সাম্প্রতিক পোস্ট

রান্না হবে পরিবেশবান্ধব চুলায়

রাজশাহী থেকে সুলতানা খাতুন

বিলনেপাল পাড়া হাফেজীয়া মাদ্রাসা ও এতিম খানা স্থাপিত হয় ২০০৩সালে। ১০ জন ছাত্র নিয়ে এর যাত্র শুরু হয়। বর্তমানে মাদ্রাসার ছাত্র সংখ্যা ৫১জন ও দুই জন শিক্ষক রয়েছেন। এখানে রাজশাহী জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে ছেলেরা লেখাপড়া করতে এসেছে। তাদের থাকা ও খাওয়া এখানেই। এখানে তিন বেলা রান্না করা হয়।

সাধারণ চুলাতে রান্না করার ফলে জ্বালানি খরচ বেশি হয়। মাদ্রাসার ঘরের সাথে রান্নাঘর হওয়ায় রান্নার সময় ধোঁয়ার কারণে ছেলেদের পড়াশুনাও বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হয়। মাদ্রাসার দেয়াল নষ্ট হয়। মাদ্রাসার শিক্ষকের কাছে সমস্যাগুলো শুনে বারসিক কর্মী তাকে পরিবেশবান্ধব চুলা তৈরি এবং এর ব্যবহার সম্পর্কে সচেতন করান। এর ফলে ওই শিক্ষক চুলা বানাতে আগ্রহী হন।

ওই শিক্ষক জানান, ৫১জন ছাত্রের মধ্যে ২৫ জনের রান্না করা হয়। অন্য ছাত্রদের লজিংএর ব্যবস্থা করা হয়েছে। বারসিক’র সহযোগিতায় ওই ২৫জন ছাত্রের রান্নার জন্য পরিবেশ বান্ধব চুলা তৈরি করা হয় সম্প্রতি। মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ মোঃ উয়াসিম হোসেন বলেন, ‘এ চুলা ব্যবহারের ফলে জ্বালানি সাশ্রয় হচ্ছে। আমাদের বাচ্চারা ও মাদ্রাসা ধোঁয়ার হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে। পাশাপাশি আমাদের পরিবেশকে দূষণ মুক্ত রাখা যায়।’

মাদ্রাসায় রান্না করে ছামেনা বেওয়া বলেন, ‘এ চুলায় রান্না করতে অনেক ভালো লাগছে। হাতে তাপ লাগছে না, চোখে ধোঁয়া লাগছে না, আগের চুলার তুলনায় এ চুলায় জ্বালানিও কম লাগছে। আমি অন্য নারীদের এ চুলার উপকারীতা সমন্ধে বলবো যাতে সবাই স্বাস্থ্য ও পরিবেশ দুটোকেই সুরক্ষা করে রান্না করতে পারেন।’

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: