সাম্প্রতিক পোস্ট

বুলবুলের তাণ্ডবে আহত প্রতিবেশীয় বনায়ন

সাতক্ষীরা থেকে মননজয় মন্ডল

১০ নভেম্বর আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। দেশের উপকূলীয় এলাকায় তাণ্ডব চালিয়ে তছনছ করে দিয়ে যায় বুলবুল। সুন্দরবনের কারণে আঘাতটি কম লাগলেও বিভিন্ন স্থানের পাশাপাশি শ্যামনগর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এলাকার সহ¯্রাধিক কাঁচা ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এ সময় অধিকাংশ মৎস্য ঘের পানিতে তলিয়ে একাকার হয়েছে। সুপেয় পানির আঁধার, বাথরুম, বিদ্যুৎ লাইন, কৃষি ফসল, বীজ বৈচিত্র্য বসতঘর, হাঁস মুরগি, শিশুদের শিক্ষা উপকরণ, আসবাসপত্র, নদীর বাঁধসহ বনায়নের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিশেষ করে উপকূলবর্তী নদীর চরে সৃষ্টি করা প্রতিবেশীয় বনায়নে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

বুলবুলের আঘাতে প্রতিবেশীয় বনায়নের প্রভাব (3)

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা, বৈশ্বিক উষ্ণতা কমানো সর্বোপরি প্রাকৃতিক পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সাতক্ষীরার শ্যামনগরে উপজেলা সামাজিক বন বিভাগ, স্থানীয় সরকার, বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সহযোগিতায় এলাকা উপযোগি বনায়ন গড়ে তোলা হয়েছে। নদী ভাঙন ও জ্বালানি সংকট নিরসনে নদীর চরে গোলপাতা, গরান, কেওড়া, খলিশা, হরখোজা, লতা, বাইন, কাঁকড়া, বাবলা সহ বিভিন্ন প্রজাতির বনজ বৃক্ষ লাগিয়ে সবুজায়ন করা হয়েছে। এলাকার বিভিন্ন স্থানের বনায়নের গাছ ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে তছনছ হয়েছে। চরের কেওড়া বাইন গোলপাতা কাকড়া, হড়খোজাসহ কয়েক প্রজাতির গাছ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। কোন গাছ সম্পুর্ণ উপড়ে গেছে, কোন কোন গাছ গোড়া থেকে ভেঙে গেছে আবার কিছু গাছের ডাল ভেঙে গেছে। আবার কিছু স্থানে গাছের উপর বিদ্যুৎ লাইনের পিলার পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় বুলবুল পরবর্তী স্থানীয় মানুষেরা বনায়নের ভিতরের বিনষ্ট হওয়া গাছ ও গাছের ডালপালা সংগ্রহ করে বনকে পরিচ্ছন্ন করেছেন এবং গাছগুলোকে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করেছেন। স্থানীয়রা নিজেদের উদ্যোগে বাগান পরিস্কার করার পাশাপাশি বনায়ন সংরক্ষণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।

বুলবুলের আঘাতে প্রতিবেশীয় বনায়নের প্রভাব (1)

সংরক্ষিত এসকল বনায়নের অভ্যন্তরে কিছু কিছু স্থানে পাখ পাখালির নিরাপদ আবাসস্থল হিসেবে গড়ে উঠেছিল। কিন্তু বুলবুল নিষ্ঠুরভাবে তাণ্ডব চালিয়ে ধ্বংস করেছে পাখির আলাসহ জীববৈচিত্র্যের নিরাপদ আবাসস্থল। এই প্রসঙ্গে তালবাড়ীয়া বনায়ন সুরক্ষা কমিটির সভাপতি যামিনী কান্ত মন্ডল বলেন, ‘আমাদের এলাকায় সুবিশাল বনায়নের ভিতরে প্রায় ১৫ ভাগ গাছপালা নষ্ট হয়েছে। আমরা গ্রামের লোকজন বারসিক’র সহযোগিতায় অনেক পরিশ্রম করে এই বনায়নটি গড়ে তুলেছিলাম কিন্তু এক বুলবুল অনেকখানী এলোমেলো করে দিয়ে গেলো।’

উপজেলা সামাজিক বনায়নের প্রতিনিধি পিরামিন ইসহাক বলেন, ‘শ্যামনগরের সকল স্থানে বনায়নের বেশ ক্ষতি সাধন হয়েছে। রাস্তার পাশে, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি নদীর চরের সৃষ্টি করা বাগানের গাছের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তিল তিল করে গড়ে তোলা বনায়নের গাছপালা ভেঙে যে পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা পূরণ হতে অনেক সময় লেগে যাবে।’

বুলবুলের আঘাতে প্রতিবেশীয় বনায়নের প্রভাব (2)

উপজেলা সামাজিক বন বিভাগ, স্থানীয় সরকার, বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সহযোগিতায় উপকূলীয় নদীর চরে গড়ে তোলা ম্যানগ্রোভ বনায়নের যে ক্ষতি হয়েছে সেটা কাটিয়ে উঠতে সময় লাগবে। প্রাণবৈচিত্র্য সংরক্ষণ ও জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় দেশের উপকূলীয় নদীর চরে ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিবেশীয় বনায়ন সুরক্ষা জরুরি। স্থানীয়দের সহযোগিতায় বনায়ন সুরক্ষা ও সংষ্কারের মাধ্যমে গড়ে উঠবে সবুজ বেষ্টনী সুরক্ষিত হবে জীববৈচিত্র্য।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: