সাম্প্রতিক পোস্ট

জ্যৈষ্ঠ সংক্রান্তি

পাভেল পার্থ:

বাংলা পঞ্জিকা মতে আজ ৩২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭। ১৫ জুন ২০২০। জ্যৈষ্ঠ সংক্রান্তি। এদিন হাওরাঞ্চলে আয়োজিত হয় ‘কর্মাদি পরব’। এটি ‘কর্মপুরুষের ব্রত’ নামেও পরিচিত। শ্রীমঙ্গলে এটি ‘গুঁড়াপেড়ার বর্ত’ নামে পরিচিত। বোরো মওসুমে কৃষিকাজে নিয়োজিত কৃষিশ্রমিকদের মজুরিসহ আনুষ্ঠানিক বিদায়পর্ব আয়োজনের অনুষ্ঠান এটি। এই ব্রত অনুযায়ী কৃষকেরা ‘কর্মপুরুষ’। ব্রতের সব আয়োজন নারীদের, ব্রতের কিচ্ছাও বলেন নারীরা। সেখানে কর্মময় কৃষকের আখ্যান প্রতীকি ব্যঞ্জনায় তুলে ধরা হয়। শিমবীজ, কাঁঠাল বীজ, তিল, তিসি, বাদাম বীজ ভেজে গুঁড়ো করে মুড়ি-চিড়া-খৈ এবং দই, দুধ, গুড়, কলা, আম, কাঁঠালসহ মৌসুমী ফল দিয়ে এই পরবের মূল খাবারের আয়োজন করা হয়। গৃহস্থ বাড়ির উঠানে কাঠের পিঁড়ি পেতে কৃষিশ্রমিকদের বসতে দেয়া হয় তারপর খাবার পরিবেশন করা হয়। কৃষিম্রমিকদের প্রতি এমন সামাজিক শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কৃত্যের চল দিনে দিনে একেবারে কমে যাচ্ছে। শৈশবে দেখেছি গুঁড়াপেড়ার ব্রতের আগে দিদিমা নানা বীজ শুকিয়ে গুঁড়ো করে বয়াম ভরে রাখছেন।

বলরামপুরে পিশিমণির বাড়িতে কর্মাদির আগে কড়াই কড়াই দুধ জ্বাল দিয়ে দই পেতে রাখা হতো। আলমাডহরে বাবাদের গ্রামে আম-কাঁঠালের উৎসব লেগে যেত। এভাবেই কৃষিশ্রমিক ও গৃহস্থ পরিবারগুলি এক দারুণ সম্পর্ক তৈরি করেছিল একদা হাওরে। রাখালদের নিয়েও আছে বিশেষ সামাজিক কৃত্য ও পরব। সে না হয় আরেকদিন। সকলকে কর্মাদির শুভেচ্ছা।

happy wheels 2
%d bloggers like this: