সাম্প্রতিক পোস্ট

সংগঠনই আমাদের শক্তি

রাজশাহী থেকে রিনা টুডু

আমরা গ্রামের যে কোনো কাজ একা করতে গেলে অনেক কষ্ট করতে হয়। কিন্তু সেই কাজই যদি সবাই মিলে করি তাহলে কাজটা খুব সহজ হয়। তেমনি মুন্ডুমালা পাঁচন্দর মাহালী পাড়া গ্রামের মানুষ একটি সংগঠনের মাধ্যমেই বিভিন্ন কাজ করেন।

এই গ্রামে ভূমিহীন দিনমজুর ৫০ পরিবার বসবাস করে,। গ্রামটিতে অনেক ধরনের সমস্যা রয়েছে, যেমন, খাবার পানির সংকট, পুকুরের পানির সংকট, ইত্যাদি। তারা কাজগুলো কে কিভাবে সমাধান করবে বুঝতে পারছিলনা। তারপর ২০২০ সাল থেকে বারসিক গ্রামটিতে কাজ শুরু করে। প্রথমে গ্রামটিতে ২৫ জন নারী ও ৫ জন পুরুষ নিয়ে একটি সংগঠন তৈরি করা হয়। বারসিক গ্রামের মানুষকে অনেক পরামর্শ দিয়ে সংগঠন তৈরিতে উৎসাহিত হয়। সংগঠন তৈরির পর আস্তে আস্তে আরো সদস্য যুক্ত হয়। সংগঠনের নাম দেওয়া হয়, ‘মাহালি পাড়া বাঁশ বেত উন্নয়ন সংগঠন।’

সংগঠনের মাধ্যমে গ্রামের সমস্যাগুলো তারা কর্তৃপক্ষের বরাবর তুলে ধরেন এবং কিছু সমস্যা তারা নিজেরা সমাধানের চেষ্টা করেন। এভাবে তারা মাহালি পাড়া গ্রামের কবর স্থান ঘেরার কাজ শুরু করেন। কবর ঘেরার জন্য গ্রামের প্রতিটি পরিবার থেকে, চাঁদা তোলা হয়। প্রশাসনের কাছ থেকে তারা সহযোগিতা আদায় করে। পৌরসভার মেয়র তাদের কিছু সহায়তা করেন। এরপর গ্রামের সবাই মিলে কবর স্থান কাজ শুরু করেন। এভাবেই তারা কাজটি সম্পাদন করেন।

বলা দরকার যে, কবর স্থানটি যখন ঘেরাও ছিল না, তখন সেইখান দিয়ে রাস্তা ছিল, গরু ছাগল মানুষ ইচ্ছে মতন যাওয়া আসা করতো। গাছে আম আসলে মানুষজন ইচ্ছে মতন পাড়তো! ঘেরা বা বের দেওয়ার কারণে অন্যান্যবার থেকে এইবার প্রথম কবর স্থানের আম গাছগুলোতে তারা আম পেরে পরস্পরের সাথে ভাগ বাটোয়ারা করতে পেরেছেন। সবাই আম পেয়ে খুশি। ৫০ পরিবারের প্রত্যেকে ৬ কেজি করে আম পায়। এছাড়া কিছু আম পাশের গ্রামের প্রতিবেশীর কিছু সাথেও বিনিময় করা হয়। এতো গুলো করে আম পেয়ে গ্রামের মানুষ খুব খুশি হয়। এভাবে সম্মিলিতভাবে কোন সমস্যা সমাধান করলে এর ভালো ফল পাওয়া যায়।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: