সাম্প্রতিক পোস্ট

আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবো

শ্যামনগর, সাতক্ষীরা থেকে বিশ্বজিৎ মন্ডল

বারসিক’র উদ্যোগে ধারবাহিক কর্মসূচির আলোকে উপকূলীয় এলাকায় গড়ে ওঠা জনসংগঠনের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে মাধ্যমে বারসিক’র শ্যামনগর অফিসের কার্যালয়ে গতকাল জনসংগঠনের ত্রৈমাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় উপজেলা জনসংগঠন সমন্বয় কমিটির সভাপতি শেখ সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও বারসিক কর্মকর্তা বিশ^জিৎ মন্ডলের সঞ্চালনায় এবং উপকূলীয় এলাকা সমন্বয়কারী পার্থ সারথী পালের শুভেচ্ছা বক্তব্যে ও পরিচিতির মাধ্যমে সভার সূচনা হয়। সভায় স্ব স্ব জনসংগঠনের প্রতিনিধিরা তাদের চলমান কাজের অগ্রগ্রতি পর্যালোচন ওা বর্র্ণনা করেন। চলমান কর্মসূচিতে তাদের সফল উদ্যোগ, কি বাধা সন্মূখীন হয়েছেন এবং এসব বাধা অতিক্রম করতে কি উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন বা করা যেতে পারে সে বিষয়ে আলোচনা করেন।

IMG20191020112904

এরপর উপকূলীয় এলাকায় বারসিক কর্তৃক স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সহায়তায় তৈরিকৃত পরিকল্পনা সহভাগিতা করা হয়। সভায় পেশাজীবী ২৮টি সংগঠনের প্রতিনিধি, উপজেলা জনসংগঠন সমন্বয় কমিটির প্রতিনিধি, বারসিক কর্মকর্তা, স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধি এবং বারসিক ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যসহ মোট ৪৬ জন অংশগ্রহণ করেন।

শ্যামনগর সদর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য এবং বাদঘাটা আইসিএম কৃষি ক্লাবের সদস্য মিসেস দেলোয়ারা বেগম বলেন, ‘কোন কাজ ছোট না বা কোন কাজেই সমস্যা নয় যদি সেটা সংগঠিত হয়ে করা যায়। আমরা আজকে আমাদের এলাকার কৃষি জমিতে লবণ পানির প্রবেশ, জলাবদ্ধতা, প্রাকৃতিক জলাশয়গুলো উন্মুক্ত না থাকা, সুপেয় পানির পুকুরগুলো সংরক্ষণ করা, নারী ও যুবদের বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ সহায়তার যে বিষয়গুলো এসেছে তা সমাধানের জন্য আমাদের সকলের সহযোগিতা দরকার। সাথে প্রশাসনেরও সহায়তা দরকার। আমরা সকলে একত্রিত হয়ে আমাদের সমস্যাগুলো প্রশাসনকে জানাবো। তবেই না আমাদের সমস্যা সমাধান হবে।’

সভায় অংশগ্রহণকারী যুব টিমের সদস্য কামরুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের কাজকে আরও গতিশীল ও সমন্বয় করা দরকার। আর এ সভার মাধ্যমে আমাদের নতুন ও পুরাতন সব সংগঠনের মধ্যে একটি ঐক্যবদ্ধ সম্পর্ক তৈরি হলো। আমরা যত বেশি নিজেদের কাজের সমস্যা নিয়ে আলোচনা করতে পারবো তত বেশি সুযোগ ও উপায় বের করতে পারবো সমস্যা সমাধানের। আমরা প্রত্যেকে প্রত্যেকের পাশে থেকে সহায়তা করবো। এজন্যই আমাদের সমন্বয়।’

IMG20191020112947 (2)

কৃষক নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা যে পরিকল্পনা করেছিলাম সেখানে আরো কিছু নতুন কাজ বের হলো। প্রত্যেক সংগঠনের কাজ সম্পর্কে আমরা ধারণা পেলাম যে, কে কি কাজ করছেন।’

সভায় অংশগ্রহণকারীরা অঙ্গীকারবদ্ধ হন যে, তাদের সমস্যা সমাধানে তাঁরাই ভূমিকা রাখবেন। সকল পেশার মানুষ একত্রিত হয়ে কাজ করবেন। প্রত্যেকে প্রত্যেকের পাশে দাঁড়াবেন।

happy wheels 2

Comments

%d bloggers like this: