সাম্প্রতিক পোস্ট

টেকসই উন্নয়নের জন্য প্রকৃতি ভিত্তিক সমাধান চাই

রাজশাহী থেকে ব্রজেন্দ্র নাথ
রাজশাহীর পবা উপজেলার বড়গাছি ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে সম্প্রতি ‘টেকসই উন্নয়নের জন্য প্রকৃতি ভিত্তিক সমাধান শীর্ষক মতবিনিময় ও সংলাপ” অনুষ্ঠান করা হয়েছে। বারসিক’র সহযোগিতায় অনুষ্ঠানটি আয়োজন করে পবা উপজেলা জনসংগঠন,জনসংগঠন সমন্বয় কমিটি ও ইউনিয়ন পরিষদ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সমাজ কল্যাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি এবং পরিবেশ উন্নয়ন, পরিবেশ সংরক্ষণও বৃক্ষ রোপণ কমিটির সদস্যবৃন্দ এবং জনসংগঠনও জনসংগঠন সমন্বয় কমিটির সদস্যবৃন্দ।


অনুষ্ঠানের শুরুতেই সকলের মাঝে বারসিক রাজশাহী রির্সোস সেন্টারের আঞ্চলিক সমন্বয়কারী মোঃ শহিদুল ইসলাম বারসিক’র কার্যবিবরনী তুলে ধরেন। তাছাড়াও সরকারে এসডিজি গোলকে সামনে রেখেই বারসিক যে কাজগুলো করে থাকে সে বিষয়গুলোকে তুলে ধরেন। অন্যদিকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যও পূর্বাশা নারী কেন্দ্র উন্নয়ন সংগঠনের সভানেত্রী মোসা: মনিরা বেগম (৪২)বলেন, ‘এই সমাজ এই ইউনিয়ন আমাদের এবং এখানে আমরাই বস বাস করে থাকি। তাই নিজেদের বসবাসের প্রয়োজনে এই এলাকার গাছপালা, পাখি ও জীবজন্তু আমাদেরকেই রক্ষা করতে হবে। কারণ পৃথিবীতে আমরা সকলে একে অপরের সাথে জড়িত। তিনি জানান, বারসিক’র মাধ্যমে যে বিষয়গুলো শিখতে পেেেরছেন তা হচ্ছে অচাষকৃত সবজি সংরক্ষণ, বাড়ির পার্শে নিরাপদ সবজি চাষ, দেশী সবজি ও ফসলের বীজ সংরক্ষণ, পরিবেশবান্ধব চুলার ব্যবহার, জৈব বালাইনাশক ও ভার্মি কম্পোস্ট সারের ব্যবহার, তৈরী পদ্ধতি।


বড়গাছি কৃষক ঐক্য সংগঠনের সদস্য ও সমাজসেবিকা মোসা রহিমা বেগম(৬০) বলেন, ‘প্রকৃতি আমার এবং আমিও প্রকৃতির। তাই টেকসই উন্নয়নের কথা আমাদের সকলকে সকল বিষয়ের প্রতি খেয়াল রেখে কাজ করতে হবে। বড়গাছি কৃষক ঐক্য সংগঠনের উদ্যোগে আমরা এক হাজার তাল বৃক্ষ এই বারনই নদীর পাড়ে রোপণ করেছি। তাছাড়াও বারনই নদী দূষণ রোধে মানব বন্ধন করেছি। তাই আবারও বলবো ইউনিয়ন পরিষদের সমাজ কল্যাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটি এবং পরিবেশ উন্নয়ন, পরিবেশ সংরক্ষণও বৃক্ষ রোপণ কমিটিতে আমরা যারা যুক্ত আছি সবাই যেন নিজ উদ্দ্যোগে নিজ নিজ গ্রামগুলোতে দূর্যোগ মোকাবেলায় করণীয় দিকগুলো নিয়ে সচেতন হই।’ অন্যদিকে কারিগর পাড়া নারী উন্নয়ন সংগঠনের সহ-সভানেত্রী ও কৃষাণী মোসা রেনুকা বেগম (৪৫) মতবিনিময় অনুষ্ঠানে সকলের উদ্দেশ্য বলেন, ‘আমরা প্রকৃতিকে নানাভাবে ক্ষতি করছি। যেমন অধিক পরিমাণে ফসলি জমিতে বিষ প্রয়োগের মাধ্যমে পরিবেশ দূষিত হচ্ছে এবং প্রচুর পরিমাণে জমিতে রাসায়নিক সার ব্যবহার করে জমির গুণগত মান নষ্ট হচ্ছে, যা ফসল চাষে খরচের পরিমাণ বেড়েই চলেছে। তাই আমরা প্রকৃতিকে বাঁচাই এবং নিজে ভালোভাবে বেঁচে থাকার জন্য জমিতে ভার্মি কম্পোস্ট সার ব্যবহার করি ও বিষের পরিবর্তে জৈব বালাইনাশক সার ব্যবহার করি।’


অনুষ্ঠান শেষে মতবিনিময় অনুষ্ঠারে বিষয়কে সামনে রেখে বক্তব্য দেন ৭নং বড়গাছি ইউনিয়ন পরিষদের চেষারম্যান মো: শাহাদৎ হোসাইন। তিনি বলেন, ‘বারসিক’ এই এলাকার প্রাণ প্রকৃতি এই এলাকার নদী পাখি ও বীজ সংরক্ষণ, অচাষকৃত শাক, ভার্মি কম্পোস্ট সারের ব্যবহারের বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছে। এটা আমার কাছে সবচেয়ে ভালো লেগেছে। তাই আমি বলবো সরকারের টেকসই উন্নয়নের জন্য আমরা সবাই বারসিককে তার কাজের জায়গায় সহায়তা করবো এবং বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবো।’

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: