সাম্প্রতিক পোস্ট

কৃষি সমৃদ্ধিতে যুবকরা ভূমিকা রাখছে

হরিরামপুর, মানিকগঞ্জ থেকে মুকতার হোসেন

হরিরামপুর যুব টিম ও বারসিক’র উদ্যোগে সম্প্রতি ‘কৃষি সমৃদ্ধিতে যুবকদের ভূমিকা’ এক বিষয়ক অনলাইন আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় হরিরামপুর যুব নারী সংগঠনের সভাপতি লিমা আক্তার সভাপতিত্বে এবং জলবায়ু স্বেচ্ছা-সেবক টিমের সাধারণ সম্পাদক ও কৃষি উদ্যোগক্তা ফয়সাল হোসেনের সঞ্চালনায় প্রধান আলোচক হিসেবে অংশগ্রহণ করেন হরিরামপুর পদ্মা পাড়ের পাঠশালা তরুণ উদীয়মান যুবক মীর নাদিম। এছাড়াও আলোচনায় আরো অংশগ্রহণ করেন অনলাইন ভিত্তিক যুব সংগঠনের সভাপতি জাকির হোসেন, নারী উদ্যোগক্তা লিপি রানী, হরিরামপুর স্বেচ্ছা-সেবকটিমের আহবায়ক শাহিন টিটু, আন্ধারমানিক যুব টিমের সদস্য শুভ্র, বারসিক আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল রায়সহ বারসিক হরিরামপুর, মানিকগঞ্জ সদর, ঘিওর ও সিঙ্গাইর অঞ্চলের বারসিক কর্মকর্তাবৃন্দ।


সভায় আলোচক বৃন্দরা বলেন, ‘বর্তমান মহামারী করোনাকালে যখন অস্বাভাবিক পরিস্থিতি বিরাজমান করছে। স্কুল কলেজ বন্ধ থাকায় তরুণ যুবকরা তাদের পরিবারের কৃষি কাজের সাথে সমৃক্ত হচ্ছে। চলমান এই পরিস্থিতিকে মোকাবেলা করতে খাদ্য চাহিদা পূরণে এবং কৃষিকে সমৃদ্ধ করতে হরিরামপুর যুব স্বেচ্ছা-সেবক টিমের সদস্যরা কৃষি উৎপাদনকে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছে।’

এই প্রসঙ্গে হরিরামপুর চরাঞ্চরের কৃষি উদ্যোগক্তা ফয়সাল হোসেন বলেন, ‘আমি আগে থেকেই লেখাপড়ার পাশাপাশি কৃষি কাজের সাথে সমৃক্ত আছি। আমি চরের পতিত জমি লিজ নিয়ে ১০ একর জমিতে স্থানীয় জাতের সবরি কলা চাষ করেছি। এতে আমি লাভবান হয়েছি। কলা চাষের মাধ্যমে চরাঞ্চলে মানুষের খাদ্য পুষ্টি চাহিদা পূরণে যেমন ভূমিকা রাখছে, তেমনি যুবকদের আতœকর্মসংস্থান তৈরিতে সহায়ক হচ্ছে। তাছাড়া আউশ আমন ধান, বসতবাড়িতে সবজি চাষ সহ বিভিন্ন ফসল উৎপাদনে কাজ করছি। আমার মত চরে অন্যান্য যুবকরাও কলা চাষ, গরু পালন, হাঁস-মুরগি, ছাগল-ভেড়ার খামার করেছে।’ বারসিক আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বিমল রায় বলেন, ‘যুবকরা কৃষিতে যে অবদান রাখছে তা অবশ্যই প্রশংসনীয়। খাদ্য নিরাপত্তা ও পরিবেশ রক্ষায় তারা অনেক ভূমিকা রাখছে। যুবকদের কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করার লক্ষ্যে তাদের সম্ভাবনা ও বাধাগুলো সরকারের কাছে তুলে ধরতে হবে এবং সহায়তা কামনা করতে হবে।’


আলোচনা সভায় যুবকদের ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনা ও ভাবনার বিষয় তুলে ধরা হয় যেখানে বক্তারা কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তায় কাজ করা, দলিত পিছিয়ে পড়া, চরাঞ্চলের ঝরে পড়া শিক্ষার্থীদের নিয়ে স্কুল কার্যক্রম পরিচালনা করা, বেকার যুবকদের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সহায়তায় প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আতœকর্মসংস্থান তৈরি করা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচি করা, নারী নির্যাতন, বাল্য বিয়ে রোধে আরো প্রচারণামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা, প্রাণ-প্রকৃতি রক্ষায় সকল প্রাণের সহ-অবস্থান তৈরিতে কাজ করা এবং সামাজিকভাবে নারী ও পুরুষের সমান অধিকার প্রতিষ্ঠা করে একটি আলোকিত সমাজ গড়ার বিষয়ে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।


উল্লেখ্য, বারসিক যুবকদের মধ্যে উদ্যোগ তৈরিতে সহায়তা করে। বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের মধ্যে দিয়ে তাদের সম্পৃক্ত করে। এই সকল কাজে বারসিক তাদেরকে সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ তৈরি করার ক্ষেত্র তৈরি করে। এছাড়াও সংগঠনটি প্রশিক্ষণ প্রদান ও উপকরণ সহায়তা, ব্যানার, ফেসটন, বিলবোর্ড, আবেদনসহ বিভিন্ন তথ্য ও উপাত্ত দিয়ে যুবক সংগঠনগুলোকে সহায়তা করে।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: