সাম্প্রতিক পোস্ট

সাংগঠনিকভাবে একতাবদ্ধ হওয়ার ফল পেয়েছি

সাংগঠনিকভাবে একতাবদ্ধ হওয়ার ফল পেয়েছি

সিংগাইর মানিকগঞ্জ থেকে শাহীনুর রহমান ও বিউটি সরকার
বারসিক মানিকগঞ্জ অঞ্চলের সিংগাইর উপজেলায় পরিচালিত কৃষকের অধিকার কর্মসূচি প্রকল্পের অধীনে কৃষক নেতৃত্বে গড়ে উঠা বায়রা ও বলধারা ইউনিয়নের কৃষক সংগঠনসমূহের কার্যক্রম ও অগ্রগতি বিষয়ক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে সম্প্রতি। জেলা কৃষি উন্নয়ন কমিটির সভাপতি করম আলী মাষ্টার ও বায়রা ইউনিয়ন কৃষি উন্নয়ন কমিটির সভাপতি মোঃ ফরহাদ হোসেনের সভাপতিত্বে বারসিক কর্মকর্তা শাহীনুর রহমান ও বিউটি সরকার এর সঞ্চালনায় পৃথক দুটি আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন বাংগালা নব কৃষক কৃষাণি সংগঠনের সহ-সভাপতি সুভাষ মন্ডল, নয়াবাড়ি কৃষক কৃষাণি সংগঠনের প্রচার সম্পাদক শহর আলী, বলধারা ইউনিয়ন কৃষি উন্নয়ন কমিটির সদস্য মো. দারোগ আলী শিকদার, সাধারণ সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন, বায়রা ইউনিয়ন কৃষি উন্নয়ন কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু আসাদ খান, সিংগাইর অগ্রগামি নারী উন্নয়ন কমিটির আহবায়ক সেলিনা বেগম, উক্ত সংগঠনের সদস্য মনোয়ারা বেগম, লিপিকা মন্ডল, সিংগাইর উপজেলা কৃষি উন্নয়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. ইমান আলী, জেলা কৃষি উন্নয়ন কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. হযরত আলী, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইউসুফ আলী, জেলা নারী উন্নয়ন কমিটির সদস্য রোকেয়া বেগম। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন বারসিক মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক সমন্বয়কারি বিমল রায়, কর্মসূচী কর্মকর্তা শিমুল বিশ্বাস, সহযোগী কর্মসূচী কর্মকর্তা গাজী শাহাদাৎ হোসেন বাদল ও মাঠ সহায়ক শারমিন আক্তার প্রমুখ।


আলোচনা সভায় অংশগ্রহনকারীগণ নিজ নিজ সংগঠনের পরিকল্পনা তুলে ধরে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন পদ্ধতি অগ্রগতি ও অর্জিত ফলাফল উপস্থাপন করেন। সুভাষ মন্ডল বলেন, ‘বর্তমান করোনা বৃদ্ধি পাওয়ায় আমরা সকলেই নিরাপদে থাকছি। সরকারি বিধি নিষেধ থাকায় এ বছর পরিকল্পনার সকল কাজ সম্পূর্ণরূপে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি। তবে বারসিক’র নিয়মিত পরামর্শ প্রদান ও সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সাথে ভালো সম্পর্ক থাকার কারণে সদস্যদের সেবাপ্রাপ্তির সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা আশা করছি, সময় মত বাকি কাজগুলো বাস্তবায়ন করতে পারবো।’ ইমান আলী বলেন, ‘আমরা অংশগ্রহণমূলকভাবে পরিকল্পনা করি আবার অংশগ্রহণমূলকভাবেই পরিকলপনা বাস্তায়নের পর এর ফলাফলগুলোর তথ্য সংগ্রহ করি। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সকলের অংশগ্রহণ কৃষক সংগঠনসমূহের সাথে পারষ্পারিক যোগাযোগের মাত্রা আরো বাড়াতে হবে। তাহেল পরিকল্পনা বাস্তাবায়ন সহজ হবে এবং নতুন সমস্যা চিহ্নিত করা যাবে।’


হযরত আলী বলেন, ‘আমরা নিজেদের অধিকার অদায়ের জন্য সংগঠন করেছি। আমাদের সংগঠনের সদস্যরা হচ্ছে নি¤œ আয়ের মানুষ। সাংগঠনিকভাবে একতাবদ্ধ থেকে পিছিয়ে পড়া মানুষগুলোর জীবনমান উন্নয়ন করাই আমাদের সংগঠনের উদ্দেশ্য। এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের জন্য আমরা বার্ষিক কর্মপরিকল্পনা করি ও সদস্যদের সাথে নিয়ে বাস্তবায়ন করি। পরিকল্পনায় থাকা কাজ বাস্তবায়নের মধ্যে দিয়ে কি ফলাফল হলো তা আমরা নিজেরাই যাচাই করি।’ রোকেয়া বেগম বলেন, ‘পরিকল্পনা থাকলে কাজ যেমন সহজ হয় তেমনি পরিকিল্পনায় গৃহীত কাজগুলো নিয়ে নিয়মিত আলোচনা করাটাও জরুরি। পরিকল্পনা নিয়মিত পর্যালোচনা করলে সংগঠনের ফলাফল বোঝা যায় নতুন কাজ যুক্ত হয়।’
করম আলী মাষ্টার বলেন, ‘আমরা করোনাকালিন সময়ে পরিকল্পনার সকল কাজ বাস্তবায়ন করতে না পারলেও সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত নিয়মিত যোগযোগ ছিল। বারসিক আমাদের সাথে নিয়মিত যোগযোগ ও পরামর্শ দিয়ে সহযোগতা করেছে। আমরাও সাংগঠনিকভাবে একতাব্ধ ছিলাম। আমরা একতাবদ্ধ থেকে কৃষক কৃষক যোগাযোগ করে কৃষি অফিস, কমিউিনিটি ক্লিনিক, প্রাণি সম্পদ অফিস ইউনিয়ন পরিষদ উপজিলা পরিষদে যোগাযোগ করি। যোগাযোগের ফলে বীজ, প্রশর্দনী স্বাস্থ্য সেবা, হাঁস, মুরগি, গরু, ছাগলের, টিকা, ঘর, টিউবয়েল রাস্তা মেরামত, চাল, ডাল, আলু পেয়েছি। সাংগঠনিক একতায় আমরা ফলাফলগুলো পেয়েছি।’
উল্লেখ্য বারসিক দীর্ঘদিন ধরে মানিকগঞ্জ এর দুই শতাধিক অধিক গ্রামে জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে গ্রাম সংগঠন, কিশোরী সংগঠন, ছাত্র ও যুব সংগঠন, ইউনিয়ন সংগঠন, উপজেলা সংগঠন, উপজেলা নারী উন্নয়ন কমিটি, ইউনিয়ন সাংষ্কৃতিক দল, জেলা সাংষ্কৃতিক দল, পেশাজীবী সংগঠনসহ বিভিন্ন স্তরের সংগঠন তৈরিতে সহায়তা করে তাদের অধিকার অর্জনে কাজ করছে।

happy wheels 2
%d bloggers like this: