুরুষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ১৪ জন শিক্ষার্থী ‘জলবায়ু পরিবর্তনে যুব সমাজের ভূমিকা’ শীর্ষক রচনা প্রতিযোগিতায় অঅংশগ্রহণ করেন।

IMG_20170322_112646
রচনা প্রতিযোগিতা শেষে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. হারুন অর রশীদ এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. কুদ্দস আলী মোল্লার সঞ্চালনায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির কো-অপ্ট সদস্য মো. নজরুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, ‘নিরাপদ পানি আমাদের সকলের অধিকার, আমরা নিজ নিজ দায়িত্ব থেকে পানির অপচয় বন্ধ করবো’। তিনি আরো বলেন, ‘এক শেণীর মানুষ নিজেদের অজান্তে অন্যের অধিকার হরন করছে। তাই আসুন পানির সঠিক ব্যবহার করি পানি সম্পদ রক্ষা করি’।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত বারসিক সমন্বয়কারী, বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষক, এবং উপস্থিত শিক্ষার্থীদের বক্তব্যের উপর ভিত্তি করে অনুষ্ঠান সভাপতি হারুন অর রশীদ সমাপ্তি টানেন এই বলে যে, ‘পানি অপচয় রোধ করতে হলে আমদের পারিবারিকভাবে সচেতন হতে হবে। নদী-নালা, খাল-বিল ভড়াটের হাত থেকে বাঁচিয়ে খননের ব্যবস্থা করতে হবে’। তিনি আরো বলেন, ‘বিশুদ্ধ পানি ব্যবহার করতে হলে এবং পানির অপচয় রোধ করতে হলে আমাদের বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ করতে হবে তাহলে ভূগর্ভস্থ পানি ব্যবহার কমবে ।

নেত্রকোনা
নেত্রকোনার ৫৭টি নদী, শত শত পুকুর, খাল, বিল, হাওর, জলাধার দিন দিন হারিয়ে গিয়ে পানি শুন্য হচ্ছে, কমে যাচ্ছে সেচের পানি, গোসলের পানি, পান করার পানি। পানির কমে যাওয়ার সাথে সাথে বিলুপ্ত হচ্ছে প্রাণবৈচিত্র্য, পেশা, পরিবর্তিত হচ্ছে এলাকার আবহাওয়া-জলবায়ু। মানুষ মাটির নীচের পানির উপর পুরোপুরি নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে। এমনই এক সময়ে দাঁড়িয়ে নেত্রকোনা জেলার আটপাড়া উপজেলা প্রশাসন বানিয়াজান সিটি পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী-শিক্ষক, আটপাড়া শিক্ষা সংস্কৃতি, প্রাণবৈচিত্র্য রক্ষা কমিটি ও বারসিক এর উদ্যোগে ২২ মার্চ বিশ্ব পানি দিবস পালিত হলো।
IMG_20170322_100223
দিবস পালনকে কেন্দ্র করে “পানির অপচয় রোধ করি, টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করি” এই শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে র‌্যালি, আলোচনা ও শিক্ষার্থীদের শপথের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন আটপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুবর্ণা সরকার, বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী কমিশনার হেলেনা পারভিন। আলোচনায় অংশ নেন কৃষি কর্মকর্তা আজিজুর রহমান, প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ড. নজরুল ইসলাম, বারসিক এর আঞ্চলিক সমন্বয়কারী অহিদুর রহমান, শিক্ষা সংস্কৃতি প্রাণবৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সভাপতি আব্দুল হালিম খান, পার্বতী রাণী সিংহ, রোখসানা রুমিসহ সরকারি ও বেসরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারী বৃন্দ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুবর্ণা সরকার বলেন, “আমাদের চারপাশে যেসব প্রাকৃতিক পানির উৎসগুলো রয়েছে সেগুলো রক্ষা করা জরুরি। নদী, পুকুর, জলাধার রক্ষাসহ প্রাকৃতিক পানি সংরক্ষণ করতে হবে। তা নাহলে পানির জন্য হাহাকার বাড়বেই। জীবনের সকল কিছুতেই পানির প্রয়োজন। জীবনের জন্য পানির উৎসগুলো বাঁচানো জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করতে হবে”।  অনুষ্ঠানে সিটি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পানির অপচয় রোধ করার জন্য শপথ গ্রহণ করেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: