সাম্প্রতিক পোস্ট

নবায়নযোগ্য জ্বালানি সেবার জন্যে ব্যাংকিং নীতিমালা সহজ করা জরুরি

রাজশাহী থেকে শহিদুল ইসলাম

রাজশাহীর তানোর উপজেলার বিআরডিবি সেমিনার হলে বারসিক, তানোর উপজেলা প্রশাসন এবং জনসংগঠনসহ উপজেলায় কর্মরত সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকগুলোর যৌথ উদ্যোগে ‘নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর প্রবেশাধিকার নিশ্চিত হোক’ শ্লোগানে নবায়নযোগ্য জ্বালানি ও ব্যাংকিং সেবা কর্মসূচি শীর্ষক মতবিনিময় ও সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
18554935_1664617640219746_1406844342_n
আজ (১৮ মে) অনুষ্ঠিত সংলাপে অংশগ্রহণকারী গণ সেলার সিস্টেম, বায়োগ্যাস প্লান্ট তৈরি, গবাদি পশু ক্রয় সহ নবায়নযোগ্য ও পরিবেশবান্ধব চর্চাগুলো করার জন্যে সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণের দাবি জানান। নবায়নযোগ্য জ্বালানি সেবা খাতে ব্যাংকগুলোর বরাদ্দ কম থাকে। তারা দাবি করেন এই খাতে আরো বেশি বরাদ্দ দিতে হবে। একইসাথে মর্টগেজ (জামানত) ছাড়া প্রান্তিক কৃষকসহ তরুণদের রিনের ব্যবস্থা করতে হবে।

সংলাপে রাজশাহী  কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক এর তানোর উপজেলা শাখা ব্যবস্থাপক গোলাম আলমগীর কবির, ডাচ বাংলা অনলাইন ব্যাংকিং সেবা তানোর উপজেলা প্রতিনিধি নবায়নযোগ্য উপস্থিত থেকে জ্বলানিতে নিজ নিজ ব্যাক এর সেবা ও সুবিধাগুলো তুলে ধরেন। এই প্রসঙ্গে রাজশাহী  কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক এর তানোর উপজেলা শাখা ব্যবস্থাপক গোলাম আলমগীর কবির বলেন, “বাংলাদেশ ব্যাংক এর নীতিমালা অনুযায়ী আমাদের ব্যাংক গ্রীন ব্যাংকিং সেবা দিয়ে থাকে। স্বল্প সুদে ঋণ এবং সোলার প্যানেল ক্রয়ের জন্যে ত্রিশ হাজার টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়।
18554751_1664616483553195_1989556489_n
নবায়নযোগ্য জ্বালানি সেবা এবং এর সম্প্রসারে বর্তমান সরকার নানামূখী উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। সরকারের সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংক এর পরামর্শক্রমে এবং নীতিমালা অনুযায়ী অনেক ব্যাংক ও প্রতিষ্ঠান গ্রীন ব্যাংকিং সেবা চুলু করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় কিছু ব্যাংক তাদের কার্যক্রমের মাধ্যমে জনগোষ্ঠীর মধ্যে সোলার হোম সিস্টেম (সৌর বিদ্যুৎ) ও বায়োগ্যাস প্লান্ট, কেঁচো কম্পোস্ট তৈরি, গবাদি পশু ক্রয়সহ ইত্যাদি বিষয়গুলোতে ঋণ দিয়ে থাকে। কিন্তু অনেক সময় সঠিক তথ্যের অভাব এবং প্রতিষ্ঠানগুলোর নিয়ম জটিলতার কারনে প্রান্তিক জনগোষ্ঠী সেবাগুলো থেকে বঞ্চিত হন।

সংলাপে তরুণদের পরিবেশবান্ধব উদ্যোগ গ্রহণের জন্যে ব্যাংক ঋণের সহজ পদ্ধতির দাবি জানান তরুণগণ। সংলাপে স্থানীয় তরুণ, কৃষকসহ আরো উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পরিবেশ পদক প্রাপ্ত কৃষক ইউসুফ আলী মোল্লা, পরিবেশবান্ধব সবজি উৎপাদক ও সফল জিরা মসলা চাষী কৃষক আব্দুল হামিদ। তরুণ মিন্টো, সবজুল মিয়াসহ প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ।

উক্ত সংলাপ ও মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রান্তিক মানুষের নবায়নযোগ্য জ্বালানির সেবা, সমস্যা ও সম্ভাবনা বিষয়ক মাঠ পর্যবেক্ষণ গবেষণা প্রতিবেদন তুলে ধরেন বারসিক বরেন্দ্র অঞ্চল সমন্বয়কারী মো. শহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, “সরকারের নেওয়া নবায়নযোগ্য জ্বালানির  সেবাগুলো অনেক সময় তথ্য এবং স্বচ্ছতার অভাবে গরিব মানুষরা সেবা থেকে বঞ্চিত হন।”

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: