সাম্প্রতিক পোস্ট

সকল প্রাণকে বাঁচিয়ে রাখতে সবাইকে অঙ্গীকারাবদ্ধ হতে হবে

বারসিক’র উদ্যোগে গত ২৫ মে ২০২২ তারিখে আন্তর্জাতিক প্রাণবৈচিত্র্য দিবস উদযাপিত হয়েছে তালিবপুর ইউনিয়নের মজলিশপুর গ্রামে। উক্ত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন মজলিশপুর গ্রামের শিশু, কিশোর ও কৃষক, কৃষাণীরা। অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল রায় এবং সহযোগিতা করেন প্রোগ্রাম অফিসার শাহিনুর রহমান, গাজী শাহাদাত হোসেন বাদল, অনন্যা আক্তার, সঞ্জিতা কির্ত্তুনীয়া প্রমুখ।


সকল জীবনের জন্য সম্মান ও শ্রদ্ধাবোধ জাগ্রত করার লক্ষ্যে শিশু-কিশোরদের নিয়ে প্রকৃতিতে বিরাজমান বিভিন্ন প্রাণের চিত্র অংকনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটি শুরু হয়। শিশুদের চিত্রে বৈচিত্র্যময় প্রাণের উপস্থিতি দেখে আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল রায় শিশুদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমাদের চারপাশে যে সকল প্রাণী আছে তাদের কাউকে কষ্ট দেওয়া যাবেনা। সকল প্রাণীর প্রতি তোমাদের ভালোবাসা থাকতে হবে। পাখির বাসা, ডিম, পাখির ছানা নষ্ট করা যাবে না এবং বিনা কারণে গাছের পাতাও ছেড়া যাবেনা।


বিমল রায় আরও বলেন, প্রাণবৈচিত্র্য রক্ষায় সবাইকে অবদান রাখতে হবে, অঙ্গীকারাবদ্ধ হতে হবে। ফসলে ক্ষতিকর রাসায়নিক কীটনাশক ব্যবহার না করে নিজেদের তৈরি করা জৈব সার ব্যবহার করতে হবে। মাত্রাতিরিক্ত সার বিষ ব্যবহারের ফলেই মারা যাচ্ছে অনেক উপকারী প্রাণ। সকল প্রাণকে বাঁচিয়ে রাখতে আমাদের সবাইকেই অঙ্গীকারাবদ্ধ হতে হবে।’


মজলিশপুর গ্রামের কৃষাণী শেফালী বেগম (৩৫) বলেন, আমরা সার বিষ দিয়ে ফসল উৎপাদন করে প্রতিদিন নিজের হাতে বিষ খাচ্ছি এবং অনেক পশু পাখির ক্ষতি করছি। আমাদের নিজেদের এবং অন্যদের বাঁচাতে হলে গোবর, ছাই, খৈল, বাড়ির ময়লা আর্বজনা দিয়ে জৈব সার তৈরি করে ফসলে দিতে হবে তবেই আমরা ও অন্যান্য পশু পাখিরা ভালো থাকতে পারবো।’


সকল প্রাণের জন্য সমান ভাগে বণ্টিত আগামী নিশ্চিত করতে শিশু, কিশোর, তরুণ, তরুণী, প্রবীণ, পরিবার, সমাজ, রাষ্ট্র সবাইকে সচেতন হতে হবে। বিশেষ করে নতুন প্রজন্মের ভেতর প্রাণ, প্রকৃতি, পরিবেশ রক্ষা করার বোধগম্যতা জাগ্রত করতে হবে। তবেই ভালো থাকবে সকল প্রাণ।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: